AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

শুভ জন্মদিন বিপন্ন মানবতার বাতিঘর


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
১২:২৫ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
শুভ জন্মদিন বিপন্ন মানবতার বাতিঘর

কিছু বাতিঘর সর্বদা আলো ছড়ায়, ঝড় বৃষ্টির রাতে শত প্রতিকূলতার মাঝেও ঠায় দাঁড়িয়ে থাকে যেন এক অবিচল স্থির স্তম্ভের মতো। 

 

আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা তেমনই একজন, যিনি আজ ১৬ কোটি বাঙালির অনুপ্রেরণার উৎস, যিনি এই দেশে আস্থা, স্থিরতা আর শত বাঁধাতে মাথা উঁচু করে বাঁচতে শেখান সকলকে। দেশের প্রতি তার ভালোবাসা যেন স্বচ্ছ আয়নার মতো যেখানে দেশের প্রতি তার দায়িত্ব এবং এক নির্ভেজাল ভালোবাসাই ফুটে ওঠে। 

 

একজন হাসু থেকে একজন প্রতিশ্রুতিশীল কন্যা, একজন জননেত্রী, একজন দেশপ্রেমিক তথা সর্বোপরি আপামর জনসাধারণের প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠবার যে ইতিহাসটি তিনি তৈরি করেছেন তা শুধু অনুকরণীয়ই নয়, বিরলও বটে। আজ আমাদের ভালবাসার প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন। শুভ জন্মদিন, হে প্রেরণার বাতিঘর।

 

আজ এই দিনে তাই রবীন্দ্রনাথের এই লাইনগুলো উৎসর্গ করতে চাই প্রিয় নেত্রীকে- “তোমার কী‌র্তির চে‌য়ে তু‌মি যে মহৎ, তাই তব জীব‌নের রথ, পশ্চা‌তে ফে‌লিয়া যায় কী‌র্তি‌রে তোমার বারংবার।”

 

আমাদের প্রিয় নেত্রী এক মহীরুহ হিসেবে নিজেকে এমন এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছেন, যে উচ্চতার তার প্রতিদ্বন্দ্বী তিনি শুধু নিজেই। পৃথিবীর ইতিহাসে শেখ হাসিনা এখন এক জ্বলজ্বল নক্ষত্র যার সুনাম এবং প্রজ্ঞাকে শুধু অনুভব করা যায়। কিন্তু এই পথটি এত সহজ ছিল না।

 

যিনি আজ ১৬ কোটি মানুষের অনুপ্রেরণার উৎস, তাকেও পাড়ি দিতে হয়েছে এক ভীষণ বন্ধুর পথ। ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট পরিবারের সকলকে হারিয়ে একজন এতিম হয়ে এক কষ্টের সমুদ্র সাঁতরে আজ তিনি পরিণত। কত শত বার শুধু তাকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে তার হয়ত এদেশের প্রতিটি লোকের জানা ইতিহাস।

 

কিন্তু যাকে সর্বশক্তিমান রক্ষা করেন, তাকে মারবে এমন শক্তি কার? সকল রক্তচক্ষুকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে আজও তিনি চিরতরুণ, চিরনতুন, চির উন্নত এক প্রাণ। আজ তাই তার জন্মদিনের এই শুভলগ্নে যেন গেয়ে উঠতে ইচ্ছে করে।

 

সত্যি তিনি এক হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালা হয়ে বিরোধীদের যত কলুষ চেতনাকে একা হাতেই দমন করতে পারদর্শী হয়ে উঠেছেন আজ ধীরে ধীরে। এক মহীরুহ পিতার কন্যা থেকে ধীরে ধীরে দেশের সকলের আস্থাভাজন হয়ত এভাবেই হতে হয়। দেশে যখন সিরিজ বোমা হামলা, গোপন জঙ্গি তৎপরতায় সকলে উৎকন্ঠিত ঠিক তখনই তার যোগ্য এবং বলিষ্ঠ আচরণে জঙ্গিদের তথা জঙ্গিবাদের ভিত কেঁপে উঠেছিল।

 

মৌলবাদ, জঙ্গিবাদ এবং সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় শেখ হাসিনা তাই সবসময় আপোষহীন। ২০০৯ সালে সরকার পরিচালনায় দায়িত্ব নিয়ে তিনি ১৯৭১ সালে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের জন্য আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল স্থাপনের করেন এবং আইন প্রণয়ন করে স্থাপিত ট্রাইবুনাল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্ন করেন। আর এই অসাধ্য সাধন শুধু শেখ হাসিনার জন্যই সম্ভব হয়েছিল।

 

বিশ্বব্যাংক যখন পদ্মাসেতু প্রকল্প থেকে তাদের কাজ গুটিয়ে নিয়ে এক অনিশ্চয়তার জন্ম দিয়েছিল, তখন আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার একক নেতৃত্ব ও সাহসিকতায় পদ্মা সেতুর স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছেন। যা এখন বাস্তব, কোন স্বপ্ন নয়।

 

আজ পদ্মা সেতু পুরো বিশ্বের মানুষের কাছে দৃশ্যমান। যে সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেই স্বপ্নের রূপকার তারই কন্যা, বিপন্ন মানবতার বাতিঘর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জয়তু হে প্রধানমন্ত্রী।

 

লেখক: ডা এস এম বাদশা মিয়া, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও স্মৃতি পাঠাগার।

 

একুশে সংবাদ/এসএপি

Link copied!