AB Bank
ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

বাবার পথ অনুসরন করে স্মার্ট উপজেলা গড়তে চান আরমান সরকার


Ekushey Sangbad
রেজোয়ানুল হক রিজু, ডিআইইউ
১২:১৩ পিএম, ২২ এপ্রিল, ২০২৪
বাবার পথ অনুসরন করে স্মার্ট উপজেলা গড়তে চান আরমান সরকার

আসন্ন  উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দিনাজপুর জেলার কাহারোল উপজেলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা পরিষদের  সাবেক চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মালেক সরকারের পুত্র  আরমান সরকার। যিনি দিনাজপুর জেলা পরিষদের সদস্য, সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড দিনাজপুর জেলা শাখা, সাবেক বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কাহারোল উপজেলা শাখা ও সাবেক আহ্বায়ক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কাহারোল উপজেলা শাখা। নির্বাচিত হলে পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও জনগণকে সাথে নিয়ে একটি স্মার্ট উপজেলায় পরিণত করতে চান। 

২১ মে দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনয়ন পত্র দাখিলের মাধ্যমে তিনি এই ঘোষণা দেন। এছাড়াও তিনি তার অঙ্গীকারনামা প্রকাশ করেছেন যেখানে কাহারোল উপজেলাকে ডিজিটাল উপজেলা হিসেবে সাজাতে চান। কাহারোল বাজারকে যানজোট মুক্ত করার জন্য দুটি বাইপাস রাস্তা করতে চান।  কাহারোল বাজারে স্থায়ী বাসষ্ট্যান্ড, টেম্পু ষ্ট্যান্ড, অটো ষ্ট্যান্ড ও ভ্যান ষ্ট্যান্ড করতে চান। কাহারোল উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ বাজারগুলোর চুরি ঠেকাতে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনতে চান। কাহারোল উপজেলার স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার মান উন্নয়ন করার লক্ষ্যে অবহেলিত বিল্ডিংগুলো সংস্কার করতে চান। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মসজিদ, মন্দির, গীর্জা, শ্মশান ঘাট, কবরস্থান সুন্দরভাবে সংস্কার করতে চান।

বেকার ছেলে-মেয়েদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে চান। কাহারোল উপজেলার যেসব শ্মশান ঘাটে ৫ থেকে ১০ কিলোমিটার দুর থেকে লাশ আনা হয় সেসব শ্মশান ঘাটে লাশ পরিবহনবাহী পিকআপের ব্যবস্থা করতে চান। কাহারোল উপজেলার হাসপাতাল ও কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর চিকিৎসারমান উন্নয়নের ব্যবস্থা করতে চান। কাহারোল উপজেলার আমতলা মোড় ও দশমাইল মোড়কে আধুনিকতার আওতায় সাজাতে চান।

সরজমিনে দেখা যায়, কাহারোল উপজেলায় ছয়টি ইউনিয়নে এই তরুণ প্রার্থী দিনরাত এক করে কখনো ছুটে যাচ্ছেন কখনো মসজিদে আবার মন্দিরে। হরিবাসর থেকে শ্মশানঘাট,  ওয়াজ-মাহফিল থেকে জানাযা সব জায়গায় ছুটে যাচ্ছেন। উপজেলায় যেকোন দুর্ঘটনা ঘটলে সর্বপ্রথম গিয়ে হাজির হচ্ছেন। বিশেষত খেটে খাওয়া ও দিনমজুর মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়াচ্ছেন। হাসপাতাল অসুস্থ ব্যক্তিদের দেখতে ছুটে যাচ্ছেন। সামাজিক নানান অনুষ্ঠানে দেখা যাচ্ছে তার সরব উপস্থিতি। 

ইউনিয়নের বিভিন্ন জনগণের সাথে কথা বলে জানা যায়,  এই তরুণ প্রার্থী আরমান সরকার শুধু নির্বাচনকেন্দ্রিক নয় তার পিতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মালেক সরকার জীবিত থাকা অবস্থায় পিতার সাথে একযোগে উপজেলার সকল স্তরের মানুষের যেকোনো প্রয়োজনে এগিয়ে আসতেন।

উপজেলার বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে ও সামাজিক নানান কার্যক্রমে বিগত বছরগুলোতে এই প্রার্থী বর্তমান সময়ের মতো একইভাবে নিজেকে জড়িয়ে রেখেছেন।

আরও জানা যায়,  করোনা ও  প্রাকৃতিক নানান দুর্যোগের সময়  এই তরুন প্রার্থী আরমান সরকার উপজেলার মানুষের ঘরে ঘরে প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি পৌঁছে দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। 

একুশে সংবাদ/এস কে 

Link copied!