AB Bank
ঢাকা শনিবার, ২০ এপ্রিল, ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

মিয়ামিতে খেলার ঘোষনা জকোভিচের


Ekushey Sangbad
স্পোর্টস ডেস্ক
০৫:০৬ পিএম, ১২ মার্চ, ২০২৪
মিয়ামিতে খেলার ঘোষনা জকোভিচের

ইন্ডিয়ান ওয়েলস মাস্টার্স টুর্নামেন্ট থেকে হতাশাজনক বিদায়ের পর আসন্ন মিয়ামি ওপেন টেনিসে  খেলার ঘোষনা দিয়েছেন নোভাক জকোভিচ।সার্বিয়ান নাম্বার ওয়ান পাঁচ বছরের দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ইন্ডিয়ান ওয়েলসে ফিরেছিলেন। কিন্তু তৃতীয় রাউন্ডে বিশ্বের ১২৩ নম্বর খেলোয়াড় ইতালিয়ান লুকা নার্ডির কাছে ৬-৪, ৩-৬, ৬-৩ গেমে পরাজিত হয়ে তাকে বিদায় নিতে হয়।

জকোভিচ জানিয়েছেন এখনো তার মিয়ামিতে খেলার পরিকল্পনা আছে। পরবর্তী মাস্টার্স এই টুর্ণামেন্টকে সামনে রেখে জকোভিচ বলেন, ‘মিয়ামি এখনো আছে, দেখা যাক কি হয়। গত দুই বছর ইন্ডিয়ান ওয়েলস ও মিয়ামিতে খেলতে না পারার সময়টা আমি মোটেই উপভোগ করতে পারিনি। সত্যিকার অর্থেই আমি এই দুই মাস্টার্স টুর্নামেন্টে খেলতে সবসময় মুখিয়ে থাকি। এ বছর আমি খেলার জন্য পরিশ্রম করেছি। ইন্ডিয়ান ওয়েলস ও মিয়ামিতে খেলা আমি সবসময়ই পছন্দ করি।’

পাঁচবারের ইন্ডিয়ান ওয়েলস বিজয়ী জকোভিচ প্রায় ছয় সপ্তাহেরও বেশী সময় আগে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালে আরেক তরুণ তারকা  ইতালিয়ান ইয়ানিক সিনারের কাছে পরাজিত হবার পর এই প্রথম মাঠে নেমেছিলেন। ২৪ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম বিজয়ী জকোভিচ নার্ডি সম্পর্কে বলেছেন, ‘মূল ড্র’তে সৌভাগ্যক্রমে সে সুযোগ পেয়েছে। সে কারনে তার হারানোর কিছু ছিলনা। আর তাই নির্ভার হয়ে খেলে দারুন পারফর্ম করেছে। এই জয়টা তার প্রাপ্য ছিল। নিজের মান নিয়ে আমি বিস্মিত। আজ আমি কোন প্রতিরোধই গড়তে পারিনি। এটা সত্যিই অত্যন্ত খারাপ একটি দিন ছিল। আসলে দুটি বিষয় একসাথেই হয়, আজ আমার খারাপ দিন ছিল, বিপরীতে নার্ডির একটি ভাল দিন গেছে। যে কারনে ফলাফল আমার প্রতিকূলে গেছে।’

৩৬ বছর বয়সী জকোভিচ টুর্নামেন্টের ব্যস্ততা কিছুটা কমিয়ে আনার চেষ্টা করছেন। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমি হয়তো সব টুর্নামেন্ট আর খেলবো না, সে কারনেই বাছাই করে খেলতে চাচ্ছি। অবশ্যই যেকোন টুর্ণামেন্ট থেকে আগেভাগে বিদায় নেয়া কখনই ভাল কোন অনুভূতি বয়ে আনে না। বিশেষ করে এ ধরনের মাস্টার্স টুর্নামেন্টে বিষয়টা আরো বেশী হতাশার। গত পাঁচ বছর আমি এখানে খেলতে পারিনি। সে কারনে ভাল করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু এখানেই সব শেষ হয়ে যায়নি, আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। 

 

 

একুশে সংবাদ/এস কে

Link copied!