ঢাকা শনিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

শশুর জামাইয়ের দ্বন্দ্বে নিহত দুই, বিচারের দাবিতে মানবন্ধন


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি, নেত্রকোণা
০৪:০২ পিএম, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২
শশুর জামাইয়ের দ্বন্দ্বে নিহত দুই, বিচারের দাবিতে মানবন্ধন

নেত্রকোনার মদনে পারিবারিক কলহে রোববার রাতে মেয়ের জামাই  বাড়িতে  শশুরের হামলায় দুই জন নিহত হয়েছে।

 

প্রতিবেশী মাদ্রাসা শিক্ষক শফিকুল ইসলাম (৬০) ঝগড়া থামাতে গিয়ে ঘটনাস্থলে নিহত হয়। অপর জন মিনারা আক্তার (৫০) যখম হয়ে একদিন পর সোমবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যায়।

 

গত রবিবার রাতে উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নে রুদ্রশ্রী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

 

হামলায় হত্যার ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে ফাঁসির দাবিতে তিয়শ্রী ফতেপুর সড়কে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেন এলাকাবাসী।

 

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রুদ্রশ্রী গ্রামে ইমাম ওলামা পরিষদ ফতেপুর ইউনিয়ন শাখার উদ্যোগে  দুপুরে  ঘন্টা ব্যাপী এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

 

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মাওলানা দেওয়ান মাসুম ইয়ার চৌধুরী, আজিজুল হক,ফতেপুর ইউনিয়নের ওলামা পরিষদের সভাপতি আব্দুল বাছির,  তামিম আহম্মদ, মুফতি মোজাম্মেল হক সালেমী, সুলাইমান আহম্মদ, মুফতি হেলাল উদ্দীন প্রমূখ।

 

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, রুদ্রশ্রী গ্রামের এলাল উদ্দীনের ছেলে মোবারকের সাথে ফতেপুর মড়লপাড়া গ্রামের আব্দুল মান্নানের মেয়ে মুন্নি আক্তারের বিয়ে হয়। তাদের সংসারে রবিবার পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। এরই প্রেক্ষিতে মুন্নি আক্তার বাবার বাড়ি চলে গিয়ে স্বামী ও শাশুরীর কথা বাবার কাছে নালিশ জানায়।

 

এতে মুন্নির বাবা আব্দুল মান্নান ক্ষিপ্ত হয়ে তার লোকজন নিয়ে ধারালো অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মেয়ের জামাইকে মারতে আসে। এ ঘটনা ঠেকাতে এসে প্রতিবেশী শফিকুল ইসলাম ছুরির আঘাতে যখম হন। পরে মদন হাসপাতালে নিয়ে যাবার পথে তিনি মারা যান। জামাই মোবারক হোসেনের নানী মিনারা আক্তার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান।  

 

বর্তমানে  আহত ইব্রাহীম (৮০), মোবারক হোসেন (২৫), মাসুম মিয়া (১২), অবস্থা আশঙ্কাজনক অবস্থায়  ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

 

এ ছাড়া জুনাঈদ (১৫), রিনা আক্তার (৩৮) ও কাদির মিয়া (১৩) মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  চিকিৎসাধীন রয়েছে।

 

মদন থানার ওসি মোহাম্মদ ফেরদৌস আলম জানান, রুদ্রশ্রী গ্রামে হামলায় দুইজন নিহত হওয়ার ঘটনায় এলাকাবাসীর মানববন্ধন ও ভিক্ষোভ মিছিলে আমি জরিতদের দ্রুত গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছি। বর্তমানে পরিস্থতি শান্ত আছে।

 

একুশে সংবাদ/সা.খা/এসএপি