ঢাকা বুধবার, ০৬ জুলাই, ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

কুমিল্লার বাজারে চাহিদার শীর্ষে লিচু 


Ekushey Sangbad
নিজস্ব প্রতিবেদক
০৩:৪৩ পিএম, ১৭ মে, ২০২২
কুমিল্লার বাজারে চাহিদার শীর্ষে লিচু 

আবারও এসেছে জ্যৈষ্ঠ মাস। জ্যৈষ্ঠ মাসকে ঘিরে সারাদেশেই চোখে পড়ে গ্রীষ্মকালীন নানা ধরনের ফল। কুমিল্লার বিভিন্ন ফলবাজার গ্রীষ্মকালীন মৌসুমি ফলে ছেয়ে গেছে।

 

সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রায় প্রতিটি বাজারেই গ্রীষ্মকালীন মৌসুমি ফলের সমারোহ। এসব ফলের মধ্যে রয়েছে লিচু, কাঁঠাল, আম, তালের শ্বাস, আনারস ইত্যাদি। এছাড়া মৌসুম শেষ হওয়ায় বিদায়ের পথে থাকা বেল, বাঙ্গি ও তরমুজের মতো ফলও দেখা যাচ্ছে বাজারগুলোতে। গ্রীষ্মকালীন মৌসুমি ফলের মধ্যে বর্তমানে বাজারে ক্রেতাদের চাহিদার শীর্ষে রয়েছে লিচু। এছাড়া নগরীর প্রায় প্রতিটি পাড়া-মহল্লায়ও ভ্যানে করে মৌসুমি ফল বিক্রি করছেন অনেকে। বাজারগুলো থেকে কিছুটা কম দামেই ফল বিক্রি হচ্ছে ভ্যানের ভ্রাম্যমাণ দোকানগুলোতে।

 

নগরীর অন্যতম বৃহৎ ফলের বাজার টমছমব্রিজ এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, বিক্রেতারা ব্যস্ত সময় পার করছেন মৌসুমি ফল বিক্রিতে। তারা মূলদোকানের সামনের অংশে মৌসুমি ফল রেখে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করছেন। এ বাজারে বেশি বিক্রি হচ্ছে লিচু। এছাড়া হিমসাগর, লেংড়াসহ বিভিন্ন জাতের আমও শোভা পাচ্ছে ফল দোকান গুলোতে। তবে লিচু পুরোদমে পরিপক্ব হলেও আম মাত্র আসতে শুরু করেছে বাজারে। ব্যবসায়ীদের প্রত্যাশা, আগামী সপ্তাহের মধ্যেই ফল বাজারের বেশির ভাগ অংশ থাকবে মিষ্টি ও রসালো আমের দখলে।

 

টমছমব্রিজ ফল বাজারের ব্যবসায়ী কাজী আলমগীর বাসসকে জানান, এ বাজারে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে লিচু। প্রকার ভেদে প্রতি একশ লিচু বিক্রি হচ্ছে আড়াইশ থেকে তিনশ টাকায়। গতবারের তুলনায় এবার দাম কিছুটা বেশিই মনে করছেন ক্রেতারা।  অপর ব্যবসায়ী মনির হোসেন বলেন, আমের বেচাকেনা এখনো জমে উঠেনি। তবে লিচুর এখন ভরপুর মৌসুম। তাই লিচুর ব্যবসা জমজমাট। এছাড়া মৌসুমের শেষ দিকে হলেও এখনও বাজারে তরমুজ আছে। দুইশ থেকে ৩শ টাকা পর্যন্ত প্রতি পিস তরমুজ বিক্রি হচ্ছে। আমের বেচাকেনা জমে উঠবে আগামী সপ্তাহ থেকে। এ বাজারে ফল কিনতে আসা জহিরুল হক বাসসকে বলেন, তিনশ টাকা দিয়ে একশ লিচু কিনেছি।

 

কুমিল্লা রাজগঞ্জ বাজার কমিটির সহ সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন বলেন, গ্রীষ্ম মৌসুমের নানা ধরনের দেশীয় ফল এখন বাজারে। দেশীয় এসব পুষ্টিকর ফল যেন মানুষ কম দামে কিনতে পারে সেজন্য আমাদের বাজার কমিটি সবর্দা খেয়াল রাখছে।

 

একুশে সংবাদ/বা.স.স/রখ