AB Bank
ঢাকা সোমবার, ২৭ মে, ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

৫ মাস ধরে লোকালয়ে বানর, কর্তৃপক্ষকে জানালেও নেওয়া হচ্ছে না ব্যবস্থা


৫ মাস ধরে লোকালয়ে বানর, কর্তৃপক্ষকে জানালেও নেওয়া হচ্ছে না ব্যবস্থা

ময়মনসিংহের নান্দাইলের পল্লীতে জঙ্গলের গাছে, টিনের চালে এমনকি মাটিতে নেমে স্থানীয় বাজারে বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছে একটি বানর। গত ৫ মাস আগে আগমন ঘটা এই বানরটি দেখতে প্রতিদিন ভিড় জমাচ্ছে লোকজন। গাছে বা ঘরবাড়ির টিনের চালে বসে লোকজনের মুগ্ধতা উপভোগ করে বানরটি। তবে একে কেন্দ্র করে স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্কের কমতি নেই। স্থানীয়রা জানায়, গত বছরের নভেম্বর মাসে হঠাৎ করেই বানরটির নজর পড়ে উপজেলার বেতাগৈর ইউনিয়নের হাটশিরা এলাকার একটি গাছে।

 

স্থানীয়দের ধারণা, এই বাজারে প্রচুর কলা ও আনারস আসে ট্রাকে করে। সম্ভবত মধুপুর বন বা অন্য কোনো বনের বানরটি ওই ট্রাকে চড়ে বসে। পরে এই ট্রাকটির মালামাল নামালে সেখানে বানরটিও থেকে যায়। আর তখন থেকে এ বানরটি পাশের বাজারের বিভিন্ন ঘরের টিনের চালে বসে মাঝে মধ্যে মাটিতে নেমে খাবার খোঁজে। বানরের ভয়ে সন্ধ্যার পর অনেকেই বের হয় না। প্রয়োজনীয় খাবারের জন্য বানরটি অনেক সময় হিংস্র হয়ে ওঠে। এ ধরনের ঘটনায় জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯.এ কল করা ছাড়াও উপজেলা বনবিভাগকে জানালেও কর্তৃপক্ষ বানরটি উদ্ধারের কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলার বীরবেতাগৈর ইউনিয়নের হাটশিরা বাজারের গাছের ডালে বসে রুটি খাচ্ছে। কিছুক্ষণ আগে মাটিতে নেমে মানুষের দেওয়া রুটি কলা নিয়ে গেছে। বাজারের ব্যবসায়ী খোকা ও নাঈম জানান, প্রথমে বানরটি ছিল নাদুসনদুস ও তরতাজা।

এখন বানরটিকে অনেক কাহিল দেখা যাচ্ছে। প্রয়োজনীয় খাবার না পাওয়া ও ছোট ছোট শিশুদের অত্যাচারে বেকায়দায় রয়েছে বানরটি। উৎসুক অনেক শিশু আসছে এই বানর দেখতে। সামনে থেকে এভাবে তারা বানর দেখে খুব মজা পাচ্ছে। বানর নিচে নামবে এই জন্য তারা ঘণ্টার পর ঘণ্টা আপেক্ষা করে দোকান থেকে কিনে আনা বিস্কুট, কলা ও রুটি দিচ্ছে। আর এই লোভে বানরটি এখন মাটিতে নেমে আসে। বাজারের সভাপতি হেলাল উদ্দিন ভুইয়া বলেন,বানরটিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। অনেকবার তারা আসছি আসছি বললেও কখনো আসেনি।

ফোনে শুধু বলে ব্যাপারটি দেখছি। এক ধরনের গা ছাড়া ভাব। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নান্দাইল উপজেলা বন কর্মকর্তা হাদিউল ইসলাম বলেন,আমি বিষয়টি জানি। তবে এই মুহূর্তে আমার কিছুই করার নাই। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ লাগবে। ওই এলাকার লোকজন বানরটিকে কিছু না করলেই হয়। এমনিই চলে যাবে। বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে চাইলে ময়মনসিংহ বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আ,ন,ম আব্দুল ওয়াদুদের দুইটি মোবাইল নাম্বার ও অফিসের টিএনটি নম্বরে কল করলেও কেউ ফোন ধরেননি।
 

একুশে সংবাদ/এনএস

Link copied!