AB Bank
ঢাকা শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে গল্পের শেষ করতে চায় ভারত


Ekushey Sangbad
স্পোর্টস ডেস্ক
০৩:০৪ পিএম, ১৮ নভেম্বর, ২০২৩
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে গল্পের শেষ করতে চায় ভারত

আগামীকাল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট ভেন্যু আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে স্বাগতিক ভারত। এবারের আসরে একমাত্র অপরাজিত দল হিসেবে ফাইনালে খেলতে আসা রোহিত শর্মার টিম ইন্ডিয়া ১ লাখ ৩০ হাজার সমর্থকের সামনে ১০ বছরের শিরোপা খরা কাটাতে উন্মুখ হয়ে আছে। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা ২টা ৩০ মিনিটে।  

১০৮৩ ও ২০১১ সালের পর তৃতীয় শিরোপা জয়ের পথে টানা ১০ ম্যাচে দাপটের সাথে জয়ী হয়েছে ভারত। ঘরের মাঠে সুবিধাকে পরিপূর্ণ ভাবে কাজে লাগিয়ে ফাইনালে অন্যতম ফেবারিট হিসেবেই তারা খেলতে নামছে।

ক্রিকেট পাগল দেশ হিসেবে পরিচিত ভারত ২০১৩ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর আর কোন বিশ্ব টুর্নামেন্টে শিরোপা জিততে পারেনি। যে কারনেই কালকের ফাইনালটি অন্যরকম এক আমেজ এনে দিয়েছে ভারতীয়দের সামনে। কিন্তু প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়াও ছেড়ে দেবার দল নয়। প্রথম দুই ম্যাচে হার দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করার পর অস্ট্রেলিয়াকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। রেকর্ড অষ্টম বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলতে আসা দলটির মধ্যে ভিন্ন কিছু যে অবশ্যই রয়েছে তা ইতোমধ্যেই প্রমানিত।

১৯৮৩ সালে বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক সুনীল গাভাস্কার টিভি চ্যানেল ইন্ডিয়াতে বলেছেন, ‘এটা একটি অবিশ্বাস্য ম্যাচ হতে চলেছে। পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলের বিপক্ষে খেলাটা মোটেই সহজ নয়। এই দলটি জানে অসম্ভব পরিস্থিতি থেকে কিভাবে ফিরে আসতে হয়। তারা জানে ফাইনালে কিভাবে খেলতে হয় এবং জিততে হয়। সে কারনেই আমি বিশ্বাস করি ভারতের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। কিন্তু একইসাথে রোহিত শর্মার দলের ওপরও আমার পূর্ণ আস্থা আছে।’

ওয়ানডে বিশ্বকাপের পাঁচ শিরোপা ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া ২০২১ সালে প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টি  বিশ্বকাপের শিরোপা জয় করেছিল। এ বছরের শুরুতে ভারতকে হারিয়ে ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপেরও শিরোপা জয় করে অসিরা।

চার সপ্তাহ আগে গ্রুপ পর্বে চেন্নাইয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ৬ উইকেটে হারিয়েছিল ভারত। প্যাট কামিন্সের দল মাত্র ১৯৯ রানে অল আউট হয়। দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ১৩৪ রানে পরাজিত হবার পর কলকাতায় বৃহস্পতিবার সেমিফাইনালে প্রোটিয়াদের ৩ উইকেটে পরাজিত করে প্রতিশোধ নিয়েছে কামিন্সরা। আরেক সেমিফাইনালে বিরাট কোহলির ওয়ানডেতে রেকর্ড ৫০তম সেঞ্চুরিতে নিউজিল্যান্ডকে মুম্বাইয়ে ৭০ রানে পরাজিত করে ভারত।

এই মুহূর্তে তিনটি সেঞ্চুরিসহ ৭১১ রান নিয়ে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক কোহলি। ভারতীয় ব্যাটারদের মধ্যে  ৫৫০ রান নিয়ে তালিকার পরের অবস্থানে রয়েছেন রোহিত। এবারের আসরে রোহিতের অধিনায়কত্ব দারুন প্রশংসিত হয়েছে। ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক নাসের হুসেন রোহিতকে ‘প্রকৃত নায়ক’ আখ্যা দিয়েছেন।

মোহাম্মদ সামি  ২৩ উইকেট নিয়ে বোলারদের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে। কিউইদের বিপক্ষে ৫৭ রানে ৭ উইকেট নিয়ে সামি রেকর্ড গড়েছেন।

আসরের প্রথম দুই ম্যাচে ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পরাজয়ের পর অস্ট্রেলিয়া নিজেদের লড়াইয়ে ফিরিয়ে আনে। টানা সাত গ্রæপ ম্যাচে জয়ী অস্ট্রেলিয়ারর জন্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল স্বপ্ন পূরণের ম্যাচ। ৭ উইকেটে ৯১ রান সংগ্রহ করা অস্ট্রেলিয়া যখন পরাজয়ের ক্ষণ গুনছিল তখন ত্রাতা হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ২০১ রানের অভাবনীয় এক ইনিংস খেলে তিনি সকলের মন জয় করেন।

২২ উইকেট পাওয়া অস্ট্রেলিয়ান লেগ স্পিনর এ্যাডাম জাম্পার সাথে পেসার মিচেল স্টার্ক ও জস হ্যাজেলউড সঠিক সময়ে নিজেদের প্রমান করে চলেছেন। ১২ ওভারের মধ্যে সেমিফাইনালে প্রোটিয়াদের ২৪ রানে ৪ উইকেট দখল করেন স্টার্ক ও হ্যাজেলউড। ৩৪ রানে স্টার্ক ৩টি ও ১২ রানে হ্যাজেলউড নিয়েছেন ২ উইকেট।

এনিয়ে দ্বিতীয়বারের মত বিশ্বকাপের ফাইনালে মুখোমুখি হতে যাচ্ছে ভারত-অস্ট্রেলিয়া। এর আগে ২০০৩ সালে জোহানেসবার্গে ১২৫ রানে জয়ী হয়েছিল টিম অস্ট্রেলিয়া।

ওয়ানডেতে এ বছর এনিয়ে দুই দলের অষ্টম ম্যাচ হতে যাচ্ছে। হ্যাজেলউড বলেন, ‘এ বছর আমরা তাদের সাথে বেশ কিছু ম্যাচ খেলেছি। যে কারনে দলটি আমাদের কাছে পরিচিত। একই কথা তাদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। ভারত অবশ্যই ভাল দল। পুরো টুর্নামেন্টে তারা সেটার প্রমান দিয়েছে। তাদের দলে সত্যিকার অর্থে কোন দূর্বলতা নেই। ফাইনাল ম্যাচটির জন্য আমরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় আছি।’

সেমিফাইনালে রোহিত (৪৭) ও শুভামন গিলের (৮০) ব্যাটিংয়ে ভর করে দূরন্ত সূচনা করা ভারত ৪ উইকেটে ৩৯৭ রান সংগ্রহ করেছিল। কিন্তু হ্যাজেলউড চার সপ্তাহ আগে গ্রুপ পর্বে ভারতকে শুরুতে চেপে ধরার বিষয়টি সামনে নিয়ে আসে। ঐ ম্যাচে ২ রানে তিন উইকেট হারানোর পর ভারত ২০০ রান সংগ্রহ করেছিল। ভারতীয় টপ অর্ডার সম্পর্কে হ্যাজেলউড বলেন, ‘আশা করছি আগের ম্যাচের মত আমরা আবারো শুরুতেই উইকেট তুলে নিতে পারবো। যে কারনে ভারতের রান বেশী দূর এগুতে পারেনি।’

ফাইনাল ম্যাচকে সামনে রেখে সব টিকেট ইতোমধ্যেই বিক্রি হয়ে গেছে। সব মিলিয়ে জমজমাট  এক লড়াইয়ের অপেক্ষায় আছে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব।  

একুশে সংবাদ/এস কে 


 

Link copied!