ঢাকা মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩, ১৮ মাঘ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. পডকাস্ট

পশ্চিমবঙ্গের হোটেলে নারীকে ধর্ষণ, ৩ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
১১:১৭ এএম, ২ ডিসেম্বর, ২০২২
পশ্চিমবঙ্গের হোটেলে নারীকে ধর্ষণ, ৩ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় একটি আবাসিক হোটেলে ৩৫ বছর বয়সী এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে তিন বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

 

বুধবার (৩০ নভেম্বর) রাতে নিউমার্কেট এলাকার একটি হোটেল থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন— মো. রাসেল এসকে (৩৭), মো. কায়সার চৌধুরী (৩৬) ও মো. আব্দুল্লাহ আল মিজান (৩৭)। তারা ব্যবসায়ী ও ঢাকার বাসিন্দা বলে জানিয়েছে পুলিশ। তাদের আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, অভিযুক্তরা চার দিন আগে কলকাতায় আসেন। নির্যাতিতার সঙ্গে তাদের ঘনিষ্ঠতা গড়ে ওঠে এবং পরে শারীরিক সম্পর্ক ও প্রতারণা করে বলে অভিযোগ।

 

ভুক্তভোগীর অভিযোগ, ধর্ষণের পর অভিযুক্তরা নিরাপত্তা রক্ষীদের ডেকে তাকে হোটেল থেকে বের করে দেয়, যদিও তিনি হোটেলের রুম ভাড়া নিয়েছিলেন।

 

তিনি আরও জানান, আসামিরা ভুক্তভোগী অসুস্থ বোধ করছেন এবং ওষুধের প্রয়োজন বলে জানালেও তারা রেহাই দেননি। মধ্যরাতে নিউমার্কেট থানায় ঘটনাটি ঘটে বলে জানান ওই নারী।

 

নিউমার্কেট থানার একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, বুধবার রাতে ওই নারী তার আসল পরিচয়পত্র ব্যবহার করে হোটেলে উঠেছিলেন। আমরা তার কাছ থেকে একটি অভিযোগ পেয়েছি এবং ধর্ষণ এবং প্রতারণা সংক্রান্ত আইপিসি ধারায় একটি মামলা নথিভুক্ত করেছি। তদন্তের সময় তিন অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 

পুলিশ জানায়, তারা হোটেল এবং এর আশপাশের এলাকা থেকে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছে এবং মামলাটি আরও তদন্ত করছে। শিগগিরই ম্যাজিস্ট্রেটের সামনে ওই নারীর জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে।

 

হোটেল কর্মচারীদের বক্তব্যও আমলে নেওয়া হচ্ছে বলেও জানায় পুলিশ।

 

প্রাথমিকভাবে, হোটেল ম্যানেজার দাবি করেন, তিনি ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানেন না, তিনি তিনদিনের ছুটিতে ছিলেন। ‘ঘটনায় হোটেলের কোনো ভূমিকা ছিল না। ভুক্তভোগী ও আসামিদের মধ্যে ঘটেছে। এমনকি গ্রেপ্তারও হোটেলের বাইরে হয়েছে। আমরা আমাদের দর্শনার্থীদের তথ্য শেয়ার করতে পারি না। আমরা মামলার কোনো অংশ নই। তবে আমরা পুলিশকে সহযোগিতা করছি’, বলেন ম্যানেজার।

 

একুশে সংবাদ/আ.বা/পলাশ