AB Bank
ঢাকা শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩, ৮ আশ্বিন ১৪৩০

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

জোকারের বুকের মাঝে চিপ লাগানো কেন?


Ekushey Sangbad
স্পোর্টস ডেস্ক
০৭:২৮ পিএম, ৩ জুন, ২০২৩
জোকারের বুকের মাঝে চিপ লাগানো কেন?

নোভক জোকোভিচকে ঘিরে হঠাৎ-ই উত্তাল ফরাসি ওপেনের মঞ্চ। তিনি এই বার নিঃসন্দেহে ফরাসি ওপেন চ্যাম্পিয়ন হওয়ার বড় দাবীদার। কিন্তু জোকারের খেলার জন্য নয়, অন্য এক বিস্ময়কর কারণে তাঁকে নিয়ে শুরু হয়েছে জোর চর্চা।

 

শুক্রবার ফিলিপ স্যাঁতিয়ে কোর্টে দাভিদোভিচ ফোকিনার বিরুদ্ধে খেলতে নামার ২৪ ঘণ্টা আগে এক অদ্ভূত কারণেই জোকোভিচকে নিয়ে হইহই পড়ে গিয়েছে। সার্বিয়ান তারকা বুকে এক অদ্ভূত যন্ত্র লাগিয়ে কোর্টে খেলতে নামছেন। সেটি অনেকটা চিপের মতো দেখতে। সেটা আবার টেপ দিয়ে বুকের ঠিক মাঝখানে লাগানো থাকছে। সেই যন্ত্রটি আসলে কী? ম্যাচ চলাকালীন সেই চিপ বদলাতেও দেখা গিয়েছে জোকারকে। আর এটা নিয়েই শুরু হয়েছে চর্চা।

 

চলতি ফরাসি ওপেনে মার্টন ফুচসোভিকসের বিরুদ্ধে ম্যাচ চলাকালীন জোকোভিচের বুকের ওই চিপ ধরা পড়ে ক্যামেরায়। তার পর থেকেই সকলের নজরে আসে বিষয়টি। এবং জল্পনার পারদ চড়তে শুরু করে।

 

এমন কী সেই ম্যাচের মাঝেই এক বল গার্লকে দিয়ে একটি চিপ পাঠায় জোকোভিচের টিমের সদস্যরা। জোকার সেই চিপ খেলা চলাকালীন পাল্টেওছেন। এর পর সাংবাদিক সম্মেলনে এই নিয়ে জোকোভিচকে প্রশ্ন করা হলে, তিনি বলেন, ‘আমি যখন ছোট ছিলাম তখন আমি আয়রন ম্যানকে খুব বেশি পছন্দ করতাম। তাই আমি আয়রন ম্যানকে নকল করার চেষ্টা করেছি।’ তিনি যোগ করেছেন, ‘আমার টিম অবিশ্বাস্য ভাবে দক্ষ ন্যানো টেকনোলজি সরবারাহ করেছে। যাতে আমি কোর্টে সেরাটা দিতে পারি। যেটা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড় রহস্য।’

 

জল্পনা আরও বাড়িয়ে ইতালির এক সংস্থা টাও টেকনোলজিস জানিয়েছে, এই চিপ ন্যানো প্রযুক্তির ধারক। ওই সংস্থা এমনও দাবি করেছে যে, জকোভিচের সাফল্যের অন্যতম বড় গোপন অস্ত্র এই চিপ। এটি তাদেরপ তৈরি। এটিকে জীবন বদলে দেওয়ার যন্ত্র হিসেবেও দাবি করেছে তারা। সেই সংস্থা টুইটে লিখেছে, ‘আমরা টাও টেকনোলিজি একটি ইতালিভিত্তিক কোম্পানি। মানবস্বাস্থ্য ও এর কল্যাণে উদ্ভাবনী ন্যানোটেকনোলজিক্যাল যন্ত্রাংশ তৈরি এবং পেটেন্ট করে থাকি।’

 

কোম্পানিটির ওয়েবসাইট অনুযায়ী, টাওপ্যাচ স্পোর্ট নামের ডিভাইসটি দুই স্তরের ন্যানোক্রিস্টাল ব্যবহার করে থাকে। যার মাধ্যমে শরীরের তাপ আলোতে রূপান্তরিত হয়। এই ডিভাইস মানব শরীরে প্রায় ১৯০টি সঙ্কেত পাঠায়, যার মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয় ভাবে ওই মানুষের শরীরের ভারসাম্য ঠিক থাকে।

 

ঠিক কী কারণে এমন যন্ত্র ব্যবহার করেন বা করছেন জোকার, সে ব্যাপারে অবশ্য ওই আয়রনম্যানের উদাহরণ দেওয়া ছাড়া বিস্তারিত কিছু বলেননি জোকোভিচ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফ এ ব্যাপারে জোকোভিচের দলের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও, কেউ এই নিয়ে কোনও কথা বলেনি।


তবে টাওপ্যাচের দাবি, তাদের যন্ত্রটি যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য এবং ওষুধ প্রশাসনের অনুমোদন পাওয়ার অপেক্ষায়। তবে টাওপ্যাচ ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের নীতিমালা অনুযায়ী ‘ক্লাস ওয়ান’ বা প্রথম শ্রেণির মেডিকেল যন্ত্র। ফলে এর ব্যবহার অন্তত নিরাপদ হবে।

 

এটা ব্যবহারে যে উপকারিতা পাওয়া যায়, তার মধ্যে আছে—এটা অঙ্গবিন্যাস, ভারসাম্য ও মসৃণ চলাচলকে উন্নতি করে, ক্রীড়াবিদের পারফরম্যান্সের সঙ্গে একটি নির্দিষ্ট দিকে নজর দেওয়ার সামর্থ্য (ফোকাস) বৃদ্ধি করে। এ ছাড়া এটি ধকল, উদ্বেগ এবং ফিরে ফিরে আসা ব্যথা কমায় বলেও জানানো হয়েছে। এমন কী ‘মাল্টিপল স্ক্লেরোসিস’ নামের অসুখের উপশম করে বলেও দাবি করেছে কোম্পানিটি।

 

একুশে সংবাদ.কম/সম   

Link copied!