ঢাকা শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর, ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

বিপুল পরিমান চোরাই যন্ত্রাংশসহ চক্রের ৭ জন গ্রেফতার


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০২:২৪ পিএম, ২৭ এপ্রিল, ২০২২
বিপুল পরিমান চোরাই যন্ত্রাংশসহ চক্রের ৭ জন গ্রেফতার

ছবি: একুশে সংবাদ

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়ী চুরি প্রতিরোধ টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমান চোরাই যন্ত্রাংশসহ গাড়ীর যন্ত্রাংশ চোর চক্রের ৭ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। আজ সকাল ১১ টা ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ জানায়।

গত ২৬ এপ্রিল ২০২২ তারিখ রাজধানীর পল্টন ও ভাটারা থানা এলাকায় গোয়েন্দা লালবাগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার রাজীব আল মাসুদ এর নিদের্শনায় অতিঃ উপ পুলিশ কমিশনার জনাব হাসান আরাফাত এর তত্ত¡াবধানে সহকারী পুলিশ কমিশনার মধুসূদন দাস এর নেতৃত্বে সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়ী চুরি প্রতিরোধ টিম কর্তৃক অভিযানটি পরিচালিত পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতদের নাম- ১। মোঃ এনামুল মোল্লা (৩৫), ২। মোঃ এনামুল হক  এনাম (৪৭), ৩। মোঃ বকুল চৌধুরী (২৪), ৪। শরিফ আহম্মেদ কালু (৪০), ৫। বিল্লাল হোসেন (২৮), ৬। মোঃ ইকবাল হোসেন পলাশ (৩৪) ও ৭। মোঃ ইকবাল খান (৩২)। গ্রেফতারের সময় তাদের হেফাজত হতে  বিভিন্ন মডেলের প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ও জীপ গাড়ীর সাইড লুকিং মিরর-১২৪ পিস, সাইড মিররের কভার-১৯ পিস, লুকিং গ্যাসের কর্ণার বিট-১০৭ পিস, হেরিয়ার জীপ গাড়ীর গ্রীল লগো ০২ পিস, কমপ্লিট মিরর-১২ পিস, এক্সিও প্রাইভেটকারের দরজার বিট-৩০ পিস, কমপ্লিট সাইড মিরর ১৮ পিস, বাম্পার ক্যাপ-০৬ জোড়া, পিছনের ডালার বিট-২৬ পিস চোরাই যন্ত্রাংশ জব্দ করা হয়। 

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা জানায়, তারা দীর্ঘদিন যাবৎ চোরদের নিকট হতে গাড়ীর চোরাই যন্ত্রাংশ সংগ্রহ করে কার প্লাস মার্কেটের কালু, বিল্লাল, স্কাউট মার্কেটের চুন্নু, পলাশ, বারিধারার ইকবাল, মহাখালী জেবা মার্কেটের নাহিদ, পরান, মামুন ও ধোলাই খালের সানালদের নিকট বিক্রয় করতো। জিজ্ঞাসাবাদে তারা আরও জানায় গ্রেফতারকৃত ও পলাতক আসামীরা পরস্পরের যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ বিভিন্ন গাড়ীর চোরাই যন্ত্রাংশ ক্রয় বিক্রয় করে আসছিল। গ্রেফতারকৃতদের নামে পূর্বেও চোরাই পার্টস কেনা-বেচার মামলা রয়েছে। 

তারা ৭-৮ বছর যাবৎ গাড়ীর চোরাই যন্ত্রাংশ ক্রয় বিক্রয় কাজের সাথে জড়িত। অনেক ক্ষেত্রে তারা যে মালিকের পার্টস চুরি করে, দোকানদার সেই পার্টস পুনরায় উচ্চ দামে ঐ মালিকের কাছেই বিক্রি করে। কারণ অনেক গাড়ীর নতুন পার্টস মার্কেটে আলাদাভাবে আমদানী করা হয়না বা কিনতেও পাওয়া যায় না।

চোরাই পার্টস চুরির পর মুহুর্তেই চোরের ওস্তাদের মাধ্যমে তা পার্টসের দোকানে স্বল্প মূল্যে বিক্রি করে দেয়। এছাড়াও প্রাথমিকভাবে ৭ টি পার্টসের দোকানের সন্ধান পাওয়া যায়, যারা চোরাই পার্টস বিক্রি করে-পল্টন স্কাউট মার্কেট- ২টি দোকান, মহাখালী জেবা টাওয়ার- ৩টি দোকান, ধোলাইখাল- ১টি দোকান ও বারিধারা জে-বক্ল- ১টি দোকান। 


একুশে সংবাদ/বেলাল দেওয়ান/এইচ আই