AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

নিরবে উঠানে ভোট চাইছে আওয়ামী লীগ


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০৮:০১ পিএম, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩
নিরবে উঠানে ভোট চাইছে আওয়ামী লীগ

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এখনো বাকী প্রায় ১০মাস। এবারের নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন পেতে নিরবে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি ভোটারদের কাছে নৌকায় ভোট চাইছেন সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। এরইমধ্যে দেশজুড়ে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পদচারনায় জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারনা। ইতোমধ্যে নির্বাচনের সব প্রস্তুতি ধীরে ধীরে গ্রহণ করছে নির্বাচন কমিশন। তবে কোন কোন দল নির্বাচনে অংশ নেবে তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। দেশের প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার বিষয়ে চুপ থাকলেও ভোট চেয়ে নির্বাচনী মাঠ কাঁপিয়ে তুলছেন সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

 

শুধু তাই নয়, নিজ নিজ সংসদীয় আসনে ভোটারদের মন জয় করতে নানা পরিকল্পনায় এগোচ্ছেন তারা। আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।

 

আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারা জানান, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আওয়ামী লীগের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এটি হবে উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখার নির্বাচন। এ নির্বাচনের ফল ঘরে তুলতে আমরা প্রতিটি মানুষের কাছে যাব, আমাদের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরব। তাছাড়া আওয়ামী লীগ দীর্ঘ ১৪ বছরের বেশি সময় ধরে ক্ষমতায় রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। নির্বাচনের আগে পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, কর্ণফুলী টানেলসহ আমাদের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডগুলো জনগণকে একবার নিজ চোখে দেখে আসতে বলব। আমরা মানুষের ভোটের মূল্যায়ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে দিয়ে থাকি।

 

জানা গেছে, বর্তমানে বিভাগীয় জেলা শহরে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা জনসভা করছেন, ভোটারদের কাছে নৌকায় ভোট চাচ্ছেন। এখন শুধু জনসভা নয়, ভোটারদের উঠানে উঠানে বৈঠক করছেন টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা দল আওয়ামী লীগের তৃণমূল থেকে শুরু করে শীর্ষপর্যায়ের নেতারাও। উঠান বৈঠকে ভোট চাওয়ার পাশাপাশি তুলে ধরছেন টানা তিন (গত ১৪ বছরের) মেয়াদে সরকারের সব উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড। গ্রাম-গঞ্জের সাধারন মানুষের কাছে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশের প্রয়োজনীয়তার।

 

এছাড়াও আওয়ামী লীগ আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির সব কর্মসূচিতে বিশেষ নজর রাখছে। বিএনপির নেতারা কে, কোথায়, কী করছেন— সব জানার চেষ্টা করছেন। তাদের কর্মসূচির বিরুদ্ধে পাল্টা কর্মসূচি তাৎক্ষণিকভাবে দিচ্ছেন দলটি। যদিও পাল্টা কর্মসূচি নেই বলে প্রতিদিন বক্তব্য দিচ্ছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তার মন্তব্য, নির্বাচন পর্যন্ত রাজপথে-মাঠে আছি, থাকব। প্রতিদিনই আমাদের কর্মসূচি আছে।

 

বিভিন্ন এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নৌকার সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতিমধ্যে বাড়ি বাড়ি উঠান বৈঠক শুরু করেছেন। বিভিন্ন সভা/সেমিনারের মাধ্যমে হাট-বাজারেও সরকারের উন্নয়নচিত্র তুলে ধরে করছেন গণসংযোগ। ‘নিজেকে অমুক-তমুক আসনের এমপি হিসেবে দেখতে চাই’ এলাকার রাস্তাঘাটে চোখে পড়ছে এমন পোস্টার ব্যানার।

 

নৌকায় ভোট চেয়ে মাঠে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার কর্মকর্তা: বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের লিফলেট বিতরনের মাধ্যমে উঠান বৈঠকে নিজ সংসদীয় আসন কিশোরগঞ্জ-২ (পাকুন্দিয়া-কটিয়াদী) বিভিন্ন গ্রাম চষে বেড়াচ্ছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার প্রধান তদন্তকারি কর্মকর্তা বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাহার আকন্দ। তিনি দেশের আলোচিত বিডিআর বিদ্রোহ, জাতীয় চারনেতা হত্যা মামলা, ১০ট্রাক অস্ত্র আটকসহ আরো গুরুত্বপূর্ণ অনেক মামলার দায়িত্ব পালন করেছেন নিষ্ঠার সঙ্গে। দেশের আলোচিত ও চৌকর্স পুলিশ কর্মকর্তা আবদুল কাহার আকন্দ চাকুরীরত অবস্থায়ও নিজ এলাকার হরীব-দু:খী মানুষের কল্যানে নিবেদিত ছিলেন। এবার নৌকায় ভোট চাওয়ার পাশাপাশি তিনি অসুস্থ মানুষের সেবা দেওয়ার পাশাপাশি কিশোরগঞ্জ-২ নির্বাচনী এলাকার প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও মুক্তিযোদ্ধার এক ছাতার ছায়াতলে মিলিত করেছেন। তিন বলেন, বরাবরের মতো এই নির্বাচনী এলাকাটি অবহেলিত। আশা করছি দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে নৌকার মনোনয়ন দিবেন। এটা আমার একার নয়, এই সংসদীয় আসনের মুক্তিযোদ্ধের চেতনায় অবিচল সকল পেশা-শ্রেনির মানুষের গণ দাবি।  

 

সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বনগ্রাম-আচমিতা ইউনিয়নে নৌকায় ভোট চেয়ে গণসংযোগ করেছেন আবদুল কাহার আকন্দ। এরআগে মসুয়া,জালালপুর,কটিয়াদী সদর, পাকুন্দিয়ার মঠখোলা,বরুদ্দিয়া, মঙ্গলবাড়িনহ বেশ কিছু এলাকায় দেড় মাসের অধিক সময় ধরে শেখ হাসিনা সরকারের গত ১৪ বছরের দৃশ্যমান উন্নয়ন তুলে ধরে নৌকায় ভোপ প্রার্থনা করছেন।

 

উন্নয়ন তুলে ধরে ডেমরায় উঠান বৈঠক: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা সরকারের তিন মেয়াদের উন্নয়ন তুলে ধরে গত ১৫দিন যাবত রাজধানীর ডেমরার অনাচে-কানাচে উঠান বৈঠক শুরু করেছেন ঢাকা-৫ আসনের প্রয়াত চারবারের এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার জেষ্ঠ্যপুত্র আলহাজ্ব মশিউর রহমান মোল্লা সজল। একইসঙ্গে তিনি আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নৌকার পক্ষে ভোট চেয়েছেন। সর্বশেষ সোমবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকালে ডগাইর পশ্চিম-পূর্ব পাড়ায় তিনি গণসংযোগ করেছেন। এসব উঠান বৈঠকে মেট্রোরেল, উড়ালসড়ক, পদ্মাসেতুসহ সরকারের দৃশ্যমান উন্নয়নকর্মকাণ্ড ভোটারদের কাছে তুলে ধরছেন তিনি।

 

ভোট চাইছেন ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর: নিজ নির্বাচনী এলাকা কুমিল্লা-১ আসনের আনাচে-কানাচে শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে একের পর এক  উঠান বৈঠকে করে এলাকাবাসির সঙ্গে মিলিত হচ্ছেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর। শুধু তাই নয়, সকাল-বিকাল এলাকাবাসির জন্য কাজ করে যাচ্ছেন দরের এই কেন্দ্রীয় নেতা। ইতিমধ্যে নৌকায় ভোট চেয়ে তিনি পথসভা করেছেন দাউদকান্দি-মেঘনা সদরের অলিগলিতে বসবাসরত বাসিন্দাদের কাছে। এছাড়াও দাউদকান্দির গরিপুর,কদমতলী, হাসনাবাদসহ কুমিল্লা-২ আসনের বিভিন্ন এলাকায় নৌকায় ভোট চেয়ে পথসভা ও উঠান বৈঠকে ভোটারদের সঙ্গে মিলিত হচ্ছেন। তিনি সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন শিক্ষক ও কৃষক, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের। আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার অর্ভূতপূর্ব উন্নয়ন ভোটারদের কাছে তুলে ধরা আমার কতব্য বলে আমি মনে করি। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী করতে হবে। তাহলে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে।

 

উন্নয়ন চাইলে নৌকায় ভোট দিন: বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও সফলতা জনগনের মাঝেল পৌঁছে দিতে প্রতিনিয়ত উঠান বৈঠক করে যাচ্ছেন (নারায়ণগঞ্জ-৩) সাবেক সংসদ  সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। সাবেক এই সাংসদ মাঝে মধ্যেই নিজস্ব অর্থায়নে এলাকার অসহায় দুস্থ পরিবারের পাশে আর্থিক সহযোগিতা দিচ্ছেন। শুধু তাই নয়, তার নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি এলাকায় বিভিন্ন শ্রেনীপেশার অসংখ্য নারী পুরুষ ও শিশু সহ বয়োবৃদ্ধদের সার্বিক খোঁজ খবর রাখেন কায়সার হাসনাত।  প্রতি সাপ্তাহে নিজ বাড়িতে আয়োজন করেন সরকারের উন্নয়ন নিয়ে উঠান বৈঠকের। শেখ হাসিনার নানা উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের গল্প শুনতে অধীর আগ্রহে উপস্থিত হন স্থানীয় নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষ। সাবেক এই সংসদ সদস্য কায়সার হাসনাত বলেন, দেশের উন্নয়নে শেখ হাসিনা সরকার আবারো দরকার। দ্বাদশ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে দেশের উন্নয়নের স্বার্থে আপনাদের ভোটের মাধ্যমে পুনরায় ক্ষমতায় আনতে হবে। বিনিময়ে বেশি বেশিউন্নয়নের ছোয়া আপনাদের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাবে।

 

নৌকায় ভোট চেয়ে উঠানে ঝড় তুলছেন বোরহান: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে সরকারের ১৪ বছরের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরে মতবিনিময়-উঠান বৈঠক ও দিবসভিত্তিক কর্মসূটির মাধ্যমে ইতমধ্যে ঝড় তুলে তৃণমূল নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করছেন চাঁদপুর-৩ (সদর ও হাইমচর) আসন থেকে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী রেদওয়ান খান বোরহান। সর্বশেষ গত ৮দিন ধারাবাহিকভাবে নিজ এলাকায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে উঠান বৈঠক করেছেন তিনি। এছাড়াও এলাকার বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে সাধ্যমতো সহযোগিতা করে তৃণমূলে ব্যাপক ঝড় তুলেছেন আওয়ামী লীগের এই নেতা। এলাকার ভোটাররা এবারের দ্বাদশ নির্বাচনে এমপি হিসেবে চাঁদপুর-৩ আসন থেকে রেদওয়ান খান বোরহানকে দেখতে চান। রেদওয়ান খান বোরহান দাবি করেন, চাঁদপুর সদর ও হাইমচরের নেতাকর্মীরা আমাকে ভালো জানেন এবং পছন্দ করেন। চাঁদপুর-৩ আসন  থেকে নেত্রী আমাকে নৌকার মনোনয়ন দিলে বিজয় উপহার দিবো। তিনি বলেন,  আসুন, আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির লক্ষ্যে দ্বাদশ নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিয়ে আবারো চতুর্থবারের মতো বিজয় নিশ্চিত করি।

 

উঠান বৈঠকে উজ্জীবিত তৃণমূল: সরকারের উন্নয়নমূলক কাজে তৃণমূলের নারীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত, আগামী দিনের উন্নয়ন ভাবনা ও কর্মযজ্ঞ সাধারণ জনগণের কাছে পৌঁছে দিতে গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শ্রীপুরে শুরু হয়েছে উঠান বৈঠক। আর এ কর্মসূচি তৃণমূলে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। ব্যতিক্রমী এ উঠান বৈঠক কোন খোলা মাঠে নয়, কোনো একটি বাড়ির আঙ্গিনাতেই আয়োজন করা হয়। সেখানে কোন চেয়ার বা টেবিলের স্থান নেই। মাটিতে মাদুর বিছিয়ে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে একই কাতারে এনে জড়ো করে বসানো হয়। সেখানে বিশেষ দৃষ্টি থাকে তৃণমূলের নারীদের উপর। তাদের কাছে জানতে চাওয়া হয়- এলাকার বিভিন্ন সমস্যা, সমাধান ও সম্ভাবনার কথা। তাদের চাওয়া ও পাওয়ার উপর বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার বার্তা তৃণমূলে পৌঁছে দিচ্ছেন উপস্থিত নেতারা। আর এই উঠান বৈঠকের মাধ্যমে তৃণমূল আওয়ামী লীগে ব্যাপক সাড়া জাগাচ্ছে বলে জানিয়েছেন শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বুলবুল। তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যে কি পরিমাণ গ্রহণযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা রয়েছে- তা তৃণমূলে না আসলে কেউ অনুধাবন করতে পারবেন না।

 

উন্নয়নচিত্র তুলে ধরছেন কবির: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে (মুন্সীগঞ্জ-১ আসন) নৌকার মনোনয়ন চান ঢাকা মহানগর দক্ষিন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম সারোয়ার কবির। দলীয় মনোনয়ন নিশ্চিত করতে বিগত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে শুরু করে অদ্যবধি মাঠে কাজ করছেন সাবেক এই ছাত্রনেতা। সর্বশেষ দলীয়প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক মুন্সীগঞ্জ-১ আসনের প্রতিটি এলাকায় নৌকার পক্ষে ভোট চেয়ে এক উঠান বৈঠক ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়ে মিলিত হচ্ছেন তিনি। এরইমধ্যে সিরাজদিখান উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের রশুনিয়া, জৈনসার, ইছাপুরা, কোলা,মধ্যপাড়া, মালখা নগর, লতব্দী,বালুচর, বয়রাগাদীসহ আশপাশের এলাকাতেও প্রধানমন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে অস্বচ্ছল নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষের পাশে নিজেকে বিলিয়ে দিচ্ছেন তিনি। একইসঙ্গে আওয়ামী লীগ সরকারের টানান ১৪ বছরের উন্নয়নমূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে এর ধারাবাহিকতা রক্ষায় ভোটারদের কাছে নৌকায় ভোট চান গোলাম সারোয়ার কবির। একইভাবে সারাদেশে অন্তুত ৫ হাজারের অধিক আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিজ নিজ এলাকায় নৌকায় ভোট চেয়ে কর্মীসভা, উঠান বৈঠকসহ বিভিন্ন আলোচনা সভার মাধ্যমে নিজেদের অবস্থানের জানান দিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

 

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর বেশ কয়েকজন সদস্য বলেন, আগামী নির্বাচনের আগে তৃণমূলের সব সমস্যা সমাধানের নির্দেশ দিয়েছেন দলের সভাপতি। নৌকার জন্য প্রয়োজনে উঠান বৈঠক, উঠানেই দুই হাত তুলে নৌকার জন্য ভোট চাইবেন স্ব স্ব সংসদীয় আসনের আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা।

 

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমাদের (রাজনৈতিক) কর্মসূচি প্রতিদিন আছে, থাকবে নির্বাচন পর্যন্ত। ইউনিয়ন পর্যায়ে যে কর্মসূচি তা পাল্টাপাল্টি নয়। জনগণের জানমাল রক্ষা করা আমাদের কর্তব্য। তাই নির্বাচনের আগে আমাদের দলীয় কর্মসূচি থাকবে।

 

এ বিষয়ে কথা হয় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর অন্যতম সদস্য এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক এর সঙ্গে। তিনি বলেন, বিগত কয়েক বছর ধরেই সাংগঠনিক কর্মকান্ড, জনগণের কাছে যাওয়া-এসব নির্বাচনের প্রস্তুতির অংশ। তবে এখন আমরা জনগণের কাছে যাচ্ছি, উঠান বৈঠকে উন্নয়ন প্রচার এবং বিগত বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে কী পরিস্থিতি ছিল সেগুলো জনগণকে মনে করিয়ে দিচ্ছি।

 

তিনি বলেন, আমরা কী কী করেছি, আগামীতে কী কী করতে চাই সেগুলো জনগণের সামনে তুলে ধরব। বিভাগীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশাপাশি স্থানীয় এমপিরাও জনগণের কাছে উন্নয়ন প্রচার করবেন এমন নির্দেশনা দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছেন।

 

একুশে সংবাদ/সফি.প্রতি/এসএপি
 

Link copied!