ঢাকা রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

নিম্নমানের পেঁয়াজ ও সূর্যমুখী বীজের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০৭:১২ পিএম, ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩
নিম্নমানের পেঁয়াজ ও সূর্যমুখী বীজের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা

বিনামূল্যে কৃষকদের মধ্যে সরবরাহ করা পেঁয়াজ বীজ ও সূর্যমুখীর বীজ নিন্মমানের হওয়ায় কৃষকরা প্রতারিত হচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গরমকালের বীজের পরিবর্তে শীতকালিন নিন্মমানের বীজ সরবরাহে ৮০শতাংশ পেঁয়াজ বীজে চারা গজায়নি। এব্যাপারে কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির কাছে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পক্ষ থেকে অভিযোগ আসার পর কমিটি খতিয়ে দেখার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

 

সংসদীয় কমিটিতে উত্থাপিত অভিযোগে বলা হয়েছে, সম্প্রতি সরকার বিনামূল্যে কৃষকদের মধ্যে পেঁয়াজ বীজ সরবরাহ করেছে। এই বীজ সততা বীজ ভান্ডার ভারত থেকে আমদানী করে সরকারকে সরবরাহ করেছে। কিন্তু এই প্রতিষ্ঠানটি গরমকালের বীজের পরিবর্তে শীতকালিন নিন্মমানের বীজ সরবরাহের কারণে ৮০ শতাংশ বীজে চারা হয়নি।

 

বিএডিসির কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা সরকারকে ভুল বুঝিয়ে উন্নতমানের বীজ না কিনে ভারতীয় নিন্মমানের বীজ কিনে প্রণোদনা হিসাবে কৃষকদের মাঝে সরবরাহ করেছে। প্রতিটি ইউনিয়নে ২০ কেজি করে বীজ প্রণোদনা হিসাবে কৃষকদের দেওয়া হয়। এ বীজের কারণে ক্ষতির মুখে পড়েছেন স্থানীয় পেঁয়াজ বীজ চাষিরাও। এনিয়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

 

এছাড়া এক মাস আগে সুমন বীজ ভান্ডার থেকে ৬০ মেট্রিক টন সূর্যমুখীর বীজ সরবরাহ করা হয়েছে। সূর্যমুখী হাইসান-৩৩ ব্র্যঠশ এবং হাইসান-৩৬ এসিআই কোম্পানীর নামে নিবন্ধন নেওয়া। সরবরাহকারি প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় দুটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ৫ টন করে মোট ১০ টন বীজ কিনে বাকি ৫০টন বীজ বেনামে ভারত থেকে তেল তৈরি করার সুর্যমুখী কিনে বীজ হিসেবে সরবরাহ করেছে ঐ দুই নামে। ভারত থেকে আনা এই বীজের বেশির ভাগেরই চারা গজানোর ক্ষমতা নেই। প্রতিষ্ঠানটি সূর্যমুখী বীজ সরবরাহ করলেও তাদের এই বীজের কোন নিবন্ধন নেই। তাই তারা সরাসরি বেনামে সরবরাহ করেছে।

 

চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের সাবেক কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান কৃষি অফিসে চাপ প্রয়োগ করে বিল পাওয়ার জন্য ভুয়া রিপোর্ট প্রদান করেছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি ভুট্টা বীজও বেনামে ভারত থেকে এনে দিয়েছে, যার চারা গজায় মাত্র ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ। বাকি গুলো নষ্ঠ হয়ে গেছে।

 

এবিষয়ে কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মো. কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্থ হবে, এটা কোন ভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। কমিটির পরবর্তী বৈঠকে অভিযোগটি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

 

একুশে সংবাদ.কম/আ.জা.প্র/জাহাঙ্গীর