ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

করোনার ওরাল পিলের অনুমোদনে ভারতের তোড়জোড়


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
১১:২৮ এএম, ১১ নভেম্বর, ২০২১
করোনার ওরাল পিলের অনুমোদনে ভারতের তোড়জোড়

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে অ্যান্টিভাইরাল ওরাল পিল বা মুখে খাওয়ার ওষুধ ‘মলনুপিরাভির’। মার্কের তৈরি এ ওষুধের অনুমোদন দিতে তোড়জোড় শুরু করেছে ভারত। পাশাপাশি ফাইজারের তৈরি একই ধরনের ওষুধেও  চোখ রয়েছে। যদিও ফাইজারের মুখে খাওয়ার ওষুধটি অনুমোদনে কিছুটা সময় লাগবে। তবে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই ‘মলনুপিরাভির’ অনুমোদন দিতে পারেন ভারতীয় নীতিনির্ধারকরা। খবর এনডিটিভির।

ভারতের বৈজ্ঞানিক ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (সিএসআইআর) কোভিড স্ট্র্যাটেজি গ্রুপের চেয়ারম্যান ডা. রাম বিশ্বকর্মা জানিয়েছেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে দেশটিতে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেতে পারে মার্কের মলনুপিরাভির। তবে ফাইজারের প্যাক্সলোভিডের ক্ষেত্রে সময় কিছুটা বেশি লাগতে পারে।

ভারতীয় এ বিশেষজ্ঞের মতে, কোভিড-১৯ বৈশ্বিক থেকে আঞ্চলিক মহামারি হয়ে ওঠার মুহূর্তে এ দুটি ওষুধ টিকার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। এগুলো ‘করোনাভাইরাসের কফিনে বিজ্ঞানের শেষ পেরেক’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ডা. বিশ্বকর্মা বলেন, সম্ভবত আমরা মলনুপিরাভির পেতে যাচ্ছি। ওষুধ নির্মাতাদের সঙ্গে পাঁচটি কোম্পানি আলোচনা করছে। মনে হয়, যেকোনো দিন আমরা মলনুপিরাভিরের অনুমোদন পেয়ে যাবো।

সম্প্রতি ফাইজার জানিয়েছে, তাদের প্যাক্সলোভিড করোনা রোগীদের মৃত্যু ৮৯ শতাংশ কমিয়ে দিতে পারে বলে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে দেখা গেছে।

ডা. বিশ্বকর্মার কথায়, মার্ক এরই মধ্যে (ভারতের) পাঁচটি কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। আর তারা যেভাবে বিভিন্ন কোম্পানিকে লাইসেন্স দিচ্ছে, তাতে মনে হয় ফাইজারও একই কাজ করবে।

ওষুধের দামের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে মার্কের ওষুধের জন্য নির্ধারিত ৭০০ ডলারের চেয়ে অনেক কম দাম থাকবে ভারতের বাজারে। কারণ উৎপাদনের জন্য নয়, যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন কারণে এটি ব্যয়বহুল।

ভারতীয় কর্মকর্তা জানান, ভারতের বাজারে মলনুপিরাভিরের দাম হতে পারে প্রতি কোর্স দুই, তিন অথবা চার হাজার রুপি। পরে সেটি ৫০০, ৬০০ বা এক হাজার রুপিতে নেমে আসতে পারে।

প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য এরই মধ্যে মুখে খাওয়ার ক্যাপসুল ‘মলনুপিরাভির’ বাজারজাতকরণ শুরু করেছে বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি ফার্মাসিউটিক্যাল প্রতিষ্ঠান। গত সোমবার (৮ নভেম্বর) প্রথম প্রতিষ্ঠান হিসেবে এর অনুমোদন পায় বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড। এরপর অনুমোদন পায় স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস ও এসকেএফ ফার্মাসিউটিক্যালস। অপেক্ষায় রয়েছে আরও অন্তত সাতটি প্রতিষ্ঠান।

দেশের বাজারে ২০০ মিলিগ্রামের প্রতিটি মলনুপিরাভির ক্যাপসুলের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ৭০ টাকা। করোনায় আক্রান্ত রোগীরা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে এ ক্যাপসুল খেতে পারবেন।

চিকিৎসকরা বলছেন, মলনুপিরাভির ক্যাপসুলের ফুল কোর্স হবে পাঁচদিনে ৪০টি ক্যাপসুল। প্রতিদিন সকালে ও রাতে চারটি করে খেতে হবে আটটি ক্যাপসুল। সেই হিসেবে একজন রোগীর জন্য ফুল কোর্সের মলনুপিরাভির দাম পড়বে ২ হাজার ৮০০ টাকা।


একুশে সংবাদ/জা/তাশা