ঢাকা শনিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ৩০ আশ্বিন ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

কফি টেবিল বুকের ডিজিটাল ভার্সনের মোড়ক উন্মোচন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
০৪:১৮ পিএম, ৩১ জুলাই, ২০২১
কফি টেবিল বুকের ডিজিটাল ভার্সনের মোড়ক উন্মোচন করলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

বাঙালির স্বাধীনতা ও অধিকার আদায়ের যুদ্ধে বিশ্ব জনমত গঠন, আর্থিক সহায়তাদান এবং ভারতের আশ্রয় নেওয়া কোটি শরনার্থীদের খাদ্য, চিকিৎসার জন্য ঐতিহাসিক ‘কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ অবলম্বনে একটি কফি টেবিল বুক “দ্য কান্ট্রি দ্যাট লিভড, 50 ইয়ার্স অফ ফ্রিডম এন্ড দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ” এর ডিজিটাল ভার্সনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক, এমপি। 

শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১ সকালে উক্ত বইয়ের ডিজিটাল ভার্সনের মোড়ক উন্মোচন বিষয়ক এই অনুষ্ঠানটি ভার্চুয়ালি আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে মাননীয় প্রতিমন্ত্রী গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ‘কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ এর ৫০ বছর উপলক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আইডিয়া প্রকল্প আয়োজিত গ্রন্থটির প্রকাশনা অনুষ্ঠানে ডিজিটাল প্লাটফর্মে সংযুক্ত হয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা বিনির্মাণে সকলকে সাংস্কৃতিক বিপ্লবে অংশগ্রহণের আহ্বান জানান মাননীয় প্রতিমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, একটি সাংস্কৃতিক বিপ্লবের মাধ্যমেই গড়ে উঠতে পারে একটি অসাম্প্রদায়িক উদার গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ। পলক বলেন, বঙ্গবন্ধুর ডাকে দীর্ঘ সংগ্রাম শুধু স্বাধীনতা অর্জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল না। এর লক্ষ্য ছিল অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক স্বাধীনতা অর্জন। কিন্তু বঙ্গবন্ধু অর্থনৈতিক স্বাধীনতা অর্জনের জন্য সুপরিকল্পিত অর্থনৈতিক কার্যক্রম শুরু করেছিলেন। 

একটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিনির্ভর বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য নানা উদ্যোগ গ্রহণ ও কার্যক্রমের বাস্তবায়ন করছিলেন। বাংলাদেশকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির একটি শক্ত ভিতের ওপর দাঁড় করিয়েছিলেন । কিন্তু ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হলে দীর্ঘ ২১ বছর বাংলাদেশের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির পথে পথ চলা থেমে যায়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর অসামাপ্ত কাজের বাস্তবায়ন করছেন। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্যাটেলাইট যুগে প্রবেশে বিভিন্ন উদ্যোগের বাস্তবায়ন করেছিলেন। তার সুযোগ্য কন্যা ৪৩ বছর পর বঙ্গবন্ধুর নামে মহাকাশে স্যাটেলাইট প্রেরণ করে তাঁর আকাঙ্ক্ষরই বাস্তবয়ন করেন।

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী বলেন ''কনসার্ট ফর বাংলাদেশ'' শুধু বাংলাদেশেরই নয় সারা বিশ্বে নির্যাতিত মানুষের কণ্ঠস্বর হয়ে পণ্ডিত রবিশঙ্কর, জর্জ হ্যারিসনসহ বিশ্বখ্যাত শিল্পীরা ১৯৭১ সালে নিউইয়র্কে ৪০ হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে তুলে ধরেছিলেন। কনসার্ট থেকে প্রাপ্ত অর্থ ইউনিসেফ এর মাধ্যমেমাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের শরণার্থীদের জন্য সহায়তা করেছিলেন।

মাননীয় প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন যে, সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ উদার গণতান্ত্রিক অসাম্প্রদায়িক ও মেধাবী প্রজন্ম গড়ে তুলতে চেষ্টা করছে। সেই লক্ষে আইসিটি বিভাগ আয়োজন করেছে বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্র্যান্ট (বিগ)সহ নানা কার্যক্রম। এই বিগ আয়োজনের মাধ্যমে দেশের তরুণ প্রজন্মকে উদ্যোক্তা ও উদ্ভাবক হবার জন্য অনুপ্রাণিত ও সম্পৃক্ত করা সম্ভব হয়েছে এবং সারা বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে উদ্যোক্তা ও উদ্ভাবকদের জন্য একটি সম্ভাবনময়ী গন্তব্য হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা
সম্ভব হচ্ছে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।”

ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানটি এলআইসিটি পলিসি অ্যাডভাইজার সামি আহমেদ এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন আইডিয়া প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ও যুগ্ম-সচিব মো: আব্দুর রাকিব এবং অ্যাপেক্স ডেটা ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড আইটি লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জারা মাহবুব। আইডিয়া প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো: আব্দুর রাকিব বলেন, বাংলাদেশকে এখন বলা হয় উন্নয়নের রোল মডেল। 

বহির্বিশ্বের মানুষ এখন বাংলাদেশের প্রশংসা করছেন। দেশের সাধারণ মানুষের অর্থনৈতিক সক্ষমতা যেমন বেড়েছে তেমন তথ্য-প্রযুক্তিতে হয়েছে ব্যাপক উন্নয়ন। তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের তরুণ সমাজ খুব শীঘ্রই দেশে বিকাশমান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে এই দেশকে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে নিয়ে যেতে পারবে। সবশেষে তিনি- তরুণ, উদ্ভাবকসহ স্টার্টআপদের কল্যানে আইডিয়া প্রকল্প সবসময়ই পাশে থাকবে এবং ভবিষ্যতেও তাদের উন্নয়নে নানা প্রকার উদ্যোগ গ্রহণ চলমান রাখবে বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

অ্যাপেক্স ডেটা ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড আইটি লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জারা মাহবুব “দ্য কান্ট্রি দ্যাট লিভড, 50 ইয়ার্স অফ ফ্রিডম এন্ড দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ” শিরোনামে এই কফি টেবিল বুক প্রকাশনায় প্রতিষ্ঠানটিকে সংযুক্ত করবার জন্য সকলকে ধন্যবাদ জানান এবং এ ধরনের একটি ঐতিহাসিক আয়োজনের সাথে সংযুক্ত হতে পেরে গর্ববোধ করেন।
সবশেষে, ভার্চুয়াল মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে এই বইয়ের ডিজিটাল ভার্সনের মোড়ক উন্মোচন করেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী হওয়ায় ২০২১ সাল বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ। এছাড়াও, ২০২১ সালেই জর্জ হ্যারিসন ও রবিশঙ্কর কর্তৃক আয়োজিত ''কনসার্ট ফর বাংলাদেশ'' অনুষ্ঠানটির ৫০ বছরপূর্তি হলো যা বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পক্ষে আন্তর্জাতিক জনমত সৃষ্টি ও যুদ্ধকালীন সময়ের শরনার্থীদের জন্য তহবিল সংগ্রহে ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছিলো। 

এই ঐতিহাসিক মুহুর্তটি উৎযাপন করতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের আওতায় আইডিয়া প্রকল্পের উদ্যোগ ''বঙ্গবন্ধু ইনোভেশন গ্রান্ট ২০২১'' এর পক্ষ থেকে পণ্ডিত শ্রী রবিশঙ্করের কন্যা আনুষ্কা শঙ্করকে লন্ডনের বিখ্যাত সেই “অ্যাবি রোড স্টুডিও”-তে একটি পরিবেশনার জন্য আমন্ত্রণ করা হয়। এছাড়াও, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর এবং ''কনসার্ট ফর বাংলাদেশ'' অনুষ্ঠানটির ৫০ বছরপূর্তিতে এই আয়োজনের তাৎপর্য তুলে ধরে স্মরণীয় করে রাখতে “দ্য কান্ট্রি দ্যাট লিভড, 50 ইয়ার্স অফ ফ্রিডম এন্ড দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ” শিরোনামে একটি আন্তর্জাতিক মানের একটি কফি টেবিল বুক প্রকাশনা করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। 

প্রকাশনাটিতে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ এবং কনসার্ট ফর বাংলাদেশের ইতিহাসকে চিত্র ও শব্দশৈলীর মিশ্রণে তুলে ধরা হয়েছে। “কনসার্ট ফর বাংলাদেশ” অ্যালবামটি নিয়ে প্রকাশিত বইটি প্রকাশে আইডিয়া প্রকল্পের উদ্যোগে সার্বিক সহোযোগিতা করে “অ্যাপেক্স ডেটা ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড আইটি লিমিটেড”। বইটির ডিজিটাল ভার্সন সংগ্রহ করা যাবে www.concertforbangladesh50.net এই ওয়েবসাইট থেকে।

উল্লেখ্য, মানবতাবাদী ব্রিটিশ ব্যান্ড গায়ক জর্জ হ্যারিসন তার দল বিটলস রবি শঙ্করের অনুরোধে নিউ ইয়র্কের মেডিসিন স্কয়ার গার্ডেনে ১ আগস্ট ১৯৭১ আয়োজন করা হয় কনসার্ট ফর বাংলাদেশ।


একুশে সংবাদযসোহাগ/প