AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

টয়লেটে ফোন ব্যবহারে যেসব কঠিন রোগ হতে পারে


Ekushey Sangbad
লাইফস্টাইল ডেস্ক
০৭:৪৩ পিএম, ২২ জানুয়ারি, ২০২৪
টয়লেটে ফোন ব্যবহারে যেসব কঠিন রোগ হতে পারে

তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর এই যুগে মোবাইলফোন একটি প্রয়োজনীয় জিনিস। বর্তমানে মোবাইলফোন ছাড়া আমাদের এক মুহূর্তও চলে না। এমনকি অনেকেই আছেন, যারা টয়লেটে গিয়েও মোবাইলফোন ব্যবহার করেন। কিন্তু টয়লেটে মোবাইলফোন ব্যবহার স্বাস্থ্যের জন্য বেশ ক্ষতিকর। ২০২৩ সালে লিথুয়ানিয়াভিত্তিক প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান নর্ডভিপিএনের এক জরিপে জানা যায়, উন্নত বিশ্বের দেশগুলোয় এখন প্রতি ১০ জনের ৬ জনই টয়লেটে ফোন নিয়ে যান। বিশেষ করে তরুণদের মধ্যে এই প্রবণতা আরও বেশি।

 

জরিপের তথ্য অনুযায়ী, ৯৩ শতাংশ তরুণেরই এই বদভ্যাস আছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই বদভ্যাস আমাদের স্বাস্থ্যের ওপর ভীষণ নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। জেনে নিন টয়লেটে মোবাইলফোন ব্যবহারের যত ক্ষতি

ভেজা পরিবেশে ব্যাকটেরিয়া দ্রুত বংশবৃদ্ধি করে। পাশাপাশি ক্রমাগত মোবাইল ব্যবহারের ফলে তার তাপমাত্রা এমনিতেই বেশি থাকে। এই তাপমাত্রাও ব্যাকটেরিয়াদের সাহায্য করে দ্রুত বংশবৃদ্ধি করতে। তাই টয়লেটের যেখানে-সেখানে মোবাইলফোন রাখা মানেই তাতে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ।

টয়লেটে বিভিন্ন ধরনের জীবাণু থাকে। মোবাইলে হাত দিলে সেই জীবাণু হাতের মাধ্যমে মোবাইলে চলে আসে। আবার ফোনের স্ক্রিনে থাকা ব্যাকটেরিয়া আপনার কান, মুখ, নাক, চোখে প্রবেশ করতে পারে সহজেই।

টয়লেটের ফ্ল্যাশ, কল বা দরজার লক ব্যবহারের পর মোবাইলের স্ক্রিনে হাত দিলে সেখানেও জন্মাতে পারে সালমোনেল্লার মতো ভয়ানক ব্যাকটেরিয়া, যা থেকে হতে পারে টাইফয়েডের মতো রোগ।

টয়লেটের কমোডে বসে মোবাইলফোন ব্যবহারের সময় আপনি মূলত দুই হাঁটুর ওপর কনুইয়ে ভর দেন। এতে মেরুদণ্ড ও পার্শ্ববর্তী পেশিগুলোয় চাপ পড়ে এবং ধীরে ধীরে শুরু হয় অস্বস্তি। ব্যথা হয় পিঠে ও কাঁধে। প্রথম প্রথম সমস্যাটি অতটা প্রকট না হলেও ধীরে ধীরে তা বাড়তে থাকে।

টয়লেটে মোবাইলফোন ব্যবহারের কারণে একই জায়গায় অনেকক্ষণ বসে থাকার ফলে মলদ্বারের শিরার ওপর চাপ পড়ে। এতে দেখা দিতে পারে পাইলসের মতো সমস্যা।

টয়লেটে দীর্ঘক্ষণ মোবাইলফোন ব্যবহার করলে বেশিরভাগ সময় পায়ে ঝিঁঝিঁ ধরে যায়। মোবাইলফোনে মনোযোগ থাকে বলে সময়ের হিসাব থাকে না। আর এদিকে দীর্ঘক্ষণ একই ভঙ্গিতে হাঁটুর ওপর কনুই ভর দিয়ে বসে থাকার কারণে পায়ে রক্ত সঞ্চালন বন্ধ হয়ে যায়। আর সে কারণেই পায়ে ঝিঁঝিঁ লাগে এবং পরে উঠে দাঁড়ানোই দায় হয়ে পড়ে। এটাও স্বাস্থ্যের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর।

স্বাভাবিকভাবে টয়লেটে গিয়ে মোবাইলফোন ব্যবহার করার কথা নয়। আর তা মানলে এ সময় চোখ দুটো কিছুটা বিশ্রাম পায়। কিন্তু টয়লেটে গিয়েও মোবাইলফোন ব্যবহার করলে চোখ আর সেই বিশ্রামটুকু পায় না। এ কারণে দেখবেন, টয়লেট থেকে বেরোলে সব ঝাপসা লাগে। এছাড়া টয়লেটে সাধারণত আলো থাকে অল্প। এমন আলোতে মোবাইলফোন ব্যবহার চোখের জন্য ভীষণ ক্ষতির কারণ হতে পারে।

অনেকেই রাতে ঘুম থেকে উঠে টয়লেটে যান। আর টয়লেটে তাদের সঙ্গী হয় মোবাইলফোন। হ্যাঁ, টয়লেট সারতে কারও কারও একটু বেশি সময় লাগতেই পারে। তাই বলে স্রেফ সময় কাটানোর জন্য ঘুম ঘুম চোখে মোবাইলফোনের দিকে তাকিয়ে থাকবেন না। কারণ, মোবাইলফোনের পর্দার আলো আপনার চোখ থেকে ঘুম কেড়ে নেয়। আর মাঝরাতে একবার ঘুম ছুটে গেলে আবার ফিরিয়ে আনা বেশ কঠিন। ঘুমের এ ব্যাঘাত স্বাস্থ্যের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর।

 

একুশে সংবাদ/এনএস

Link copied!