AB Bank
ঢাকা মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
BBS Cables
Janata Bank
  1. জাতীয়
  2. রাজনীতি
  3. সারাবাংলা
  4. আন্তর্জাতিক
  5. অর্থ-বাণিজ্য
  6. খেলাধুলা
  7. বিনোদন
  8. শিক্ষা
  9. তথ্য-প্রযুক্তি
  10. অপরাধ
  11. প্রবাস
  12. রাজধানী

কোটা আন্দোলন: মেট্রোরেলে উপচে পড়া ভিড়


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০৭:১৬ পিএম, ১০ জুলাই, ২০২৪
কোটা আন্দোলন: মেট্রোরেলে উপচে পড়া ভিড়

শিক্ষার্থীদের কোটা সংস্কারের দাবিতে সড়ক অবরোধের কারণে ঢাকায় গণপরিবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ যাত্রীরা। গণপরিবহন না পেয়ে অনেকে মেট্রোরেলে গন্তব্যে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ফলে মেট্রোরেল স্টেশনগুলোতে যাত্রীর চাপ বেড়ে যায় কয়েক গুণ।

বুধবার (১০ জুলাই) তৃতীয় দফায় সকাল-সন্ধ্যা ‘বাংলা ব্লকেড’ কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীরা। তারা রাজধানীর আগারগাঁও, ফার্মগেট, কারওয়ানবাজার, বাংলামোটর, শাহবাগ, পল্টনসহ রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে অবস্থান নেয়ায় যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

তাই সকাল থেকেই মেট্রো স্টেশনে যাত্রীরা হুমড়ি খেয়ে পড়েন। এ সময় টিকিটের লম্বা লাইন সিঁড়ি পর্যন্ত চলে আসে। অনেকে ঘণ্টাখানেক দাঁড়িয়ে টিকিট কেটেও ভিড়ের কারণে ট্রেনে উঠতে পারেননি। তাতে প্ল্যাটফর্মেও বাড়তে থাকে ভিড়।

যাত্রীরা বলেন, ‘কারওয়ানবাজার এলাকায় অনেক শিক্ষার্থী অবস্থান নিয়েছেন। কোনো গাড়ি যেতে দিচ্ছিল না। সে জন্য কারওয়ানবাজার থেকে মেট্রোরেলে মতিঝিলে আসছেন তারা। টিকিট পেতেও তাদের অনেক সময় লেগেছে।’

মতিঝিলগামী এক যাত্রী বলেন, ‘দুইটা ট্রেন মিস করেছি। পরে ট্রেনে কোনোমতে উঠে মতিঝিল এসেছি। ট্রেনের ভেতরে গায়ে গায়ে লাগা যাত্রী। ভীষণ চাপ ট্রেনের ভেতরে। কী-যে অবস্থা। আমি নিজেও ট্রেনের ভেতরে কোনোভাবে দাঁড়িয়েছিলাম, অনেক কষ্ট হয়েছে।’

শ্যামলীর একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা উম্মে হাবিবা বলেন, ‘বাচ্চা নিয়ে ট্রেনের ভেতরে ভীষণ কষ্ট হয়েছে। আমি প্রায়ই মেট্রোরেলে যাতায়াত করি। কিন্তু আজ বুঝতে পেরেছি মেট্রোরেলের ভিড় কাকে বলে। ৩টা ট্রেন মিস করে তারপর ট্রেনে উঠতে পেরেছি। আমার বাচ্চা রাগ করে আমাকে বলেছে, আব্বু আজ এত ভিড় কেন? চলো গাড়িতে যাই। তাকে তো বলতে পারছি না যে গাড়ির চাকা বন্ধ হয়ে আছে।’  

এদিকে সর্বোচ্চ আদালত কোটার ওপর স্থিতাবস্থা জারি করলেও সংসদে আইন পাস করে সরকারি চাকরির কোটাব্যবস্থার ‘যৌক্তিক’ সংস্কার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রত্যাশীরা।

তাদের দাবি, শুধু পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য সর্বোচ্চ ৫ শতাংশ কোটা রেখে সরকারি চাকরির সব গ্রেডে সব ধরনের কোটা বাতিল করতে হবে।

সন্ধ্যা ৭টায় আনুষ্ঠানিকভাবে রায়ের প্রতিক্রিয়া ও পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলকারীরা।

 

একুশে সংবাদ/আ.ট.প্র/জাহা
 

Link copied!