AB Bank
ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী
চাকরিচ্যুত কনস্টেবল শওকত

মানবতার কল্যাণে শেষনিঃশ্বাস পর্যন্ত থাকব


Ekushey Sangbad
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
০৬:২৬ পিএম, ২৭ এপ্রিল, ২০২৩
মানবতার কল্যাণে শেষনিঃশ্বাস পর্যন্ত থাকব

‍‍`কখনো ভালো কিছুর জন্য ত্যাগ স্বীকার করতে হয় ৷ তাই স্বেচ্ছায় নিজেকে সরিয়ে নিলাম। ইনশাআল্লাহ মানবতার কল্যাণে শেষনিঃশ্বাস পর্যন্ত থাকব।‍‍`

 

নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে একথাগুলো বলেন ৭১ দিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় চাকরিচ্যুত কনস্টেবল শওকত। 
 

‘মানবিক’ পুলিশ হিসেবে পরিচিত পুলিশ কনস্টেবল শওকত হোসেন চাকরিচ্যুত হয়েছেন। ১৬ এপ্রিল তার চাকরিচ্যুতির আদেশ হয়। আদেশে সই করেছেন সিএমপির বন্দর বিভাগের উপ-কমিশনার শাকিলা সুলতানা।

 

আদেশে বলা হয়, ৭১ দিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকা এবং তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এর আগে দীর্ঘদিন কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় বিভাগীয় পদক্ষেপ নেয় পুলিশ।

 

চাকরিচ্যুতির আদেশে বলা হয়েছে, ‘অভিযুক্ত (শওকত হোসেন) শারীরিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত, পারিবারিক ও ব্যক্তিগত সমস্যা থাকায় এবং বেওয়ারিশ মানুষ নিয়ে মানবিক কার্যক্রমে ব্যস্ত থাকায় পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি করা তার পক্ষে সম্ভব নয়’। লিখিতভাবে এমন বক্তব্য কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

 

বৃহস্পতিবার এক গণমাধ্যমকে শওকত বলেন, মানুষের সেবা করতে হলে আমি হয়তো ডিউটি করতে পারব না। আর ডিউটি করতে গেলে হয়তো মানুষের সেবা করতে পারব না। তাই আমি মানুষের সেবাটাকেই বেছে নিলাম। আমি মানুষের সেবা করতে চাই।

 

কনস্টেবল শওকত হোসেনের চাকরিচ্যুতির আদেশের মধ্য দিয়ে বন্ধ হয়ে গেল সিএমপির মানবিক পুলিশ ইউনিট। ২০১৯ সালে তৎকালীন সিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমানের আদেশে মানবিক পুলিশ ইউনিটের যাত্রা শুরু হয়েছিল। তখন কমিশনার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৫০ হাজার টাকাও দিয়েছিলেন।

 

বেওয়ারিশ মানুষদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে ইতিবাচক কার্যক্রমের মাধ্যমে পুলিশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করায় তখন গণমাধ্যমে পুলিশের এই উদ্যোগ ব্যাপকভাবে প্রশংসিত হয়েছিল।

 

সিএমপির এমন উদ্যোগের পর কিছু পুলিশ সদস্য মানবিক কার্যক্রম বাড়িয়ে দেন। অনেকেই নিজদের নামের আগে ‘মানবিক’ শব্দটি ব্যবহার শুরু করেন। এখন যে মানবিক পুলিশিংয়ের প্রচারণা চালানো হয়, সেটার ভিত্তি পেয়েছিল সিএমপির উদ্যোগের কারণে।

 

পুলিশ কনস্টেবল শওকত হোসেন নোয়াখালীর কবিরহাট থানা এলাকার বাসিন্দা। ২০০৫ সালে কনস্টেবল পদে যোগ দেন শওকত। ২০০৯ সালে ঢাকা থেকে বদলি হন পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে। এরপর বদলি হয়ে চট্টগ্রাম বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতালে পদায়িত হন। চাকরির পাশাপাশি তিনি তিন বছরের ডিপ্লোমা এবং দুই বছরের প্যারামেডিকেল কোর্স সম্পন্ন করেন।

 

২০১১ সাল থেকে তিনি চট্টগ্রামে অসহায়, দুস্থ ও বেওয়ারিশদের চিকিৎসাসেবা দিয়ে প্রশংসিত হন। সামাজিত যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ ভাইরাল হয় তার বিভিন্ন কার্যক্রম। ২০১৯ সালে সিএমপির তৎকালীন কমিশনার মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমানের উদ্যোগে চট্টগ্রামে যাত্রা করে ‘মানবিক পুলিশ ইউনিট’।

 

সিএমপির উপ-কমিশনার (সদর) মোহাম্মদ আবদুল ওয়ারীশ বলেন, বিভাগীয় পদক্ষেপের অংশ হিসেবে কনস্টেবল শওকত হোসেনের চাকরিচ্যুতির আদেশ হয়েছে। এ আদেশের বিষয়ে তিনি চাইলে সিএমপি কমিশনারের কাছে আপিল করতে পারেন। তাছাড়া প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনালেও যেতে পারেন।

 

একুশে সংবাদ/আ.জ.প্র/জাহাঙ্গীর

Link copied!