ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
Ekushey Sangbad
Janata Bank
করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ নির্দেশনা

শীতকালে রূপচর্চা


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
নভেম্বর ১৭, ২০২০, ০৬:৩০ পিএম
শীতকালে রূপচর্চা

প্রকৃতিতে বইছে শীতল হাওয়া, তাই এখনি প্রয়োজন ত্বকের বাড়তি যত্নের। 
হয়তো অগ্রহায়ণের একচিলতে রোদ্দুর পড়েছে বারান্দার এক কোণে কিংবা মিষ্টি হাওয়ার একটু ঝলক ঘরে পৌঁছে গেছে খোলা জানালা দিয়ে।

ঋতুর হিসাবে শীত আসতে আরও মাসখানেক। তবে শীতের আমেজ অনুভূত হচ্ছে এই সময় থেকেই। এক সহকর্মী বলছিলেন, ‘এ বছর শীত একটু আগেভাগেই এল মনে হয়।’ তবে এ বছর বলে নয়, কার্তিক-অগ্রহায়ণে হিম হিম অনুভব চিরন্তন বিষয়। 

শীত আসার আগে সবকিছুতেই পরিবর্তন দেখা যায়। খুব একটা সৌন্দর্যসচেতন না হলেও কমবেশি সবাই যেমন এই সময়ে অনুভব করেন ত্বকের নিষ্প্রাণ ভাব। খুশকির সমস্যায় ভোগেন অনেকেই, চুল পড়েও যেতে পারে। সৌন্দর্যচর্চায় সময় দিতে না চাইলেও সামান্য কিছু যত্ন হয়ে ওঠে প্রয়োজনীয়। এই যেমন সপ্তাহে অন্তত দুই দিন মাথার ত্বকে ভালোভাবে (তুলা এবং হাতের দশ আঙুলের ডগার সাহায্যে) উষ্ণ তেল মালিশ করা, হাত-মুখ ধোয়ার পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা। করোনাকালে নিয়মিত হাত ধোয়ার অভ্যাস তো গড়ে তুলতেই হয়েছে, প্রতিবার হাত ধোয়ার পর ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করা প্রয়োজন সুস্থ ত্বকের জন্য। 

সুস্থ, সুন্দর ও সতেজ ত্বক এবং চুলের জন্য খাদ্যাভ্যাস হতে হবে ঠিকঠাক। নানা রঙের মৌসুমি সবজি খেতে হবে প্রতিদিন। তৃষ্ণা অনুভূত না হলেও পানি খেতে হবে পর্যাপ্ত, নইলে ত্বক হারাবে আর্দ্রতা। পিঠাপুলির আয়োজনে বজায় রাখুন পরিমিতিবোধ, যাতে ওজন থাকে নিয়ন্ত্রণে।

ঘরোয়া উপায়ে ত্বকের বাড়তি যত্নের জন্য কিছু প্যাক তৈরির নিয়ম জানালেন বিন্দিয়া এক্সক্লুসিভ বিউটি কেয়ারের রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন কচি—

১ চা-চামচ মধু, ২ চা-চামচ গুঁড়া দুধ এবং ১ চিমটি হলুদের মিশ্রণ মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন। 

আধা কাপ দই, তিন চা-চামচ মধু ও তিন চা-চামচ চিনির দানা হালকাভাবে মিশিয়ে মুখে মালিশ করে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। 

আধা চা-চামচ অ্যাপল সিডার ভিনেগার, আধা চা-চামচ পানি, আধা চা-চামচ মধু, দুই চা-চামচ গোলাপজল ও কয়েক ফোঁটা জলপাই তেলের মিশ্রণ কনুই, হাঁটু, হাতে-পায়ে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ধুয়ে নিন। 

মধুর সঙ্গে সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে ফেসপ্যাক হিসেবে লাগাতে পারেন। শুকিয়ে এলে ধুয়ে ফেলুন। 

৩ চা-চামচ ওটমিল, ১ চা-চামচ মধু ও আধা কাপের কম দুধের মিশ্রণ মুখে লাগিয়ে ১০ মিনিট পর ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিন। 

নিমপাতাগুঁড়া, মধু ও সামান্য হলুদগুঁড়া দিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে লাগান। ১০ মিনিট পর ধুয়ে নিন। 

নারকেল তেলের সঙ্গে কলা মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।


সকালে উঠে ফেসওয়াশ ব্যবহার করবেন না। ১০-১৫ বার বেশি করে পানির ঝাপটা দিন মুখে। মুখ মুছে নিয়ে হাতে একটু পানি নিয়ে ময়েশ্চারাইজার মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। 

গোসলের ঘণ্টাখানেক আগে জলপাই তেল মালিশ করা ভালো। সময়ের অভাব হলে মালিশ সেরেই গোসল করে নেওয়া যেতে পারে। 

নারকেল তেলও মাখতে পারেন শরীরে। ত্বকের রুক্ষ অংশে ব্যবহারের আগে গরম করে নিলে উপকার পাবেন। 

ঘৃতকুমারীর (অ্যালোভেরা) রস সরাসরি মুখে লাগাতে পারেন। লাগানোর পর মুখ ধোয়ার প্রয়োজন নেই। 

রাতে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না। ত্বকের জন্য মানানসই ময়েশ্চারাইজার না পেলে ভালো মানের পেট্রোলিয়াম জেলি কাজে লাগাতে পারেন। বিকল্প হিসেবে ঘি-ও বেছে নিতে পারেন।

চুল খুব শুষ্ক হলে, মাথায় অতিরিক্ত খুশকি হলে কিংবা প্রতিদিন শ্যাম্পু করতে হলে সপ্তাহে ৩-৫ দিন উষ্ণ তেল মালিশ করুন। তেল মালিশ করার আধা ঘণ্টা-এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করুন। চাইলে রাতে তেল মালিশ করে মাথার পেছন দিক থেকে সামনের দিকে চিরুনি চালিয়ে এরপর চুল বেঁধে নিয়ে ঘুমাতে পারেন, পরদিন সকালে শ্যাম্পু করে নিন। 

শ্যাম্পু করার আধা ঘণ্টা আগে চুলে একটি গরম তোয়ালে পেঁচিয়ে রাখতে পারেন। 

খুশকি প্রতিরোধে শ্যাম্পু করার দুই ঘণ্টা আগে আমলকীর রসের সঙ্গে সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে মাথায় লাগিয়ে নিন। কিংবা পেঁয়াজের রস মাথায় লাগিয়ে এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করুন। 

চুলে অতিরিক্ত গরম পানি দেবেন না। 

মোটা দাঁতের চিরুনি বেছে নিন। ভঙ্গুর, প্লাস্টিকের চিরুনি ব্যবহার না করাই ভালো। ভেজা চুলে চিরুনি নয়। 

আঁচড়ানোর সুবিধায় চুলে পানি ছিটিয়ে নেওয়া যায়। আঁচড়ানো শেষে পাতলা কাপড়ে অতিরিক্ত পানি শোষণ করে নিন। 

হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না। বরং তোয়ালের সাহায্যে আলতোভাবে পানি ঝরিয়ে ফ্যানের বাতাসে শুকান। চুল সাজানোর প্রয়োজন হলে ড্রায়ারের ঠান্ডা বাতাস কাজে লাগান। 

বাইরে গেলে চুল ঢেকে নিন।

একুশে সংবাদ/তাশা