AB Bank
ঢাকা রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

‘উপহার নিয়ে নোরা ফতেহি সাক্ষী আর আমি দোষী?


Ekushey Sangbad
বিনোদন ডেস্ক
০৫:৩৭ পিএম, ২৫ আগস্ট, ২০২২
‘উপহার নিয়ে নোরা ফতেহি সাক্ষী আর আমি দোষী?

 

২০০ কোটি টাকার তছরুপ মামলায় দোষী হিসাবে অভিযুক্ত অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্ণান্ডেজ। যদিও জ্যাকলিনের দাবি, তাঁর সমস্ত রোজগারই তাঁর কষ্টার্জিত অর্থ। এই মামলার প্রধাণ অভিযুক্ত সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন অভিনেত্রী, তখনই তাঁর থেকে বেশ কিছু দামি উপহার পান অভিনেত্রী। সেখান থেকেই ইডির নজরে আসেন জ্যাকলিন। শুধুমাত্র জ্যাকলিন নয়, এই মামলায় নাম জড়িয়েছে নোরা ফতেহির। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকেও ডেকে পাঠিয়েছিল ইডি।

 

জ্যাকলিনের দাবি যে, সুকেশের থেকে উপহার নিয়ে যেখানে নোরাকে সাক্ষী বানিয়েছে ইডি সেখানে কেন তাঁকে অভিযুক্তের তালিকায় রাখা হয়েছে?

 

জ্যাকলিনের বক্তব্য তাঁর সমস্ত সম্পত্তিই তাঁর সঠিক উপায়ে অর্জন করা। তাঁর সমস্ত এফডি তাঁর নিজের রোজগারের। এমনকী সেগুলো যখন জ্যআকলিন করেছিলেন তখন তাঁর সঙ্গে সুকেশের ন্যূনতম যোগাযোগও ছিল না। জ্যাকলিনের ম্যানেজার বলেন, ‘ইডি যতবার তাঁকে ডেকেছে ততবারই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজির হয়েছেন অভিনেত্রী, এমনকী তাঁর কাছে যা যা কাগজপত্র ছিল, তা সবই জমা দিয়েছেন তিনি। কিন্তু এরপরও তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে। এই মামলায় ফেঁসেছেন অভিনেত্রী। সুকেশের এই তোলাবাজির মামলার শিকার তিনি। যদি এই অভিযোগ মেনেও নেওয়া হয় তাহলেও এই অভিযোগের ভিত্তিতে জ্যকলিনের বিরুদ্ধে কোনও মামলা দাঁড়ায় না।’

 

সম্প্রতি ইডির ফাইল করা চার্জশিটে অভিযুক্ত হিসাবে পাওয়া যায় অভিনেত্রীর নাম। আদালত এখনও চার্জশিট গ্রহণ না করায় অভিনেত্রীকে এখনই গ্রেফতার করা যাবে না, তবে তাঁকে দেশের বাইরে ভ্রমণের অনুমতি দেওয়া হবে না। আগেই জানা গিয়েছিল যে অভিনেত্রী সুকেশ চন্দ্রশেখরের কাছ থেকে অনেক দামি গয়না,  বিলাসবহুল গাড়ি এবং উপহার পেয়েছিলেন।জেলে থাকাকালীন সুকেশের সঙ্গে কথা বলারও অভিযোগ উঠেছে অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে। অতীতে, জ্যাকলিনকে ইডি বেশ কয়েকবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল, তবে তিনি সর্বদা বলেছেন যে তিনি এই মামলার একজন সাক্ষী। অভিনেত্রীর ম্যানেজার বলেছিলেন যে, জ্যাকলিন ২০১৭ সালে সুকেশ চন্দ্রশেখরের সঙ্গে তাঁর  যোগাযোগ হয় এবং তিনি জ্যাকলিনকে বলেছিলেন যে তিনি তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার পরিবারের সদস্য।

 

চার্জশিট অনুযায়ী জ্যাকলিন ইডিকে বলেছেন, ‘আমি ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে সুকেশের সঙ্গে কথা বলছি। ২০২১ সালের অগস্টে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল, তারপরে আমি আর তার সঙ্গে দেখা করিনি। তিনি আমাকে বলেছিলেন যে তিনি সান টিভির মালিক এবং জয়ললিতার পরিবারের সদস্য’। অভিনেত্রী আরও উল্লেখ করেছেন যে তাঁর বোন চন্দ্রশেখরের কাছ থেকে দেড় লক্ষ ডলার লোন নিয়েছিলেন এবং স্বীকার করেছেন যে তিনি অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী তাঁর ভাইয়ের অ্যাকাউন্টে প্রায় 15 লক্ষ টাকা ট্রান্সফার করেছেন। এর আগে, ইডি জ্যাকলিনের ৭ কোটি টাকার সম্পতি বাজেয়াপ্ত করেছিল। জ্যাকলিন যে বিলাসবহুল উপহার পেয়েছেন তার মধ্যে রয়েছে হিরের কানের দুল,  ব্রেসলেট,  বার্কিন ব্যাগ,  লুই ভিটনের জুতো, গুচি ও চ্যানেলের ডিজাইনার ব্যাগ, গুচি পোশাক, এক জোড়া লুই ভিটন জুতো এবং একটি মিনি কুপার গাড়ি।

 

একুশে সংবাদ.কম/জা.হা

Link copied!