AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ওঠছে ইলিশ ধরার নিষেধাজ্ঞা


Ekushey Sangbad
আমিনুল হক ভূইয়া
১০:২৫ পিএম, ১ নভেম্বর, ২০২৩
বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ওঠছে ইলিশ ধরার নিষেধাজ্ঞা

মা ইলিশ রক্ষা এবং নিরাপদ প্রজনন নিশ্চিত করতে ইলিশ ধরা নিয়ে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে ওঠছে ইলিশ ধরার এই নিষেধাজ্ঞা। এরই মধ্যে সাগরপাড়ে জেলে পল্লীতে চলছে ব্যস্ততা, হাকডাক। তারা প্রস্তুতি নিচ্ছে সাগরে নামার। শুক্রবার ভোর থেকেই ইলিশ ধরতে পারবেন জেলেরা। তাই শুরু হয়েছে ইলিশ আহরণের প্রস্তুতি।

 

নিষেধাজ্ঞার প্রথম ধাপে নিরাপদ প্রজননের জন্য ১২ অক্টোবর থেকে নভেম্বর ২২ দিন এবং দ্বিতীয় ধাপে জাটকা রক্ষায় ২ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। বাংলাদেশে বর্তমানে ইলিশের উৎপাদন প্রায় পৌনে ৬ লক্ষ্য মেট্রিক টন।

 

বাংলাদেশের ইলিশ গবেষক ড. আনিসুর রহমান একুশে সংবাদকে বলেন, গত বছর সাড়ে ৭ লাখ কেজির ওপরে ডিম ছাড়েছে ইলিশ। তার যদি ৫০ শতাংশ হেজ করে এবং ১০ শতাংশ টিকে যায়, তাহলেও ৪০ হাজার কোটি জাটকা ইলিশ যুক্ত হয়। যা পরবর্তী বছরের জন্য তৈরি হয়। তারাই ফের ডিম ছাড়ে ও ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধি করে থাকে। এ কারণে ইলিশের টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে হবে।

 

বাংলাদেশের জাতীয় মাছ ইলিশ রক্ষায় দুই ধাপে নিষেধাজ্ঞার ফলে বাংলাদেশে প্রতিবছর ইলিশের উৎপাদন বেড়ে চলেছে।

 

ইলিশ গবেষক ড. আনিসুর রহমান একুশে সংবাদ.কমকে বলেন, প্রতি বছর একই সময়ে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয় না। আমাবস্যা পূর্ণিমা নিয়ে বিশেষ করে চন্দ্রমাসের হিসাব অনুযায়ী ইলিশের প্রজনন দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। সাগর থেকে মিঠা পানিতে ছুটে এসে ইলিশ ডিম ছাড়ে। ইলিশের এই আসা-যাওয়া নিরাপদ করতেই ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

 

ড. আনিসুর রহমান বলেন, শেখ হাসিনার এই পদক্ষেপের কারণে জাতীয় মাছ ইলিশের উৎপাদন প্রতিবছর বাড়ছে। ইলিশের উৎপাদন এবং মা-জাটকা রক্ষায় সবাইকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে। তা হলে আগামীতে ইলিশের উৎপাদন আরও বাড়বে। ইলিশ ডিম ছেড়ে যাতে নিরাপদ সাগরে ফিরে যেতে পারে সেজন্য ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা।

 

ইলিশের প্রজনন নিশ্চিত করতে ৩৮ জেলার আকাশ, নদী ও সমুদ্রপথে বিশেষ টহল জোরদার করা হয়। আইন অমান্যকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় প্রশাসন। ইলিশ ধরা বন্ধকালে জেলেরা যাতে অবৈধ মৎস্য আহরণ করতে না পারে, সে জন্য সাগরে কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী ব্যবস্থা নেওয়া হয়। নৌ পুলিশ এ বছর নদীতে ভাসমান ফাঁড়ি পরিচালনা করছে।

 

 মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, মা ইলিশ আহরণে বিরত থাকা সরকারি তালিকাভুক্ত ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৯৪৪টি জেলে পরিবারের জন্য খাদ্যসহায়তা বাবদ চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ কর্মসূচির আওতায় প্রতিটি জেলে পরিবার চাল পাবে ২০ কেজি। ২০২৩-২৪ অর্থবছরে সরকারের মানবিক খাদ্যসহায়তা কর্মসূচির আওতায় ৩৭ জেলার ১৫১টি উপজেলায় এ খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে।

 

একুশে সংবাদ/এএইচবি/জাহা

Link copied!