AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

তীব্র তাপদাহে পুড়ছে রাজধানীসহ গোটা দেশ


Ekushey Sangbad
বেলায়েত হোসেন, ঢাকা
০৪:০৫ পিএম, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪
তীব্র তাপদাহে পুড়ছে রাজধানীসহ গোটা দেশ

এই মুহূর্তে ঢাকাসহ দেশের পাঁচ বিভাগ এবং দুই জেলার ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ। যা অব্যাহত থাকবে আরো কয়েকদিন। আবার এই সময়ের মধ্যে তাপমাত্রা আরো বাড়তে পারে।

উষ্ণ বাতাস আর তীব্র দাবদাহে বিপর্যস্ত রাজধানীসহ সারা দেশের জনজীবন। যারা জীবন-জীবিকার তাগিদে ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন তাদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে ভ্যাপসা গরম আর তীব্র দাবদাহের। বেশি বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া দিনমজুর, রিকশাচালক, হকার, আর নিম্ন আয়ের মানুষ। এই গরমে পেটের দায়ে বাধ্য হয়েই রোদ-গরম উপেক্ষা করে কাজ করতে হচ্ছে তাদের।

সোমবার (১৫ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর মহাখালী, পল্টন, সেগুনবাগিচা, মতিঝিল, শাহবাগ, নিউমার্কেট এলাকা ঘুরে দেখা যায়, রিকশাচালক ও অন্যান্য শ্রমজীবী মানুষজন ছায়াযুক্ত স্থানে বসে একটু প্রশান্তি খোঁজার চেষ্টা করছেন। যারা রাস্তায়-ফুটপাতে বসে চা-পান বিক্রি করেন তারাও রোদের তীব্রতা থেকে বাঁচতে মাথায় ছাতা নিয়ে বা উপরে ব্যানার দিয়ে সামিয়ানা টানিয়েছেন। 

মহাখালীতে যাত্রীর জন্য অপেক্ষায় থাকা রিকশাচালক মনু মিয়া বলেন, এমন রোদ আর গরম জীবনে দেখি নাই। বারবার গলা শুকিয়ে যায়। সকাল থেকে কয়েক লিটার পানি খাইছি। রোদে শরীরের সব পানি শুষে নেয়। একটা ট্রিপ মারার পর বিশ্রাম নিতে হচ্ছে। এভাবে বেশিক্ষণ কাজ করতে পারবো না। এখন গ্যারেজে চলে যাব। আবার রোদ কমলে বিকেলে কিংবা সন্ধ্যার দিকে বের হবো।

তালেব নামের আরেক রিকশা চালক বলেন, গত কয়েকদিন ধরেই অনেক গরম। একটু বৃষ্টি হলে শান্তি লাগতো। আর আজকে সকাল থেকে রোদের তীব্রতা অনেক বেশি। সঙ্গে অনেক গরমও লাগছে। তারপরও এই রোদের মধ্যে কাজ করছি। ঘরে বসে থাকলে তো আর পেটে ভাত পড়বে না।

তাপপ্রবাহে কষ্টে পড়েছেন মোটরসাইকেল রাইডশেয়ারিং করে জীবিকা নির্বাহ করেন এমন অনেকেই। বেশ কয়েকজন জানালেন, প্রচণ্ড রোদের কারণে মানুষজন এখন মোটরসাইকেলে যেতে আগ্রহী নয়। সেজন্য দীর্ঘসময় অপেক্ষা করেও কোনো ট্রিপ পাওয়া যাচ্ছে না। আবার রোদেও কষ্ট করতে হচ্ছে।

মানুষ-মানুষের জন্য

সেলিম হোসেন নামের এক মোটরসাইকেল চালক বলেন, সকাল থেকে মাত্র দুটি ট্রিপ পেয়েছি। একটি পান্থপথ থেকে মতিঝিল আরেকটি মতিঝিল থেকে নিউমার্কেট। প্রচণ্ড রোদ আর গরম মানুষ বাইকে চড়তে চাচ্ছে না। আমরা নিজেরাই দুর্বল হয়ে গেছি। সন্ধ্যার পরে বের হওয়া ছাড়া উপায় নেই। এই রোদে থাকলে অসুস্থ হয়ে যাব।

অপরদিকে সহসাই এমন পরিবেশ স্বাভাবিক হবে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

ঢাকা, রংপুর, নীলফামারী জেলা এবং রাজশাহী, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের চলমান এই তাপপ্রবাহ আরো কয়েকদিন অব্যাহত থাকবে। সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে।

 

একুশে সংবাদ/বিএইচ

Link copied!