ঢাকা সোমবার, ১৫ আগস্ট, ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
ekusheysangbad QR Code
Janata Bank
Rupalibank
হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে

প্রকৌশলী সুব্রত সাহা হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন 


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০১:৩৪ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২২
প্রকৌশলী সুব্রত সাহা হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের গ্রেফতারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন 
ছবি: একুশে সংবাদ

ছবি: একুশে সংবাদ

হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে কর্মরত অবস্থায় প্রকোশলী সুব্রত সাহা হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 


সোমবার (১৮ জুলাই) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নজরুল হামিদ মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে চুয়েট ১৮ তম ব্যাচ এবং চট্রগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীবৃন্দ।


উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন প্রয়াত সুব্রত সাহার স্ত্রী নুপূর সাহা, প্রকৌশলী রিয়াসাত সুমন, প্রকৌশলী মাকসুদুর রহমান ভূঁইয়া, প্রকৌশলী নাসিম হাসান, প্রকৌশলী বিশ্বনাথ সাহা, প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, প্রকৌশলী শহীদ আনোয়ারুজ্জামান টিপু, প্রকৌশলী হোসেইন মনজুরুল হাসান বাপ্পী, প্রকৌশলী মিল্টন দত্ত গুপ্ত, প্রকৌশলী মোঃ তাহের।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে প্রকৌশলী রিয়াসাত সুমন বলেন, হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে কর্মরত অবস্থায় প্রকোশলী সুব্রত সাহা মৃত্যুর প্রায় দুই মাস সময় অতিবাহিত হয়েছে, পরিবার অদ্যবধি পর্যন্ত ফরেন্সিক রিপোর্ট হতে শুরু করে তদন্তের কার্যক্রমের কোনো বিষয়ে কিছু জানতে পারছে না। একটি শক্তিশালী মহল এই হত্যাকে প্রথম দিন থেকেই এটি হত্যা নয়, আত্নহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে। 

প্রকৌশলী রিয়াসাত সুমন বলেন, গত ২৫ মে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৮তম ব্যাচের প্রকৌশলী সুব্রত সাহা হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়, যা হোটেল কর্তৃপক্ষ আত্মহত্যা বলে প্রচার চালিয়ে আসছে। ওই ঘটনার দুই মাস অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত মৃত্যুর কারণ দৃশ্যমান হয়নি বা তদন্তেও বেরিয়ে আসেনি।

রিয়াসাত সুমন বলেন, মৃত্যুর কারণ হিসেবে সংশ্লিষ্ট হোটেল কর্তৃপক্ষ যেসব উদ্ভট-বানোয়াট কারণ উল্লেখ করেছে, আমরা সুব্রত পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তেমন তথ্যের কোনো সত্যতা পাইনি। অর্থাৎ তিনি কোনো মানসিক রোগী ছিলেন না এবং কখনও মানসিক রোগের চিকিৎসা নেননি। এমনকি শেয়ার বাজারে তার তেমন কোনো বিনিয়োগের কথা পরিবারের সদস্যরাও জানেন না। এক সন্তানের সুখী পরিবারের সঙ্গে সুব্রতর কোনো মনোমালিন্য ছিল না। ঘটনার দিন তিনি স্বাভাবিকভাবেই বাসা থেকে বেরিয়েছিলেন বলে জানান তিনি।

 

হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল থেকে প্রকৌশলীর মৃতদেহ উদ্ধার

 

তিনি আরও বলেন, পরিবার ও হোটেল কর্তৃপক্ষের তথ্যের ভিত্তিতে সুব্রত সাহার মৃত্যু নিয়ে আমাদের মধ্যে যথেষ্ট সন্দেহ ও উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছে। তাই চুয়েট ১৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থীসহ প্রকৌশল সমাজ মনে করে, সঠিক ও নিরপেক্ষ তদন্ত হলে এই মৃত্যুর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে কি না সেটি স্পষ্ট হবে এবং সঠিক কারণ চিহ্নিত করে অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা যাবে।

এই সময় সুব্রত সাহার স্ত্রী নুপূর সাহা বলেন, আমি এই হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও দোষীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারের দাবী জানাচ্ছি।

একুশে সংবাদ /রাফি/বাবু