AB Bank
ঢাকা মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ, ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

কালাপাহাড়ে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে গুলি ও বিস্ফোরক উদ্ধার


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি,মৌলভিবাজার
০৩:১২ পিএম, ১৫ আগস্ট, ২০২৩
কালাপাহাড়ে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে গুলি ও বিস্ফোরক উদ্ধার

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার কালাপাহাড়ে জঙ্গিদের নতুন আস্তানায় অভিযান চালিয়ে গুলি ও বিস্ফোরক উদ্ধার করেছে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি)। উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নে কালাপাহাড় এলাকায় সিটিটিসি’র অভিযান চলছে। তাদের সঙ্গে নতুন জঙ্গি সংগঠন ইমাম মাহমুদ কাফেলার তিন জঙ্গি রয়েছে।

 

মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) সকালে আটক জঙ্গিদের নিয়ে অভিযানে যায় সিসিটিসি।

 

অভিযানের নেতৃত্বে রয়েছেন সিটিটিসি প্রধান মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানসহ সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। অভিযানে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সার্বিক সহযোগিতা করছে। ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, মঙ্গলবার সকাল থেকে ১০-১২টি মাইক্রোবাস ও অন্যান্য গাড়ি যোগে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছান। জঙ্গি আস্তানার পূর্ব দিকে পাহাড়ি এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ব্যাপক তৎপরতা তারা সকাল থেকেই দেখছেন।

 

জানা যায়, সোমবার সকালে কর্মধা ইউনিয়নের আছকরাবাদ বাজার থেকে গাড়িচালক ও স্থানীয় লোকজন ১৭ জন জঙ্গিকে আটক করে কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদে আটকে রাখে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ও পরে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ঘটনাস্থলে আসে। দিনভর অপেক্ষার পর রাতে সিটিটিসির প্রধান মোহাম্মদ আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে ঢাকা থেকে সোয়াতের একটি টিম কর্মধা ইউনিয়ন পরিষদে এসে পৌঁছায়।

 

রাতে প্রেস ব্রিফিংয়ে মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, আটককৃতরা নতুন জঙ্গি সংগঠন ‘ইমাম মাহমুদ কাফেলা’র সদস্য বলে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। আমরা আগেই বলেছিলাম এখানে তাদের আরও আস্তানা আছে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার তারা আস্তানা থেকে পালানোর চেষ্টাকালে স্থানীয়রা তাদের আটক করেন। আটকদের মধ্যে ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ারসহ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি রয়েছেন। আমার ওই এলাকায় আরও অভিযান পরিচালনা করবো। তাদেরকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদেরও প্রয়োজন। আশা করি তাদের কাছ থেকে অনেক তথ্য পাওয়া যাবে। এরপর বিস্তারিত বলা যাবে।

 

প্রেস ব্রিফিংয়ের পূর্বে কঠোর বেষ্টনীর মধ্যে তিনটি মাইক্রোবাসে আটক ১৭ জনকে পুলিশি পাহারায় মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ লাইনে নেয়া হয়।

 

প্রসঙ্গত, কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের পূর্ব টাট্টিউলি গ্রামের পাহাড়ি জুগি টিলার বাজার সংলগ্ন বাইশহালি টিলা এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি গত শুক্রবার বিকেল থেকে গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন, সোয়াট ও পুলিশের বিপুল সংখ্যক সদস্যরা ঘিরে রাখে। পরে শনিবার ভোর থেকে সকাল পর্যন্ত অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সিটিটিসি প্রধানের নেতৃত্বে সিটিআই বিভাগের একটি টিম সোয়াত ওই বাড়িতে ‘অপারেশন হিলসাইড’ পরিচালনা করে। প্রায় ৪ ঘণ্টাব্যাপী অভিযানের সময় বিনা বলপ্রয়োগে চারজন পুরুষ ও ৬ জন নারী জঙ্গিকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের তিন শিশুকে হেফাজতে নেয়া হয়। পরে আস্তানাটিতে ব্যাপক তল্লাশি চালিয়ে প্রায় ৩ কেজি বিস্ফোরক ও ৫০টির মতো ডেটোনেটর উদ্ধার করা হয়। যেগুলো দিয়ে গ্রেনেডসহ হাই এক্সপ্লোসিভ তৈরি করা হয়। এছাড়া ৩ লাখ ৬১ হাজার টাকা, প্রশিক্ষণ সামগ্রী, কমব্যাট বুট, বক্সিন ব্যাগ এবং কয়েক বস্তা জিহাদি বই জব্দ করা হয়।

 

একুশে সংবাদ/স/এসএপি

Link copied!