AB Bank
ঢাকা মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অঘটন! আটকে গেল ম্যান ইউ


Ekushey Sangbad
স্পোর্টস ডেস্ক
১১:৩০ এএম, ৯ নভেম্বর, ২০২৩
চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অঘটন! আটকে গেল ম্যান ইউ

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অঘটন। ২ গোলে এগিয়ে থেকেও ম্যাচ হারতে হল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে। পাশাপাশি লাল কার্ডও দেখলেন রাশফোর্ড। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বনাম কোপেনহাগেন ম্যাচে একাধিক ঘটনার সাক্ষী থাকল ফুটবল বিশ্ব। এদিন শুরু থেকেই বিপক্ষকে বেশ চাপে রাখে ইংল্যান্ডের ক্লাবটি। ম্যাচের মাত্র তিন মিনিটের মাথায় প্রথম গোলটি আসে ম্যান ইউর। রাসমাসের গোল থেকে মাত্র ৩ মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড । শুরুতেই গোল করে এগিয়ে যায় রাশফোর্ডরা। বিপক্ষকে বেশ চাপেই রাখে তারা।

ম্যাচ যত গড়াতে থাকে ততই আরও দাপট বাড়াতে থাকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড । দলের দ্বিতীয় গোলটি করেন সেই রাসমাস। ২৮ মিনিটের মাথায় দ্বিতীয় গোলটি করে দলকে আরও এগিয়ে দেন তিনি। এরপরই ম্যাচের পরিস্থিতি বদলাতে শুরু করে। দুই দলের আক্রমণাত্মক পরফরম্যান্স টানটান উত্তেজনার পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার কয়েক মিনিট আগেই ঘটে গেল দুর্ঘটনা। লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে চলে যান রাশফোর্ড। ১০ জনে হয়ে যায় ম্যান ইউ। যদিও রাশফোর্ডের এই কার্ড দেখা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। ১০ জনে হয়ে যাওয়ার ঠিক কয়েক মিনিটের মধ্যেই ব্যবধান কমান মহম্মদ ইলিউনুসি। ৪৫ মিনিটের মাথায় প্রথম গোলটি আসে কোপেনহাগেনের।

সমতা ফেরানোয় আত্মবিশ্বাস ফিরে পায় তারা। বিপক্ষকে পাল্টা চাপের মধ্যে রাখার চেষ্টা করেন কোপেনহাগেনের ফুটবলাররা। প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে পেনাল্টি আদায় করে সমতা ফেরান দিওগো। স্বাভাবিক ভাবেই প্রথমার্ধ শেষে ম্যাচের ফলাফল দাঁড়ায় ২-২। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই ম্য়াচে ফেরার মরিয়া চেষ্টা চালাতে থাকে ইউনাইটেড। তারা গোল করতে সক্ষমও হয়। ৬৯ মিনিটের মাথায় একটি পেনাল্টি আদায় করে নেয় তারা। সেখান থেকে গোল করেন ব্রুনো ফার্নান্ডেজ। যদিও এরপর আর কোনও গোল করতে পারেননি ম্যান ইউয়ের ফুটবলাররা। ১০ জনে খেলা ইউনাইটেডের ফুটবলারদের নিয়ে কার্যত ছেলেখেলা করতে থাকে তারা। ম্য়াচের একেবারে শেষ প্রান্তে এসে ৮৩ মিনিটের মাথায় লুকাস এবং ৮৭ মিনিটের মাথায় রনি গোল করে ম্যাচ জিতিয়ে দেন। ৪-৩ গোলে হারতে হল ইউনাইটেডকে।

অন্য ম্যাচে বায়ার্ন মিউনিখ খেলতে নামে গালাটাসারের বিরুদ্ধে। আর সেই ম্যাচে ২-১ গোলে ম্যাচ জিতে নেয় বায়ার্ন। দুটি গোলই করেন হ্যারি কেন। ৮০ এবং ৮৬ মিনিটের মাথায় গোল করেন এই ইংরেজ তারকা ফুটবলার। পাশাপাশি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির অন্য একটি ম্যাচে খেলতে নামে আর্সেনাল এবং সেভিলা। সেই ম্য়াচে ২-০ গোলে জিতে নেয় আর্সেনাল। লিয়ান্দ্রো ২৯ মিনিটে এবং বুকায়ো সাকা ৬৪ মিনিটে গোল করেন। এমনকী রিয়াল মাদ্রিদও ব্রাগাকে ৩-০ ব্যবধানে হারায়। মাদ্রিদের হয়ে ২৭ মিনিটের মাথায় গোল করেন ব্রাহিম দিয়াজ। ভিনিসিস জুনিয়র ৫৮ মিনিটের মাথায় এবং রড্রিগো ৬১ মিনিটের মাথায় গোল করেন।

একুশে সংবাদ/এস কে 

Link copied!