AB Bank
ঢাকা মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ, ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ১২ বাংলাদেশি


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
০৯:২৫ পিএম, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
ভারতে কারাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ১২ বাংলাদেশি

অবৈধপথে ভারতে অনুপ্রবেশের অপরাধে কারাভোগ শেষে আগরতলা-আখাউড়া সীমান্ত দিয়ে দেশে ফিরেছেন ১২ বাংলাদেশি নারী-পুরুষ। বিভিন্ন সময় দালালের মাধ্যমে ভারতে পাচারের শিকার হয়ে সে দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়ে কারাভোগ করেছেন তারা।

ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আগরতলা থেকে আখাউড়া সীমান্তের চেকপোস্ট দিয়ে তারা দেশে ফেরেন। প্রত্যেকে দুই থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত জেল খেটেছেন।

প্রবেশের পর আখাউড়া উপজেলা প্রশাসন তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়। আগরতলা আখাউড়া স্থলবন্দরে তাদের ভারত থেকে গ্রহণ করার সময় ত্রিপুরায় নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার আরিফ মোহাম্মদ, বাংলাদেশ সহকারী হাইকমিশনের প্রথম সচিব মো. আল আমীন, আখাউড়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাবেয়া আক্তার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রশান্ত চক্রবর্তী, ওসি ইমিগ্রেশন হাসান আহমেদ ভূঁইয়া, ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কর্মকর্তা এবং পাচার হওয়াদের স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন।

এর মধ্যে ছয় জন পুরুষ এবং ছয় জন নারী। তাদের বয়স ২০-৫০ বছরের মধ্যে। তারা সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, চাঁদপুর, যশোর, নওগাঁ, জামালপুর ও ঝালকাঠি জেলার বাসিন্দা। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের কর্মকর্তাদের জিম্মায় তাদের দেওয়া হয়। পরে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

দীর্ঘদিন পর স্বজনদের ফিরে পেয়ে আখাউড়া স্থলবন্দরের শূন্যরেখায় আবেগঘন পরিবেশ সৃষ্টি হয়। এ সময় স্বজনরা আপনজনদের জড়িয়ে কান্না করেন। পরে নিজেদের কষ্টের কথা জানান ভুক্তভোগীরা।

দেড় বছর পর দেশে ফেরা চাঁদপুরের এক যুবক বলেন, ‘এক দালাল বলেছিল, ভারতে চাকরি দেবে। তার কথায় বর্ডার পার হওয়ার সময় বিএসএফের হাতে আটক হই। পরে ভারতের আদালত চার মাসের কারাদণ্ড দেয়। কারাদণ্ড শেষ হওয়ার পরও ১১ মাস হোমে রাখা হয়। দেড় বছর পর দেশে ফিরে ভালো লাগছে।’

১৫ মাস পর দেশে ফেরা জামালপুরের এক নারী বলেন, ‘এক দালাল আমাকে ভারতে ৪০ হাজার টাকা বেতনে চাকরি দেবে বলেছিল। পরে বিএসএফের হাতে তুলে দেয়। চার মাসের কারাদণ্ড শেষ হওয়ার পরও ১১ মাস হোমে রাখা হয়। এত মাস পর যারা আমাদের দেশে ফিরিয়ে এনেছে, তাদের কৃতজ্ঞতা জানাই।’

ত্রিপুরায় নিযুক্ত বাংলাদেশের সহকারী হাইকমিশনার আরিফ মোহাম্মদ বলেন, ‘দুই দেশের সরকারের সহযোগিতায় তাদের দেশে এনে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এমন আরও দুই থেকে আড়াইশ বাংলাদেশি ভারতের বিভিন্ন কারাগার ও সরকারি হেফাজতে আছে। পর্যায়ক্রমে তাদেরও ফেরত আনা হবে।’

ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার শায়লা শারমিন বলেন, ‘আমরা তাদের দুই দেশের শূন্যরেখায় স্বাগত জানিয়েছি। জরুরি সহায়তা হিসেবে তাদের খাবার, কাউন্সেলিং ও নগদ অর্থ সহায়তা দিয়েছি। দেশে ফেরা ওই ১২ জনকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’


একুশে সংবাদ/ব.ট.প্র/জাহা

 

Link copied!