AB Bank
ঢাকা শনিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

শচীনকে ছাড়িয়ে গেলেন সৌম্য,বাংলাদেশের বড় সংগ্রহ


Ekushey Sangbad
ক্রীড়া প্রতিবেদক
০৯:০৭ এএম, ২০ ডিসেম্বর, ২০২৩
শচীনকে ছাড়িয়ে গেলেন সৌম্য,বাংলাদেশের বড় সংগ্রহ

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে  চতুর্থ বাংলাদেশি হিসেবে সেঞ্চুরির দেখা পেলেন সৌম্য সরকার। দীর্ঘ ৫ বছর পর সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন এ ব্যাটার। তার অনবদ্য ইনিংসে ভর করে কিউইদের বিপক্ষে বড় সংগ্রহ পেয়েছে টাইগাররা।

নিউজিল্যান্ডের নেলসনে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে সৌম্যের ১৬৯ রানে ভর করে ৪৯.৫ ওভারে ২৯১ রান করে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ।  

এদিন টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ইনিংসে সাবধানী শুরু করেও নিজের স্কোর দুইয়ের বেশি টানতে পারেননি এনামুল হক বিজয়। দলীয় ১১ রানে বিজয়ের উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

বড় স্কোর করা হয়নি অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তরও। ব্যক্তিগত ৬ রানে আউট হন টাইগার অধিনায়ক। জ্যাকব ডাফির দিনের প্রথম শিকার তিনি। শর্ট লেন্থের বল লেগ সাইডে ফ্লিক করতে চেয়েছিলেন শান্ত। তবে বল কানায় লেগে চলে যায় হেনরি নিকোলসের হাতে। 

বিপদটা আরো বাড়িয়েছেন লিটন দাস। বিশ্বকাপের বাজে ফর্মটা এদিন নিউজিল্যান্ডেও টেনে এনেছিলেন তিনি। জ্যাকব ডাফির অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বল খেলতে গিয়ে কাভার পয়েন্টে থাকা উইল ইয়ংয়ের হাতে ক্যাচ দেন লিটন। ফেরার আগে মাত্র ৬ রান করে যান।

তাওহীদ হৃদয়কে নিয়ে কিছুটা ইনিংস গুছিয়ে নেন সৌম্য। তবে দুর্ভাগ্যজনক এক রানআউটে থামতে হয় হৃদয়কে। বোলার পায়ে লেগে বল আঘাত হানে উইকেটে। নন-স্ট্রাইকে থাকা হৃদয়ের কিছুই করার ছিল না। দলের স্কোর তখন ৮০ রানে ৪ উইকেট।

মুশফিকুর রহিম ক্রিজে এসে সৌম্যকে সঙ্গ দিয়েছেন অনেকটা সময়। দেখেশুনে খেলে নিজের আর দলের স্কোর বাড়িয়েছেন। ৩৫তম ওভারের পঞ্চম বলে দলীয় ১৭১ রানে আউট হন মুশফিক।

জ্যাকব ডাফির অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বল খেলতে গেলে এজড হয়ে উইকেটরক্ষক টম ব্লান্ডেলের হাতে ধরা পড়েন মুশফিক। ব্যক্তিগত ইনিংসে ৪৫ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন তিনি। ডাফির তৃতীয় শিকার হয়ে তাকেও ফিরতে হয় বড় স্কোর করার আগে।

শেষদিকে কেউই বলার মতো ইনিংস খেলতে পারেননি। তবে এদিন সবাইকে ছাপিয়ে দলের হয়ে একাই লড়েছেন সৌম্য সরকার। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে খেলেছেন ১৬৯ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। যা বাংলাদেশিদের মধ্যে ওয়ানডেতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

কিউই বোলার উইল ও’রর্ক ও জ্যাকব ডাফি ৩টি, মিলনে, জোশ ক্লার্কসন ও আদি অশোক একটি করে উইকেট লাভ করেন।

এক সেঞ্চুরিতে সৌম্য ছাড়িয়েছেন ক্রিকেট ঈশ্বর শচীন টেন্ডুলকারকে। নিউজিল্যান্ডের কোনো এশিয়ান ব্যাটারের সর্বোচ্চ ইনিংসের মালিক এখন সৌম্য। আগের যে রেকর্ডটি ছিল টেন্ডুলকারের। তিনি ২০০৯ সালে ক্রাইস্টচার্চে করেছিলেন অপরাজিত ১৬৩ রান। সেই সঙ্গে সৌম্য চতুর্থ বাংলাদেশি ব্যাটার যিনি দেড়শো পেরুলেন। এর আগে তামিম ও লিটন দাস দেড়শোর মাইলফলক স্পর্শ করেন। যেখানে তামিমের রয়েছে দুটি ইনিংস।

১২৯ রান করার সঙ্গে সঙ্গে সৌম্য ছাড়িয়ে যান মাহমুদউল্লাহকে। ২০১৫ সালে কিউই সফরে মাহমুদউল্লাহ বাংলাদেশি হিসেবে সর্বোচ্চ ইনিংস খেলেছিলেন। সেবার তিনি ১২৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। যেটি এতদিন ছিল কিউইদের মাটিতে কোনো বাংলাদেশির সর্বোচ্চ ইনিংস। আজ সেটিকে টপকে গেলেন সৌম্য।
 

একুশে সংবাদ/এস কে

Link copied!