AB Bank
ঢাকা বুধবার, ১৭ জুলাই, ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

জেঁকে বসেছে হাড়কাঁপানো শীত


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
০৫:৩২ পিএম, ১১ ডিসেম্বর, ২০২০
জেঁকে বসেছে হাড়কাঁপানো শীত

সারাদেশে হুট করেই জেঁকে বসেছে হাড়কাঁপানো শীত। দেশের উত্তরাঞ্চলে শীতের প্রকোপ আরো বেশি। প্রতিদিনই কমছে তাপমাত্রা। কনকনে এই শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন।

শীতের কারণে শহরে কমে গেছে যান চলাচল। বাজার-ঘাটেও কমেছে মানুষের আনাগোনা। শীতের কারণে গবাদিপশু নিয়ে বিপাকে খামারীরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ঘন কুয়াশায় আচ্ছন্ন রাস্তাঘাট, নদ-নদী, খাল-বিল ও ফসলি জমি। শীতবস্ত্রের অভাবে ঠান্ডায় কাঁপছে নদ-নদী অববাহিকায় বসবাসকারী ও চরাঞ্চলের মানুষ। জীবিকার সন্ধানে ঘর থেকে বের হওয়া দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষ সাধ্য অনুযায়ী নিজেদের জড়িয়ে নিয়েছেন গরম কাপড়ে। তবে গরম কাপড় না থাকায় অনেকে হালকা কাপড় পরিধান করে বেরিয়ে পড়েছেন কাজের সন্ধানে। শীতবস্ত্রের অভাবে অনেকেই তাকিয়ে রয়েছেন সরকারি ও বেসরকারি সহায়তার অপেক্ষায়। অনেককেই খড় খুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

কালিহাতী (টাঙ্গাইল) সংবাদদাতা জানান, মঙ্গলবার রাত থেকে ঘন কুয়াশার কারণে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতু থেকে পৌলি ব্রিজ পর্যন্ত দীর্ঘ ১২ কিলোমিটার রাস্তায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে বেশ কিছু সময়ের জন্য বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপর দিয়ে সাময়িকভাবে যান চলাচল বন্ধ থাকার পর আবারও যান চলাচল শুরু হয়েছে। যান চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়ে অসংখ্য মানুষ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশা কিছুটা কাটলেও যান চলাচল পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। এখনো থেমে থেমে চলছে যানবাহন।

কামারখন্দ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, সেতুর ওপর যানবাহন তিন ঘণ্টা বন্ধ থাকায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব ও পশ্চিম পাড়ে যানবাহনের দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টার পর কুয়াশা কিছুটা কমে গেলে সেতুর ওপর দিয়ে ফের যানবাহন চলাচল শুরু হয়।

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, গত কয়েক দিন ধরে সিরাজগঞ্জে কুয়াশার দাপট বেড়েছে। গত তিন দিন সিরাজগঞ্জে সূর্যের দেখাই মেলেনি। সন্ধ্যা নামার সঙ্গে সঙ্গে কুয়াশায় ঢেকে যাচ্ছে মাঠঘাট। রাতভর বৃষ্টির মতো ঝরছে শিশির। দুপুরের দিকে কুয়াশা ভেদ করে সূর্য উঁকি দিলেও তা ক্ষণস্থায়ী; তাতেও নেই উত্তাপ। কুয়াশার সঙ্গে হালকা বাতাস যোগ হওয়ায় ভোগান্তিতে পড়েছে চলনবিল ও যমুনাপাড়ের অসহায় মানুষ। শীতের হাত থেকে বাঁচতে ফুটপাতের গরম কাপড়ের দোকানে ভিড় বেড়েছে। শীতের দাপট থেকে বাঁচতে অনেকেই খড়কুটো জ্বালিয়ে আগুন পোহাচ্ছে। শীতের হাত থেকে রক্ষার জন্য সরকারি কোনো সহায়তা বা কম্বল বিতরণের খবর পাওয়া যায়নি।

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতা জানান, চলতি মৌসুমে শীত পড়তে শুরু করেছে মৌলভীবাজারের চা-বাগান ও বনাঞ্চল অধ্যুষিত কমলগঞ্জে। এতে জনজীবনে বিপর্যয় নেমে আসছে। চা-শ্রমিক জনগোষ্ঠীসহ বিভিন্ন এলাকায় ঠাণ্ডাজনিত বিভিন্ন রোগ সর্দি, কাশি, জ্বরের প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। হাটবাজারে ও ফুটপাতে গরম কাপড় কিনতে মানুষ ভিড় করছে। বুধবার দিনভর সূর্যের আলো দেখা যায়নি। ফলে বনাঞ্চল ও চা-বাগান এলাকা সমৃদ্ধ থাকার কারণে ঠাণ্ডা বেশি অনুভূত হচ্ছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে কাজকর্মে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। কমেছে দিনমজুরদের আয়-রোজগার। হাসপাতাল ও প্রাইভেট চিকিৎসাকেন্দ্রে রোগীর ভিড় বাড়ছে। শিশু ও বয়স্ক লোকদের মধ্যে এসব রোগ বেশি দেখা যাচ্ছে।

তিতাস (কুমিল্লা) সংবাদদাতা জানান, ঘন কুয়াশার আস্তরণে ঢাকা পড়েছে কুমিল্লার তিতাস। বুধবার দিন গড়িয়ে শেষ বিকালেও সূর্যের দেখা মেলেনি। বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে খেটে খাওয়া মানুষের জীবনযাত্রা। শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে অনেকে হাসপাতালে ভিড় করছে। উপজেলার মজিদপুর উপস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. ইমদাদুল হক শুভ বলেন, বৃদ্ধ ও শিশুরা ঠাণ্ডা, কাশি ও হালকা জ্বরে আক্রান্ত হচ্ছে। এটা মূলত মৌসুমভিত্তিক ঠাণ্ডার প্রকোপে হচ্ছে। এতে ভয়ের কিছু নেই।

একুশে সংবাদ/এআরএম

Link copied!