ঢাকা সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

ইডেনে ছাত্রীদের অনৈতিক কাজে বাধ্য করার সত্যতা নেই


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
১২:৩৬ পিএম, ৭ অক্টোবর, ২০২২
ইডেনে ছাত্রীদের অনৈতিক কাজে বাধ্য করার সত্যতা নেই

কয়েকদিন দিন ধরে দেশের সবচেয়ে আলোচিত ক্যাম্পাস রাজধানীর ইডেন মহিলা কলেজ। সংঘাত, নির্যাতন, মারামারি এমনকি ছাত্রীদের অনৈতিক কাজে বাধ্য করারও অভিযোগ ওঠে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের উপর।

 

বেশ কয়েকটি অভিযোগ সত্য হলেও ছাত্রীদের অনৈতিক কাজে বাধ্য করার কোনো সত্যতা পাওয়া পায় নি তদন্ত কমিটি। এমনটা এক সংবাদ বিজ্ঞাপ্তিতে দাবি করছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এছাড়া সিট বাণিজ্য নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনাসহ অন্যান্য অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বিধি অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে কলেজ প্রশাসন।

 

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্যর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়৷

 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ সেপ্টেম্বর দিনগত রাতে ইডেন কলেজে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে। পরবর্তীকালে আরও বেশকিছু বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে কিছু শিক্ষার্থীর বক্তব্য প্রকাশিত হয়। এসব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কলেজের জ্যেষ্ঠ অধ্যাপক মোহাম্মদ জিয়াউল হক, অধ্যাপক কাজী আতিকুজ্জামান, অধ্যাপক সুফিয়া আখতার ও অধ্যাপক মেহেরুন্নেসা মেরীর সমন্বয়ে গঠিত তদন্ত কমিটি এ প্রতিবেদন দাখিল করে।

 

ইডেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য বলেন, ছত্রীদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। সিট বাণিজ্যের বিষয়ে তাদের কাছ থেকে কোনো মতামত আসেনি।

 

তিনি আরও বলেন, তদন্ত কমিটি সবার সঙ্গে কথা বলে মতামত জানার চেষ্টা করেছে। আমাদের কলেজে ছাত্রীর তুলনায় সিটসংখ্যা অনেক কম। এক-দুজন যে সিট বাণিজ্যের ভুক্তভোগী না, সেটা আমরা দৃড়ভাবে বলতে পারছি না। এটা যদি প্রমানিত হয়, তাহলে আমরা ব্যবস্থা নিবো।

 

সিট বাণিজ্যের প্রসঙ্গে অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য বলেন, যারা (ছাত্রলীগের একাংশ) সিট বাণিজ্যের অভিযোগ করছে, তাদের রুমেই সিটের চেয়ে বেশি মেয়ে থাকছে। সবকিছু খতিয়ে দেখতে হবে আমাদের। এ জন্য আমরা অধিকতর তদন্ত করবো।

 

একুশে সংবাদ/এসএপি