ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই, ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

শখ করে দিয়েছিলেন খামার, হলেন এখন সফল উদ্যোক্তা


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি,বাগেরহাট
০১:০৬ পিএম, ২৩ জুন, ২০২২
শখ করে দিয়েছিলেন  খামার, হলেন এখন সফল উদ্যোক্তা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামের সোহেল তালুকদারের স্ত্রী মারুফা আকতার পেশায় গৃহীনি হলেও দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে গরুর খামার করে আয় করছেন লাখ লাখ টাকা। এগ্রোফার্ম নামে গরু মোটাতাজাকরন খামার করে পেয়েছেন সফলতা। শখের বসে গরু মোটাতাজাকরণ খামার করলেও এখন তিনি ওই এলাকার সফল একজন খামারি ও উদ্যোক্তা।

২০১৭ সালে গরু মোটাতাজা করণের ওপর খামার করার স্বপ্ন দেখেন। পরে কয়েকটি গরু দিয়ে খামার শুরু করেন। পরে ধীরে ধীরে খামারের পরিধি বাড়তে থাকে। বর্তমানে তার খামারে ফ্রিজিয়ান, শাহিওয়াল, দেশি ক্রস ও ব্রাহামা জাতের ৬০ টি গরু রয়েছে। কোরবানীর ঈদের সময় গরু বিক্রি করে ১৫/১৭লাখ টাকা আয় করেন তিনি। স্থায়ীভাবে খুলনায় বসবাস করলেও মাঝে মাঝে এসে গোলবুনিয়া এগ্রোফার্ম দেখভাল করেন। তার অনুপস্থিতিতে কর্মচারিরা খামারটি দেখভাল করেন। তার কাজে উৎসাহী হয়ে আত্মকর্মী হয়ে উঠছে আশেপাশের অনেকে। এলাকায় তিনি এখন সফল খামারি হিসেবে বেশ পরিচিতি লাভ করেছেন।

খামারের মালিক মারুফা আক্তার বলেন, প্রতি বছর গ্রাম থেকে দেশী জাতের ২০/২৫ টা করে গরু কিনে খামার বড় করার চেষ্টা করি। কোরবানির ঈদে গরু বিক্রি করে ১৫/১৭ লাখ টাকা আয় করি। এবারের কোরবানীর ঈদের বাজার ভাল হলে খামারের সকল গরু প্রায় ৮০ লাখ টাকায় বিক্রি করতে পারব।

খামারের ম্যানেজার মোঃ মাসুম হাওলাদার  বলেন, প্রাকৃতিক ঘাস, খড়-কুটা দিয়েই দেশীয় পদ্ধতিতে গরুগুলো লালন-পালন করা হচ্ছে। গরুগুলোকে মোটাতাজাকরণে কোন ইনজেকশন প্রয়োগ করা হয় না। বর্তমানে খামারে ৬০ টি গরু আছে। যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ৮০ লাখ টাকা।
 

 

 

একুশে সংবাদ/মা.বি/এস.আই