ঢাকা রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১, ২৮ চৈত্র ১৪২৭

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

লকডাউনে টিসিবির পণ্য কিনতে দীর্ঘ লাইন


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
১২:৪৫ পিএম, ৫ এপ্রিল, ২০২১
লকডাউনে টিসিবির পণ্য কিনতে দীর্ঘ লাইন

একই সাথে লকডাউন আর আসন্ন রমজান উপলক্ষে রোজানির্ভর পণ্যসহ একাধিক পণ্যের দাম হুহু করে বেড়ে যাচ্ছে। দুই মাস আগে বেড়ে যাওয়া ছোলা, ডাল, চিনি, দুধ, মাছ ও সব ধরনের মাংস বাড়তি দরে বিক্রি হচ্ছে।

তবে চলতি মাসের ১ তারিখ থেকে সরকারি সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি'র) খোলাবাজারে দ্বিতীয় ধাপে পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। এর মধ্যে সোমবার (৫ এপ্রিল) থেকে শুরু হয়েছে সপ্তাহব্যাপী লকডাউন। ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে টিসিবি ট্রাকসেলে বাড়তি ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। বাড়তি পণ্যমূল্যের বাজারে কমে টিসিবির পণ্য কিনতে পেরে খুশি অধিকাংশ মানুষ।

টিসিবি ডিলাররা জানান, তারা আগে প্রতিদিন এক টন তেল বরাদ্দ পেতেন। লকডাউনের পরে তা ২০০ কেজি বেড়েছে। এছাড়া ১০০ কেজি বেড়ে ৮০০ কেজি করে চিনি বরাদ্দ পাচ্ছেন তারা। আর ৬০০ কেজি ডাল ও ৪০০ কেজি ছোলা পাচ্ছেন।

টিসিবি যেসব পণ্য বিক্রি করে এর মধ্যে তেল ও চিনির চাহিদা সবচেয়ে বেশি। এ কারণে ট্রাকসেল শুরুর অল্প সময়ের মধ্যে তেল ও চিনি ফুরিয়ে যায়। কাঙ্খিত পণ্য না কিনতে পেরে ফিরে যান অনেকে।

অন্যদিকে, দ্বিতীয় ধাপে পণ্যের দাম কিছুটা বাড়িয়েছে টিসিবি। এতে প্রতি কেজি তেলের দাম ১০ টাকা বেড়ে ১০০ টাকা হয়েছে। ডাল ও চিনির দাম ৫ টাকা আগের থেকে বেড়েছে। আর নতুন করে প্রতি কেজি ছোলার দাম ৫৫ টাকা ও খেজুরের দাম ৮০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে টিসিবির খেজুর এখনও বিক্রি শুরু হয়নি।

জানা গেছে, বর্তমানে টিসিবির ৫০০টি ট্রাকসেলে পণ্য বিক্রি হচ্ছে সারাদেশে । এর মধ্যে রাজধানীতে পণ্য বিক্রি হচ্ছে ১০০ ট্রাকে। এসব পণ্য ১ এপ্রিল থেকে ই-কমার্সের মাধ্যমেও বিক্রি শুরু হয়েছে। শুক্রবার বাদে প্রতিদিন এ টিসিবির এ বিক্রয় কার্যক্রম চলবে।

টিসিবি জানিয়েছে, ১ এপ্রিল থেকে ট্রাকসেলে একজন ক্রেতা দিনে ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ ৪ কেজি চিনি, ৫৫ টাকা কেজি দরে ২ কেজি মসুর ডাল, ১০০ টাকা দরে ৫ লিটার সয়াবিন তেল এবং ২০ টাকা দরে ৫ কেজি পেঁয়াজ কিনতে পারছেন। এছাড়া ২ কেজি ছোলা ৫৫ টাকা দরে এবং রমজানের প্রথম দিন থেকে এক কেজি খেজুর ৮০ টাকা দরে পাবেন।

টিসিবি সর্বশেষ তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, গত এক বছর ধরে বিভিন্ন পণ্যের দাম বাড়ছে। তবে গত দুই মাসে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে রোজা সংশ্লিষ্ট পণ্যের দাম। টিসিবির তথ্যমতে, রাজধানীর খুচরা বাজারে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রতি কেজি চাল ৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। অ্যাংকর ডাল ১২ দশমিক ৫০ শতাংশ, ভোজ্যতেল সর্বোচ্চ ৪৩ দশমিক ৯২ শতাংশ, চিনি ২ দশমিক ২২ শতাংশ, প্রতি কেজি প্যাকেটজাত গুঁড়া দুধ ৮ দশমিক ২৫ শতাংশ বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। পাশাপাশি প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি গত বছর একই সময়ের তুলনায় ৪৭ দশমিক ৬২ ও দেশি মুরগি ৮ দশমিক ২৮ শতাংশ, হলুদ ১৫ দশমিক ৬৩ শতাংশ, গরুর মাংস শূন্য দশমিক ৮৭ শতাংশ বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে।


একুশে সংবাদ/জা/আ