ঢাকা শনিবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

দুই জেলায় স্বামী কর্তৃক স্ত্রী খুন, গ্রেফতার করল সিআইডি


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
০৩:০৪ পিএম, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
দুই জেলায় স্বামী কর্তৃক স্ত্রী খুন, গ্রেফতার করল সিআইডি

সাম্প্রতিক সময়ে নড়াইল ও জামালপুর জেলায় স্বামী কর্তৃক পৃতক পৃথক ঘটনায় স্ত্রী খুন হয়। স্বামী কর্তৃক নিশংস হত্যাকান্ডের ঘটনা গুলো গণমাদ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর বিষয় গুলো নিয়ে তদন্তে নামে সিআইডি পুলিশ। দুই জেলায় পৃথক দুটি হত্যাকান্ডের বিষয়ে আজ সকাল ১১.৪৫ মিনিটে সিআইডি সদরপ্তেরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । সিআইডি (এলআইসি) এর বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে দুই জেলায় স্বামীর হতে স্ত্রীদের নিশংস ভাবে খুন হয়। ব্রিফিংয় আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার মো: আজাদ রহমান (মিডিয়া এন্ড পাবলিক রিলেশন),অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার খায়রুল আমিন (এলআইসি), সহকারী পুলিশ সুপার সাহজাহান খান (এলআইসি), সেসময় বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর আরো বলেন,

মায়ের সামনে নড়াইল জেলার কালিয়া থানাধীন বাবরা হাচলা ইউনিয়নের উড়শীতে পারিবারিক কলহের জেরে

ধরে স্ত্রী দিপালী বেগম (৩৫) কে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করে তার স্বামী স্বামী রকিবুল গাজী (৪০) । পুলিশ জানায়, গত ২ সেপ্টেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা আনুমানিক ৭ ঘটিকার সময় তাকে হত্যা করা হয়।

দিপালীর স্বামী গ্রামের গাজী নিউ মডেল ফার্নিচার এর মালিক। ৬ বছর পূর্বে দিপালীর সাথে রকিবুল গাজীর বিয়ে হয়। বিয়ের সময় আসামী  যৌতুক হিসেবে নগদ ৫ লাখ টাকা নেয় রকিবুল গাজী । বিয়ের কিছুদিন পর আবার ১০লাখ টাকা দাবি করে। কিন্তু দিপালীর পরিবারের সদস্যরা তা দিতে অস্বীকার করে। এরপর থেকে দিপালীর উপর শুরু হয় অমানুষিক নির্যাতন। দিপালীর মা তা জানতে পেরে বসতবাড়ি বিক্রয় করে ১০ লাখ টাকা যৌতুক প্রদান করে। এই টাকা দিয়ে আসামী বাড়ি, ফার্নিচারের দোকান, কাঠের ডিজাইন করবার মেশিন ক্রয় করে। এরপর আসামী পুনরায় ৪ লাখ টাকা দাবি করে। এই টাকা আদায়ের জন্য দিপালীর উপর পুনরায় নির্যাতন শুরু হলে দিপালীর মা বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য মেয়ের বাড়িতে আসে। পরবর্তিতে উক্ত বিষয় নিয়ে কলহের জের ধরে আসামি রকিবুল দিপালীর মা এর সামনে হাতুড়ি দিয়ে দিপালীর মাথায় আঘাত করলে মাথার খুলি ফেটে মগজ বের হয়ে যায়। আশেপাশের মানুষ চিকিৎসার জন্য পল্লী চিকিৎসককে ডেকে আনলে সে জানায় যে দিপালী মৃত্যুবরণ করেছে।

এই নৃশংস হত্যাকান্ডটি স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় ব্যাপক আলোচিত হয়। বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর , এর সার্বিক দিক-নির্দেশনা ও তত্তাবধানে হত্যাকান্ডের পলাতক আসামীর সম্ভাব্য লুকিয়ে থাকবার সকল স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়।  যার ধারাবাহিকতায় সিআইডি’র একটি চৌকস টিম আত্মগোপনকৃত পলাতক আসামী রকিবুল গাজী (৪০) কে গতকাল মাধ্য রাতে সাভারের ধামসোনা হতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আসামী প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করে।

স্বামী কর্তৃক নিজ গৃহে নির্মমভাবে খুন হলো স্ত্রী, ঘাতক স্বামী সিআইডি কর্তৃক গ্রেফতার জামালপুরে দাম্পত্য কলহের জের ধরে গত ১৯আগস্ট মধ্য রাতে জামালপুর পৌরসভাধীন নয়াপাড়ার মৃত মোকছেদ আলীর মেয়ে মোসলিমা আক্তার @ ময়না (৩৮) কে তার স্বামী মোঃ রুবেল মিয়া (৪২) ম্বাসরোধ করে নির্মমভাবে হত্যা করে

হত্যাকান্ডের পরপরই ঘাতক স্বামী অজ্ঞাত স্থানে আত্মগোপন করে। এরই ধারাবাহিকতায় ভিকটিমের মা মোছাঃ সুরমেলী (৬৫) বাদী হয়ে জামালপুর মেলান্দর থানায় মোঃ রুবেল মিয়া (৪২) পিতা- আলম বাইদার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।

দায়েরকৃত অভিযোগের প্রেক্ষিতে জামালপুর সদর থানার মামলা নং-৫৭, তারিখ- ২১আগস্ট ধারা- ৩০২ পেনাল কোড- ১৮৬০ রুজু করা হয়। 

প্রায় ২ বছর পূর্বে নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর হতে রুবেল শ্বশুর বাড়ীতে ঘর জামাই হিসেবে অবস্থান করে এলাকায় রাজমিস্ত্রীর কাজ করে আসছিল। স্বামী তার নিজ গৃহে নির্মমভাবে খুন হওয়ার ঘটনাটি এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে এবং বিভিন্ন প্রিন্ট,অনলাইন ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় বেশ গুরুত্বের সাথে প্রচারিত হয়। 

উক্ত ঘটনা সংঘঠিত হওয়ার পর সিআইডি ছায়া তদন্ত শুরু করে। সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর এর সার্বিক দিক নির্দেশনায় এলআইসি’র একটি চৌকস টিম গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকার ডেমরা থানাধীন ইসলামবাগ, বাশেরপুল এলাকা থেকে মামলার একমাত্র এজাহারনামীয় আসামী-মোঃ রুবেল মিয়াকে গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী স্বীকার করে যে, অন্য একটি মেয়ের সাথে তার পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। উক্ত সম্পর্কের কথা তার স্ত্রী জানতে পারলে প্রায়শই তার সাথে ঝগড়া বিবাদে লিপ্ত হতো। এ দাম্পত্য কলহের কারণেই গত ১৯আগস্ট দিবাগত রাত অর্থ্যাৎ ২০আগস্ট রাত ১:৩০ টার সময় পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গলা টিপে শ্বাসরোধ করে নির্মমভাবে এই হত্যাকান্ড সংঘঠন করে। 

এরূপ চাঞ্চল্যকর ও পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হত্যার ঘটনার একমাত্র এজাহারনামীয় আসামীকে দ্রুততম সময়ে চিহ্নিত পূর্বক গ্রেফতার সিআইডি তথা বাংলাদেশ পুলিশের একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন বলে মনে করেন সিআইডি।

 

একুশে সংবাদ/এসএম