AB Bank
ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ জুন, ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

একাধিক উইকেট হারিয়েই নিজেদের চাপে ফেলেছি


Ekushey Sangbad
স্পোর্টস ডেস্ক
০৭:১৬ পিএম, ১ মে, ২০২৪
একাধিক উইকেট হারিয়েই নিজেদের চাপে ফেলেছি

মঙ্গলবার ১৭তম আইপিএলের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এবং লখনউ সুপার জায়ান্টস দল।ম্যাচে লখনউ দল মুম্বাইয়ের বিরুদ্ধে কার্যত সহজ জয় পেয়েছে। ফলে প্লে অফে যাওয়ার লড়াই আরও কঠিন হয়ে গিয়েছে মুম্বাইয়ের। তাদের আর চারটি ম্যাচ বাকি রয়েছে। এই চারটি ম্যাচ জেতার পাশাপাশি বেশ কিছু ফলাফল তাদের পক্ষে যেতে হবে, তাহলেই প্লে অফের দরজা খুলতে পারে রোহিত শর্মাদের কপালে। পাঁচ বারের চ্যাম্পিয়নদের জন্য যে প্লে অফের রাস্তাটা কঠিন, তা বিলক্ষণ জানেন অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া। তাই লখনউ ম্যাচ হেরে বেশ হতাশ ভারতের তারকা অলরাউন্ডার। ব্যাটিংয়ে টপ অর্ডারের ধসকেই তিনি এই ম‌্যাচ হারের জন্য সরাসরি দায়ী করেছেন।

হার্দিক জানিয়েছেন একানা স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে পরপর টপ অর্ডার ব্যাটারদের উইকেট হারিয়েই সমস্যায় পড়ে যায় দল। সেখান থেকে তার দল আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। টসে জিতে এদিন সুপার জায়ান্টসের অধিনায়ক কেএল রাহুল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে ব্যাট করতে পাঠান। পাওয়ারপ্লে শেষে মুম্বাইয়ে স্কোর ছিল চার উইকেট হারিয়ে মাত্র ২৮ রান। আর এই খারাপ শুরুর পরে আর সেই ভাবে ম্যাচে ফিরতেই পারেনি মুম্বাই। মার্কাস স্টোইনিস,নবীন উল হক এবং মহসিন খানের দুরন্ত বোলিংয়ে সমস্যাতে পড়েন মুম্বাইয়েয়ের ব্যাটাররা। রোহিত শর্মা ৪ রান, সূর্যকুমার যাদব ১০ রান, তিলক বর্মা ৭ রান এবং হার্দিক পান্ডিয়া শূন্য রান করে আউট হয়ে যান। ইশান কিষান ৩২ রান, টিম ডেভিড ৩৫ রান করেন এবং নেহাল ওয়াধেরা ৪৬ রান করে দলকে কিছুটা টানার চেষ্টা করেন। তবে দলকে কাঙ্ক্ষিত জযএনে দিতে পারেননি। 

ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিষয়টি নিয়ে বলতে গিয়ে হার্দিক পান্ডিয়া দাবি করেছেন, ‘পাওয়ারপ্লেতে একগাদা উইকেট হারিয়ে ফেলি আমরা। সত্যি বলতে এটাই আমাদেরকে ম্যাচে পিছিয়ে দেয়। এর পর কামব্যাক করাটা খুব কঠিন। যে সময়ে আমাদের রান করাটা খুব দরকার ছিল, উইকেট বাঁচানোর প্রয়োজন ছিল, সেই সময়েই আমরা উইকেট হারিয়ে ফেলি।’ 

এই মৌসুমে যেভাবে হাই স্কোরিং ম্যাচ হয়েছে, তাতে এই স্কোর যে অত্যন্ত খারাপ, সেটাও বলেছেন হার্দিক মতে, ‘সেরকম কোনও চাপ ছিল না। বল দেখে দেখে খেলতে হবে। বল অনুযায়ী শট খেলতে হবে। উইকেটটা এদিন ভালো ছিল। মারার মতন বল আমরা পেয়েও ছিলাম। তবে আমরা সুযোগ কাজে লাগাতে পারিনি। আমাদের এবারের মৌসুমটা অনেকটা সেই ভাবেই কেটেছে। আমি সব সময়ে এটা বিশ্বাস করি যে, মাঠে নামার সময় কোনও দিন আমার এনার্জি আপ থাকবে এবং কোন দিন ডাউন থাকবে। তবে লড়াইটা আমাদের চালিয়ে যেতে হবে। লড়াই সব সময়েই কঠিন হয়। এই ম্যাচে হারের মধ্যে দিয়েও আমাদের অনেক কিছু শেখার রয়েছে।’


একুশে সংবাদ/এস কে    

 

Link copied!