AB Bank
ঢাকা শুক্রবার, ০১ মার্চ, ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

মামলার ভয় দেখিয়ে  টাকা চাঁদা নেওয়ার অভিযোগ ট্রাফিক পুলিশের বিরুদ্ধে


Ekushey Sangbad
টি.আই সানি, শ্রীপুর, গাজীপুর
০৫:০৪ পিএম, ৮ ডিসেম্বর, ২০২৩
মামলার ভয় দেখিয়ে  টাকা চাঁদা নেওয়ার অভিযোগ ট্রাফিক পুলিশের বিরুদ্ধে

গাজীপুরের শ্রীপুরে মামলার ভয় দেখিয়ে এক কৃষকের কাছ থেকে দুই হাজার টাকা চাঁদা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে গাজীপুর জেলা পুলিশের বিরুদ্ধে। 

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী কৃষক সোমবার (০৪ ডিসেম্বর) বিচার চেয়ে মহা-পুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) বরাবার লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এর আগে শুক্রবার (০৪ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের শ্রীপুর উপজেলার জৈনা বাজার (ইউটার্নে) এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্তরা হলো পুলিশ সদস্যরা হলো গাজীপুর জেলা পুলিশের সার্জেন্ট মেহেদী (৪২) এবং আতাউর রহমান (৪৫)।

ভুক্তভোগী কৃষক গিয়াস উদ্দিন সরকার (৪৫) শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের গোদারচালা গ্রামের মৃত মালেক সরকারের ছেলে।

কৃষক গিয়াস উদ্দিন সরকার এবং মহা-পুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) বরাবার লিখিত অভিযোগে জানান, শুক্রবার (০৪ ডিসেম্বর) সকালে তিনি উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের বলদীঘাট এলাকা থেকে লাকড়ি কিনে পিকআপ ভাড়া করে নিজ বাড়ীতে (গোদারচালা) আসছিলেন। সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের শ্রীপুর উপজেলার জৈনা বাজার (ইউটার্নে) পৌছলে ওই স্থানে দায়িত্বরত গাজীপুর জেলা পুলিশের সার্জেন্ট মেহেদী এবং আতাউর রহমান সিগনাল দিয়ে তার পিকআপের গতিরোধ করে। এসময় পুলিশ সদস্যরা পিকআপের কাগজপত্র যাচাই করে সঠিক পাওয়া গেলে অভিযুক্ত সার্জেন্ট মেহেদী ও তার সহযোগী কৃষকের কাছে দুই হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। তাদের দাবীকৃত টাকা না দিলে লাকড়ি নিতে দিবে না বলে জানায়। কেন তাদেরকে (পুলিশ সদস্য) চাঁদা দিতে হবে জিজ্ঞাসা করলে তারা কৃষক গিয়াস উদ্দিন সরকারকে বলে মহাসড়ক দিয়ে লাকড়ি নিলে গেলে আমাদেরকে দুই হাজার টাকা চাঁদা দিতে হয়। তাদেরকে টাকা দিতে রাজি না হলে তারা কৃষককে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার হুমকি দেয়। পরে ওই কৃষক তাদেরকে (পুলিশ সদস্যকে) দুই হাজার টাকা চাঁদা দিলে তারা লাকড়ি বহনকারী পিকআপ ছেড়ে দেয়।

তিনি আরো বলেন, পরবর্তীতে আমি জানিতে পারি অভিযুক্ত গাজীপুর জেলা পুলিশের ওই দুই সদস্য প্রায় সময় মহাসড়কের ওই স্থানে বিভিন্ন সময় চাঁদাবাজী করে সাধারণ মানুষকে হয়রানী করে আসছে। এ বিষয়ে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য তিনি মহা পুলিশ পরিদর্শক (আইজিপি) বরাবার লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত সার্জেন্ট মেহেদী জানান, আমরা তো অনেকে এক সাথে ডিউটি করি। তবে কার কাছ থেকে চাঁদা নিয়েছি এখন বুধবার (০৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় মনে হচ্ছে না। গতদিন এক সাংবাদিক এ বিষয়টা আমার কাছে বলেছিলো, তখন আমি বলেছিলাম আসেন আমরা বসি। কথা বলে বিষয়টা মীমাংসা করি। কোন কারণ ছাড়া তো চাঁদা দাবি, এটা কিভাবে সম্ভব।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) কাজী শফিকুল আলম বলেন, এ ধরনের কোনো অভিযোগ পাইনি, হয়তবা আসবে। আসলে তদন্ত করে প্রমাণীত হলে ব্যবস্থা নিব।

 

একুশে সংবাদ/বিএইচ

Link copied!