ঢাকা মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

শিক্ষক সংকটে ভুগছেন পুরান ঢাকার সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ


শিক্ষক সংকটে ভুগছেন পুরান ঢাকার সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ

সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ পুরান ঢাকার লক্ষীবাজারে অবস্থিত একটি সরকারি কলেজ। ১১ নভেম্বর ১৯৪৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এ কলেজটিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০০৪-০৫ শিক্ষাবর্ষ থেকে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষাব্যবস্থা চালু হয়। এরপর ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি কলেজটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত হয়। এই কলেজটিতে বর্তমানে উচ্চ মাধ্যমিক এর পাশাপাশি স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যায়নের সুব্যবস্থা রয়েছে।

 

৭৩ বছরের পুরাতন এই কলেজটিতে বর্তমানে ৩ টি অনুষদে সর্বমোট ১৭ টি বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়। দীর্ঘদিন যাবত স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের শিক্ষাব্যবস্থা চালু থাকলেও নেই পর্যাপ্ত শিক্ষক। যার ফলে প্রতিনিয়ত ব্যহত হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষা কার্যক্রম।

 

কলেজটিতে প্রতিটি বিভাগে অনার্সের ৪ টি শিক্ষাবর্ষ ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের বিপরীতে শিক্ষক রয়েছেনঃ- ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদঃ ব্যবস্থাপনা বিভাগে- ৬ জন, হিসাব বিজ্ঞান বিভাগে- ৪ জন (যেখানে ৩ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ও ১ জন  অতিথি শিক্ষক)।

 

বিজ্ঞান অনুষদঃ পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগে- ৮ জন, রসায়ন বিভাগে- ৬ জন, গণিত বিভাগে- ৪ জন (যেখানে ৩ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ও ১ জন অতিথি শিক্ষক), প্রাণীবিদ্যা বিভাগে- ৩ জন (যেখানে ২ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ও ১ জন অতিথি শিক্ষক),  মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগে- ৪ জন, উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগে- ৭ জন, ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগে- ৫ জন।

 

কলা অনুষদঃ বাংলা বিভাগে- ৬ জন, ইংরেজি বিভাগে- ৮ জন (যেখানে ৭ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ও ১ জন অতিথি শিক্ষক), অর্থনীতি বিভাগে- ৫ জন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে- ৬ জন, দর্শন বিভাগে- ১১ জন, সমাজকর্ম বিভাগে- ৬ জন (যেখানে ৪ জন নিয়োগপ্রাপ্ত ও ২ জন অতিথি শিক্ষক), ইসলাম শিক্ষা বিভাগে- ৫ জন, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে- ৮ জন।

 

সাধারণ শিক্ষার্থীদের মন্তব্যঃ কলেজটির বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা জানা যায় শিক্ষক সংকটের জন্য তাদের শিক্ষা কার্যক্রম প্রতিনিয়ত বাধার সম্মুখীন হচ্ছে। নিচে কিছু শিক্ষার্থীর মন্তব্য তুলে ধরা হলো-

* প্রাণীবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী তাসলিমা তাসরিন জানায়, "বর্তমানে আমাদের বিভাগে ২ জন শিক্ষিকা রয়েছেন এবং একজন অতিথি শিক্ষক রয়েছেন।আমাদের নন-মেজর বিষয়ের ক্লাসগুলো অন্য ডিপার্টমেন্টের সাথে হলেও মেজর বিষয়গুলোর ক্লাস ঠিকভাবে হয়না। রুটিন অনুযায়ী সময়মতো ক্লাস হয়না।"

* হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী পারভেজ তানবিন বলেন, "১ জন অতিথি শিক্ষক সহ ডিপার্টমেন্টে মাত্র ৪ জন শিক্ষক। ক্লাস ঠিকভাবে হয়না। এতবড় ডিপার্টমেন্টে মাত্র ৩-৪ জন শিক্ষক কিভাবে ঠিকভাবে ক্লাস নিবেন।

* ইসলাম শিক্ষা বিভাগে শিক্ষার্থী মোস্তফা কামাল বলেন, " মাত্র পাঁচ জন শিক্ষক। এই পাঁচ শিক্ষকেই ইন্টারমিডিয়েট, অনার্স-মাস্টার্স এর কাস নিয়ে থাকে।ক্লাস নিতে গেলে কিছুটা সমস্যা হয়।"

 

এ বিষয়ে অধ্যক্ষ মোহসীন কবীর বলেন, "শিক্ষকদের স্থায়ী যে পদ তা আমাদের কলেজে অনেক কম। বিষয়টি আমি শিক্ষামন্ত্রী মহোদয়কে অবগত করি। উনি বিষয়টি অনুধাবন করেন এবং যেহেতু পথ সৃষ্টি অনেক জটিল ও সময়সাপেক্ষ ব্যাপার, তাই বিকল্প পদ্ধতি ব্যবহার করে সংযুক্তির মাধ্যমে বাইরে থেকে বেশ কিছু শিক্ষক দিলে এখন শিক্ষক সংখ্যা আগে তুলনা দ্বিগুণ হয়েছে। এরপরও কয়েকটি বিষয়ে শিক্ষক স্বল্পতা রয়েছে। এ বিষয়ে আমরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে নিয়মিত যোগাযোগ করছি।"

 

তিনি আরও বলেন, "আমাদের শিক্ষক স্বল্পতা স্বল্প সময়ের মধ্যেই সাময়িকভাবে নিরসন করেছেন এজন্য মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী মহোদয়কে সোহরাওয়ার্দী কলেজের পক্ষ থেকে সাধুবাদ এবং আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এ সময়কালের সব থেকে যোগ্য অভিভাবকগণ উপস্থিত রয়েছেন। উনারা এ কলেজের শিক্ষক সংখ্যাসহ শিক্ষকের স্থায়ী পদের সংখ্যাও খুব দ্রুত বৃদ্ধি করবেন এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করছি।  আশা করি তাদের যুগ্ন সহযোগিতায় আমরা এ সমস্যাগুলো দ্রুত সমাধান করতে পারব।"

 

একুশে সংবাদ.কম/জা.হা.জাহাঙ্গীর