ঢাকা শুক্রবার, ১২ আগস্ট, ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

মালদ্বীপের মাফুশি দ্বীপে পর্যটকের জন্য ভাসমান ওয়াটার পার্কের অনুমোদন


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০১:০৮ পিএম, ৯ জুন, ২০২২
মালদ্বীপের মাফুশি দ্বীপে পর্যটকের জন্য ভাসমান ওয়াটার পার্কের অনুমোদন
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মাফুশি দ্বীপ মালদ্বীপের বৃহত্তম এবং সবচেয়ে সুন্দর দ্বীপগুলির মধ্যে একটি। মালে বিমানবন্দর থেকে প্রায় ২৭ কিমি দূরে কাফু অ্যাটলে অবস্থিত। এই দ্বীপে ২৭০০ জনেরও বেশি লোক বাস করে। দ্বীপটি পর্যটকদের জন্য একটি সুন্দর গন্তব্য যা জীবনধারা এবং সুবিধার মধ্যে একটি নিখুঁত ভারসাম্য বজায় রাখেতে পারে। এটি মালদ্বীপের বিমানবন্দর থেকে যাতায়াতের সহজগম্য। বিমানবন্দর থেকে এই দ্বীপে স্পিড বোটে চড়ে যেতে সময় লাগে মাত্র ৪৫ মিনিট এবং যাত্রা পথে আপনাকে এর মনোমুগ্ধকর সৌন্দর্যের উপভোগ্যময় করে তুলবে।

গত মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে স্থানীয় গণমাধ্যমকে মাফুশি কাউন্সিলরের সভাপতি জনাব হাসান সালাহ জানায় যে, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে মালদ্বীপের কে. মাফুশি আইল্যান্ডে স্থানীয় নাগরিক এবং পর্যটকদের জন্য ভাসমান ওয়াটার পার্ক বা জল পার্ক খোলা হবে। ঈদের ছুটির প্রথম তিন দিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ওয়াটার পার্ক খোলা থাকবে।পার্কটি সব বয়সের মানুষের জন্য উন্মুক্ত থাকবে এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে লাইফগার্ড থাকবে। তিনি আরও জানান যে, ওয়াটার পার্কটি মালদ্বীপের জনপ্রিয় ধোনমানিক স্কাইভিউ রেস্তোরাঁ দ্বারা স্পনসর করা হয়েছে। পার্কটির আয়তন ৪৫০০ বর্গফুটের বেশি প্রসারিত হবে এবং এটি মাফুশি শিশু পার্ক "মাফাহিভাথি" এর কাছে সমুদ্রের সহিত সংযোগ বিশিষ্ট হবে।

কাউন্সিলর সালাহ বলেন, যেহেতু ঈদের ছুটি প্রায় পাঁচ দিন স্থায়ী হবে, তাই আমরা অনুমান করছি দ্বীপটিতে স্থানীয় ও বিদেশি পর্যটক মিলে প্রায় ৮,০০০ এর বেশি সংখ্যক দর্শনার্থীর আগমনী হবে।মাফুশি দ্বীপটি স্থানীয় পর্যটকদের জন্য মালদ্বীপের সবচেয়ে জনপ্রিয় দ্বীপ এবং এদের একাধিক ওয়াটার স্পোর্টসের ব্যবসাও রয়েছে। দ্বীপটিতে ১,৬০০ টি পর্যটকদের জন্য বিলাশী শয্যা রয়েছে এবং কিছু গেস্টহাউস ইতিমধ্যেই ঈদের ছুটির জন্য বুক করা হয়েছে৷ মাফুশি কাউন্সিলর জনাব সালাহ বলেন, ঈদে পর্যটকদের জন্য দ্বীপে এবং বাইরে চব্বিশ ঘন্টা ভ্রমণের সুবিধার সাথে নিরাপত্তা ব্যবস্থাও করেছেন।

প্রসংঙ্গে, মালদ্বীপের মাফুশি দ্বীপে ভ্রমণ করার আগে বাংলাদেশি দর্শনার্থীরা তালিকার জিনিসগুলি বহন করতে ভুলবেন না। মাফুশি দ্বীপ একটি লুকানো রত্ন যা অনেকেই জানেন না। মাফুশিতে পর্যটকদের জন্য প্রথম গেস্টহাউস বা অতিথিশালা শুধুমাত্র ২০০৯ সালে নির্মিত হয়েছিল এবং তারপর থেকে দ্বীপ জুড়ে আরও অনেকগুলি অতিথিশালা সমাগম হয়েছে, যা অন্যান্য বাণিজ্যিকীকৃত পর্যটকদের গন্তব্যস্থল থেকে ভিন্ন মনোভাব ও মাফুশিতে থাকা স্বস্তিদায়ক এবং পুনরুজ্জীবিত করবে আগন্তুক দর্শনার্থীদেরকে।

এই তালিকায় দ্বীপটিতে আরও ৯টি মজার জিনিস রয়েছে যেমন, স্নোর্কেল, স্যান্ডব্যাঙ্ক ট্যুর, রাত ও দিনে মাছ ধরা, আইল্যান্ড হপিং, স্থানীয় সংস্কৃতি, ডলফিন সাফারি, বিলাসবহুল রিসোর্টে থাকা, বিকিনি বিচ, ফ্লোটিং বার এবং সাফারি বার।

যেমনটি, মালদ্বীপের কোন ট্রিপ বালির তীর ভ্রমণ ছাড়া পূর্ন হয় না ভ্রমণ পিপাসুদের। স্যান্ডব্যাঙ্কগুলি তুষার-সাদা বালি থেকে তৈরি করা হয় যা সমুদ্রের অগভীর এলাকায় তৈরি হয়। এটি বালির তীর থেকে নির্গত রঙগুলি সত্যিই মনোমুগ্ধকর, সবুজ এবং নীল রঙের বিভিন্ন শেড একে অপরের সাথে মিশে অন্যের মতো একটি মাস্টারপিস তৈরি করে। আপনি যখন একটি স্যান্ডব্যাঙ্ক ভ্রমণের জন্য সাইন আপ করবেন, তখন আপনাকে পুরো দিনের জন্য একটি ছোট স্যান্ডব্যাঙ্কে নিয়ে যাওয়া হবে। আপনি লেগুনে ডুব দিতে পারবেন এবং আপনি চাইলে বাইরের প্রাচীরটিও স্নোর্কেল করতে পারবেন। এই ট্যুরগুলি হল আধা-ব্যক্তিগত ট্যুর, যেখানে আপনি নিজেই সুন্দর সমুদ্র উপভোগ করতে পারবেন।

মাফুশির বেশিরভাগ গেস্ট হাউসে তাদের পর্যটকদের জন্য শুধু দিনের বেলায় নয়, রাতেও মাছ ধরার ট্যুরের আয়োজন করে। আপনি যে গেস্ট হাউসে থাকবেন সেটি যদি এটি অফার না করে, তবে একটি আকর্ষণীয় প্যাকেজের জন্য কেবলমাত্র নিকটতম ডাইভ সেন্টারে যাবেন। আপনি যে মাছটি ধরবেন তা একটি রেস্তোরাঁয় খুব অল্প চার্জে রান্না করে নিতে পারবেন। অথবা আপনি নিজেই একটি বারবিকিউ সেট আপ করতে পারবেন এবং সুন্দর নীল জলের পটভূমিতে সূর্যকে অস্ত যেতে দেখে আপনার হাতের মুঠোয়ের সান্নিধ্যে উপভোগ করে নিতে পারেন।

আপনি যদি স্নোর্কেল করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েন এবং দৃশ্যের একটু পরিবর্তন দেখতে চান, তাহলে কিছু দ্বীপে ঘুরতে বেরিয়ে পড়ুন। মাফুশির চারপাশে বেশ কয়েকটি দ্বীপ রয়েছে যা আপনি ঘুরে দেখতে পারবেন। আপনার গেস্ট হাউসের লোকদের অনুরোধ করে একজন গাইডার নিয়ে তার সাথে ব্যক্তিগত জায়গাই ঘুরবার ব্যবস্থা করতেও পারেন। বেশ কয়েকটি ট্যুর অপারেটর বরং সাশ্রয়ী মূল্যে দ্বীপ ঘুরাঘুরির প্যাকেজ সরবরাহ করে থাকে। সবচেয়ে জনপ্রিয় দ্বীপ ঘুরার স্থান হল রাজধানী শহর মালে। কিন্তু আপনি যদি ভিড় পছন্দ না করেন তো শান্ত মনোরম কোনো দ্বীপে গিয়েও সময় কাটাতে পরেন। একটি দিনের ট্রিপে নৈশভোজের পাশাপাশি মধ্যাহ্নভোজও অন্তর্ভুক্ত থাকবে যাতে আপনি একটি সর্ব-সমেত বিলাসবহুল দিনের ট্রিপে নিজেকে আপগ্রেড কর নিতে পারেন৷ আপনি যে দ্বীপে যাবেন সেই দ্বীপের অনেকগুলি রিসর্টের এক একটিতে ওয়াটার বিলাগুলোতে রাত্রিযাপন করতে পারবেন। এ জন্য আপনাকে দ্বীপ বা রিসর্টে জন প্রতি একটি দিনের জন্য ২৫ মার্কিন ডলার থেকে একশত মার্কিন ডলার এর মধ্যে গুনতে হবে।

উল্লেখ্য, মালদ্বীপের মাফুশি দ্বীপে গত ঈদুল ফিতরের উৎসব উদযাপনে তিন দিনের ভ্রমণে কে. মাফুশিতে গিয়েছিলেন দ্বীপ রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম মোহাম্মদ সোলিহ এবং ফার্স্ট লেডি ফাজনা আহমেদ।