ঢাকা রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

"শরতের স্নিগ্ধতায় মুখোরিত জবির অর্থনীতি বিভাগ "


Ekushey Sangbad
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
০৪:৩৫ পিএম, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২

 

"স্নিগ্ধ শরৎ, তোমার বন্দনায় উচ্ছ্বসিত আজ অর্থনীতি"- এই স্লোগানকে ধারন করে ইকোনোমিকস কালচারাল ক্লাব আয়োজন করেছে "শরৎ উৎসব-১৪২৯"।

 

ইকোনোমিকস কালচারাল ক্লাবের মডারেটর ডক্টর মুনিরা সুলতানার সার্বিক তত্ত্বাবধানে অল্প বাজেটের মধ‍্যে খুব সুন্দরভাবে উৎসবটি উদযাপন করা হয়। শরতের কাশফুল, এসময়ের আকাশের নীল সাদা মেঘের দৃশ্য ফুটিয়ে তুলে অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থীরা তাদের মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যম।

 

ইকোনোমিকস কালচারাল ক্লাবের সভাপতি সাঈফা সামসাদ পোর্শিয়া এর বক্তব্যে ফুটে উঠেছে কীভাবে পরীক্ষা, ক্লাস  থাকা সত্ত্বেও খুব অল্প সময়ের প্রস্তুতিতে তারা এই উৎসব অনুষ্ঠান পালন করেন। তিনি মনে করেন, এই শরৎ উৎসব উদযাপন অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থীদের অর্থনৈতিক জ্ঞানকে আরো প্রসারিত করবে। অল্প বাজেটে অর্থনীতির সুযোগ ব‍্যয়কে কাছে লাগিয়ে কীভাবে সর্বোচ্চ লক্ষ্যে পৌঁছনো যায় তা উপলব্ধি করতে শিখিয়েছে।

 

তিনি আরো বলেন,"Resource allocation is the process of assigning and managing assets in a manner that supports an organizations strategic planning goals.That means it involves balancing competing needs and priorities,and determining the best course of action to maximize the use of limited resources and get the best return on investment."

 

অর্থাৎ কীভাবে অল্প সম্পদের মাধ‍্যেও সর্বোচ্চ লক্ষ্যে পৌঁছনো যায় এটিই ফুটে উঠে। এছাড়াও তিনি আরো বলেন, করোনার জন‍্য কোনো উৎসব পালিত হয়নি গত দুই বছরে। শেষ উৎসব হয় ২০২০ সালে ফাল্গুনের উৎসব। কমিটির সভাপতি হিসাবে তিনি বলেন, কমিটির প্রতিটি সদস্যের কাজের সহযোগিতা তাকে আরো অনুপ্রাণিত করেছে। এছাড়াও তিনি আরো নতুন মুখ পেয়েছেন বলে জানান।

 

সাধারণ সম্পাদক মো. রওনাকুল ইসলাম এর বক্তব্যে জানা যায় যে, শরৎ উৎসব অর্থনীতি বিভাগে প্রথম হয়েছিল ২০১৩ সালে। এরপর আর হয়নি। এবছর নতুন আঙ্গিকে শরৎ ঋতুকে ফুটিয়ে তোলা হয় এই উৎসব উদযাপন এর মাধ্যমে। বর্ষার শেষে মেঘ আর কাশফুলের সৌন্দর্যে মুখরিত হয় শরত। এ ঋতু বাঙালির জীবনে নিয়ে আসে মনোমুগ্ধকর স্নিগ্ধতা। সেই সুন্দর সৌন্দর্যকে আরো ব‍্যাপকভাবে প্রকাশের লক্ষ্যেই তাদের এই উৎসব উদযাপন।

 

তিনি বলেন, ছাত্রকল‍্যাণ সমিতির পরিচালক আইনুল ইসলাম স‍্যার প্রথম থেকেই তাদের সাহস যুগিয়ে গিয়েছেন। আইনুল ইসলাম স‍্যারের ইচ্ছা কেবল বিভাগের মধ‍্যে আবদ্ধ না থেকে  পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ে শরৎ উৎসব একযোগে উদযাপন করা। এটি বাঙালির ষড়ঋতুর ঐতিহ্যের প্রতীক। বাঙালির জীবনে প্রতিটি ক্ষেত্রে ষড়ঋতুর প্রভাব অপরিসীম। বাঙালি তার বুদ্ধি,বিবেচনা প্রাকৃতির সৌন্দর্যে ভরপুর। বাঙালির বাঙালিয়ানা প্রকাশ পায় এই প্রত‍্যেকটি ঋতুর সৌন্দর্যে।

 

এই উৎসব উদযাপনের মাধ্যমে  জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ‍্যে ফুটে উঠেছে বাঙালির ষড়ঋতুর সৌন্দর্যকে ধরে রাখার এক তীব্র আকাঙ্ক্ষা। নতুন প্রজন্ম বিশ্বের কাছে আরো সুন্দর করে ফুটিয়ে তুলতে চায় বাঙালির ষড়ঋতুর সৌন্দর্য,ধারন করতে চায় বাঙালির ঐতিহ্যকে।

 

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের  ছাত্রকল্যাণ সমিতি পরিচালক অধ্যাপক জনাব আইনুল ইসলাম, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক: অধ্যাপক জনাব লুতফর রহমান সরকার, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ডিন ও অর্থনীতি বিভাগের জনাব অধ্যাপক ড: ইলিয়াস হোসেন।

 

আরও উপস্থিত ছিলেন অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জনাব আজম হোসেন ও বিভাগের অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

সার্বিক পরিচালনায় : কালচারাল ক্লাভ সভাপতি সাইফা সামসাদ পর্শিয়া, সাধারণ সম্পাদক: মো: রওনাকুল ইসলাম,ভাইস প্রেসিডেন্ট সুমাইয়া হোসেন।

 

একুশে সংবাদ.কম/আ.ই.জা.হা