ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন, ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

কোভিডে   চুম্বনহীন প্রেম  না নিকোশিত হেম


Ekushey Sangbad
নাজমিন মর্তুজা,অস্ট্রেলিয়া
১০:৪৬ এএম, ২৬ এপ্রিল, ২০২১
কোভিডে   চুম্বনহীন প্রেম  না নিকোশিত হেম

কবে থেকে মুখে মাস্ক লাগিয়ে বসে আছি। মাস্কময় জীবন আমাদের,কবে রেহাই মিলবে,আদতে স্বাভাবিক জীবনে কবে ফিরতে পারবে মানুষ কেউ জানে না।

কোভিড আতংকে জীবন নাজেহাল। কোভিড কালে একটু ভিন্ন প্রসঙ্গ হলেও কোভিডকে যুক্ত করেই লেখাটা। কোভিড-১৯ আমাদের স্বাভাবিক জীবনের ছন্দ পতন করে দিয়েছে , বদলে দিয়েছে দৈনন্দিন কাজ কারবার গুলো, আমাদের যৌন সম্পর্কের মাঝেও এসেছে আমুল পরিবর্তন ।

এসেছে চুমুতেও বিরতি -“শুধু করোনা কারণে বিশ্ব ধুকছে চুমুর অভাবে ! সংক্রমণের ভয়ে রুগ্ন 'চুম্বন শিল্প' ! চুমু তো দূরের কথা,হাত মেলানো বন্ধ করেছে,সারা পৃথিবী।

তবে আবেগের চুমু শিল্প এখন রুগ্ন শিল্প হয়ে পড়েছে।  ভাবুন তো ! চুমু ছাড়া কি,প্রেম হয়?  এই করোনা আতঙ্ক যেনো মানুষের প্রেম,হাসি ছিনিয়ে নিয়েছে। পৃথিবীর মূর্খ থেকে বিজ্ঞ, সবাই এখন চুম্বনকে বিরতির খাতায় রেখেছে।”

এই চুমু বা যৌন সম্পর্ক কমিয়ে অনেকের মনেই নানান কথার ফুলঝুরি , কিন্তু এগুলো কি কারও সাথে শেয়ার করা যায় , না বলা যায় ? , এই মহামারী কালে মানুষ কি ভাববে , জীবন যেখানে নাজেহাল , সেখানে যৌনতার কথা বলা আদিখ্যেতা ছাড়া আর কিছু নয় ।

আমরা জানি “বেশ কিছু দেশ রয়েছে যারা চুমুকে উষ্ণ অভ্যর্থনা বলে জানেন।আমরা জানি গভীর প্রেমের মানসিক যৌন তরঙ্গ অনুভূতি হিসাবে চুমুর গুরুত্ব অপরিসীম।এতে নাকি বন্ধন অটুট থাকে। যেহেতু, চুমু খেতে গেলে উভয়ের মুখ এবং নাসিকা দুজনেরই স্পর্শ হয়।

সেহেতু ভয় তো থাকেই।কেউ দেখে ফেলার নয়, সংক্রমণের। “ সব ধারনাই ঠিক আপনার , তবে জানতে পারলে নিরাপদ থাকা যায় , কদিন হলো একটা খবর পড়েছিলাম -“আলিঙ্গনে মৃত্যুর ভয়। ছোঁয়াছুঁয়ি বন্ধ। আগে-পিছে করোনাভাইরাস সংক্রমণের শঙ্কা। তবু ভালোবাসা থেমে নেই। ফেস মাস্কের ওপর দিয়েই গভীর চুমুতে মগ্ন হংকংয়ের এক যুগল।”

স্বাভাবিক বটে ! তা না হলে ঐ যে কামহীন প্রেম নিকোসিত হেম টাইপ অবস্থা হবে । কোয়ারেন্টাইন জীবন গারদ জীবন হবে । সমস্যা থাকলে সমাধান অবশ্যই থাকে । রোগ যেমন হয়েছে .. তার প্রতিশেধকও বের হবে আজ অথবা কাল , হবেই হবে ,আর এই অসময়েও কি করে বাঁচাতে হবে নিজেকে , সম্পর্ককে, এবং চাহিদাকে , সেটা জানতে অসুবিধা কোথায় ।

এমনিতেই প্যানিক সবাই , পৃথিবীর অসুখে , তারপর আছে আরও কত কত সমস্যা ! সমস্যাও যেমন আছে সমাধানও আছে ঢের । আপনাদের  মাথায় রাখতে হবে অনেক মানুষের শরীরে এই ভাইরাস থাকলেও, কোনো উপসর্গ থাকে না। ফলে অাপনার মনে হতে পারে কোনো সমস্যা নেই।  যাই চা খাই , একটা সিগারেট ফুঁকে আসি  ।

, স্ত্রীর হাতের পাবদা মাছের তরকারিটা আজ দুপুরে জমিয়ে খেয়েছেন ,সেই খুশিতে একটা   চুমু দিলে কি সমস্যা ? আমার তো কোন উপসর্গ নাই , বেচারী কোয়ারেন্টাইনে একা রান্না করছে !

কিংবা লাইলী মজনুটাইপ প্রেমিক প্রেমিকগণ  কত্তদিন কোয়ারেন্টানে বন্দি , বেলকুনিতে বহুদিন পর বান্ধবীকে পেয়ে , সুযোগ আর আবেগের খিচুরি পাকিয়ে খাওয়াতে যাবেন না , ওর জন্য শেষ খাবার ঐটাই হতে পারে  কে জানে !  আপনি সম্প্রতি  এমন একজনকে চুমু খেয়েছেন, যার শরীরে পরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা গেছে।

আপনি এখন কী করবেন ? আপনি যদি দেখেন আপনি এমন কাউকে চুমু খেয়েছিলেন বা তার সংস্পর্শে এসেছিলেন যার শরীরে পরে উপসর্গ দেখা গেছে, সাথে সাথে নিজেকে আইসোলেট করে ফেলুন। তারপর নিজের শরীরের দিকেও নজর রাখুন। যদি দেখেন আপনার শরীরেও উপসর্গ দেখা দিয়েছে, তাহলে সতর্ক হয়ে যান।

নিজের ব্যাপারে এবং একে অন্যের ব্যাপারে আমাদের দায়িত্বশীল হওয়া জরুরী। আপনার শরীরে যদি কোনো উপসর্গ দেখা দেয় এবং সম্প্রতি যদি আপনি কাউকে চুমু খেয়ে থাকেন, তাহলে আপনার উচিৎ তাকে আপনার উপসর্গের কথা জানানো।

একইভাবে আপনি যদি এমন কাউকে চুমু খেয়ে থাকেন যার শরীরে পরে উপসর্গ দেখা দিয়েছে, তাহলে আপনারও উচিৎ জানার সাথে সাথে নিজেকে অন্যদের থেকে আলাদা করে ফেলা। অনেকেই ভাবছেন -এই সময়ে  কিভাবে সম্পর্ক বজায় রাখবো, এখন একা হয়ে যতে চাইনা? করোনাভাইরাস প্যানডেমিকের কারণে বহু মানুষই এখন নতুন করে ভাবছেন ভালো একটি যৌন জীবন কী ? সেক্ষেত্রে অনেক মানুষ অনেক সৃজনশীল আচরণ করছেন। আমি  কিছু লেখা পড়েছি এ বিষয়ে , অনেক মানুষ যৌন-উদ্দীপক লেখালেখি বিনিময় করছেন।

অনেক প্রেমিক-প্রেমিকা ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় বসেই ডেটিং করছেন। আসলে আপনি একটু সৃজনশীলতার পরিচয় দিলেই, কল্পনাশক্তি একটু বাড়িয়ে কারো সাথে মুখোমুখি না হয়েও সেক্স উপভোগ করতে পারেন। বিশেষজ্ঞরা এই সময়ে  নতুন কোনো যৌনসঙ্গী জোগাড়ের পক্ষে কোনোভাবেই পরামর্শ দিচ্ছেন না।

কারণ সেক্ষেত্রে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি প্রবল। নতুন সম্পর্ক নতুন আবেগ , লাগামহীন হয়ে যাবার প্রবল সম্ভাবনা , সে ক্ষেত্রে করোনাও আপনাকে আলিঙ্গন করতে পারে অনায়াসে । তবে আশার কথা হচ্ছে -আপনি যদি একটি সম্পর্কের মধ্যে থাকেন এবং দুজন যদি একই সাথে একই বাড়িতে এবং একই পরিচিত গন্ডির ভেতর থাকেন, তাহলে উদ্বিগ্ন হওয়ার তেমন কোনো কারণ নেই। 

তবে দুজনের মধ্যে একজনের শরীরে যদি করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ দেখা যায়, তাহলে সাথে সাথে দূরত্ব তৈরি করতে হবে। যার শরীরে উপসর্গ, তাকে বাড়িতেই আইসোলেশনে' চলে যেতে হবে। আর হ্যাঁ এটা ভেবে নেয়া ঠিক হবে না যে আপনার শরীরে অল্পস্বল্প উপসর্গ থাকলে তাতে আপনার সঙ্গীর কিছু হবে না। উপসর্গ দেখা দিলেই তার কাছ থেকে দূরে থাকুন।

চিকিৎসকরা ড্রপলেট সিস্টেমের জন্য ,একজনকে আরেকজনের থেকে কমপক্ষে ৩ ফুট দূরত্বে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন। একে অপরকে চুমু খেলে সংক্রমণের সম্ভাবনা অনেকটা বেশি চিকিৎসকদের মতে। আপনি দিব্বি আছেন উপসর্গ ছাড়াই কিন্তু তারপরও আপনি হয়ত আরেকজনকে সংক্রমিত করে ফেলবেন। তাই সাবধান ! এটা কোন যেনো তেনো রোগ না নোভেল করোনা ।

* বিভিন্ন ফিচার থেকে কিছু তথ‍্য নেয়া,কোট আনকোট করা। কারও লেখার সাথে লাইন মিলে গেলে প্লিজ নামটি বলবেন আমি সংযুক্ত করে দেবো কোট আনকোট করে। ধন‍্যবাদ। সুস্থ থাকুন নিরাপদে থাকুন। ( ফেসবুক স্ট‍্যাটাস থেকে নেয়া)