ঢাকা শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০২২, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

ভাই ও ভাবীকে এলোপাতারি কুপিয়ে জখম


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি,ফরিদপুর
০৭:১৭ পিএম, ৭ অক্টোবর, ২০২২
ভাই ও ভাবীকে এলোপাতারি কুপিয়ে জখম

ফরিদপুরের চরভদ্রাসন উপজেলায় জমিসংক্রান্ত বিরোধের কারনে ভাই ও ভাবীকে কোদাল দিয়ে এলোপাতারি কুপিয়ে মারত্মক জখম করার ঘটনা ঘটেছে।

 

শুক্রবার( ৭ অক্টোবর) সকাল ৮ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের মধ্য বিএসডাঙ্গী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

 

স্থানীয়দের বরাত জানা যায়, মৃত হাসেম তালুকদারের ছেলে মো: সরোয়ার তালুকদার(৫৬) এবং তার স্ত্রী শাহানাজ পারভীন(৪০)কে কোদাল দিয়ে এলোপাতারি কোপাতে থাকে তাদেরই ভাই রাজু তালুকদার(৩৫)। এ সময় স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাদেরকে চরভদ্রাসন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এদের মধ্যে সরোয়ার হোসেন মাথার জখম বেশি গুরতর হওয়ায় তাকে ও তার স্ত্রীকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।

 

ঘটনার বিষয়ে শাহানাজ পারভীন বলেন ‘ঘটনার দিন সকালে তাদের বসত ঘরের সামনে তার দেবর রাজু তালুকদার(৩৫) কোদাল দিয়ে মাটি খুরে গর্ত করতে থাকে।ঘরের সামনে গর্ত করতে সরোয়ার হোসেন নিষেধ করলে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে হাতে থাকা কোদাল দিয়ে রাজু সরোয়ার তালুকদারকে কোপাতে থাকে।

 

এ সময় আমি আমার স্বামীকে রক্ষা করতে এগিয়ে এলে সাইদ তালুকদার (৫০) ও রাজু মিলে আমাকেও কিল ঘুসি ও কুপিয়ে মারাত্মক ভাবে আহত করে।

 

এ ঘটনার ব্যাপারে রাজুর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া সম্ভব হয়নি।

 

তবে মুঠোফেনে সাইদ তালুকদার তাদের মধ্যে জমিজমার বিরোধের কথা স্বীকার করেন। তবে সরোয়ারকে কোপনোর কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন সকালের খাবার খাচ্ছিলেন তিনি এর মধ্যে হইচই শুনে এগিয়ে দেখেন সরোয়ারকে আহত করা হয়েছে।

 

উক্ত ঘটনার ব্যাপারে সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো.আজাদ খান বলেন ‘সরোয়ার ও সাঈদের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। বিরোধ নিরসনে কয়েক ধাপে শালিস হয়েছে।আজ যে ঘটনা ঘটেছে এটা কিছুতেই কাম্য নয়’।

 

এ বিষয়ে চরভদ্রাসন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা.ঋতু সারিন বলেন, সকালে দুইজন চিকিৎসার জন্য এসেছিলেন। একজনের মাথার ক্ষত বেশ গুরতর থাকায় রক্ত পরা বন্ধ করার জন্য প্রাথমিক ভাবে ব্যান্ডেজ করে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে ফরিদপুরে রেফার্ড করা হয়েছে।

 

চরভদ্রাসন থানা অফিসার ইনচার্জ মিন্টু মন্ডল জানান, মারামারির ঘটনা শুনে তিনি পুলিশ পাঠিয়েছি।আহতরা চিকিৎসার জন্য ফরিদপুরে গিয়েছে।এ বিষয়ে এখনো কেউ অভিযোগ করেনি।অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

একুশে সংবাদ/না.হা.নি/এসএপি