AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

রোজায় মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঘরোয়া সাত উপায়


Ekushey Sangbad
লাইফস্টাইল ডেস্ক
০৫:২৯ পিএম, ১৯ মার্চ, ২০২৪
রোজায় মুখের দুর্গন্ধ দূর করার ঘরোয়া সাত উপায়

এখন চলছে পবিত্র রমজান মাস। এ মাসে ধর্মপ্রাণ সব মুসলিমরা রোজা রাখেন। ফজরের আগে সেহরিতে খাবার খাওয়ার পর সন্ধ্যায় মাগরিব পর্যন্ত দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকতে হয় রোজাদারদের। খাওয়ার আগে ও পরে ভালো করে দাঁত ব্রাশ করার পরও রোজাদারদের মুখ থেকে দুর্গন্ধ বের হওয়ার সম্ভাবনা থাকে এ সময়।

 

মুখের দুর্গন্ধ নিয়ে খুবই চিন্তিত থাকেন রোজাদাররা। মূলত দীর্ঘসময় না খেয়ে থাকার জন্য শরীরে শর্করা বিপাক হ্রাস হয়ে চর্বি বা ফ্যাট বিপাক বেড়ে যায়। এ কারণে দুর্গন্ধ হয় মুখে। আবার রোজা রাখার ফলে মুখের লালাগ্রন্থি অনেক কম সচল থাকে। এ কারণে লালা নিঃসরণের পরিমাণ অনেক কমে যায়। ফলে মুখের ব্যাকটেরিয়ার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যায়। আর ব্যাকটেরিয়ার বাইপ্রোডাক্ট (উপজাত) থেকে গন্ধ এসে থাকে মুখে।

এ অবস্থায় মুখের পরিচ্ছন্নতাবিধি মানা না হলে দাঁত ও মুখের স্বাস্থ্য অনেক ঝুঁকিতে পড়ে। আর সম্প্রতি রোজার সময় মুখে দুর্গন্ধ হলে করণীয় সম্পর্কে দেশের একটি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন রাজধানীর সাফেনা ওমেন্স ডেন্টাল কলেজের সিনিয়র লেকচারার ডা. খোন্দকার আসীর ইনতিসার। এবার এ সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক তাহলে।

রোজায় দাঁত-মুখের যত্ন নেয়ার উপায়: 

সেহরি ও ইফতারে খাবার খাওয়ার পর অবশ্যই দাঁত ব্রাশ করতে হবে। ইফতারের পরপর দাঁত ব্রাশ সম্ভব না হলেও সন্ধ্যা রাতে খাবার খাওয়ার পর অবশ্যই ব্রাশ করা উচিত। সেহরি খাওয়ার পর ফের দাঁত ব্রাশ করতে হবে। এতে মুখে জীবাণুর আধিক্য কম থাকবে।

ঘুম থেকে উঠার পর মুখ আঁশটে আঁশটে বা টক লাগলে করণীয়: সকালে ঘুম থেকে উঠার পর যদি গড়গড়া না করে অল্প পানি দিয়ে কুলি করা যায়, তাহলে কুলির পর মুখে জমে থাকা বাকি পানি, থুতুর মাধ্যমে ফেলে দেয়া উচিত। প্রয়োজনে ব্রাশে কোনো পেস্ট না নিয়ে শুধু ব্রাশ দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করা যেতে পারে।

পরামর্শ: 

এছাড়া ইফতারের পর থেকে সেহরি পর্যন্ত যথেষ্ট পরিমাণ পানি পান করতে হবে। ইফতারে বা পরবর্তী সময়ে খাওয়া শরবতে ইসবগুলের ভুসি মেশানো যেতে পারে। এতে পেট ভালো থাকবে। ইফতার বা সেহরিতে তৈলাক্ত খাবার যতটা সম্ভব কম খেতে হবে এবং শাকসবজি খেতে হবে বেশি।

এ সময় খাদ্যতালিকায় শাক রাখা যেতে পারে। কারণ, শাকে আঁশ থাকায় দাঁত পরিষ্কার থাকে। এটি ভিটামিন ও মিনারেল জাতীয়। তবে, শাক যদি দুপুরে রান্না করা হয় এবং তা ভালোভাবে সংরক্ষণ করা না হয়, তাহলে রাতে খেলে পেটে সমস্যা হতে পারে। এছাড়া গুল বা তামাক সেবন এবং ধূম্যপান পরিহার করতে হবে। এসব থেকে মুখের দুর্গন্ধ আরও বেশি ছড়ায়।

 

একুশে সংবাদ/এনএস

Link copied!