ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭
Ekushey Sangbad
Janata Bank
করোনাভাইরাস মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৩১ নির্দেশনা

‘বিএনপি নেতাদের মন্তব্যে খালেদাকে কারাগারে পাঠানোর দাবি উঠতে পারে’


Ekushey Sangbad

সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০, ০৪:২০ পিএম
‘বিএনপি নেতাদের মন্তব্যে খালেদাকে কারাগারে পাঠানোর দাবি উঠতে পারে’

একুশে সংবাদ : বিএনপি মহাসচিব ও বিএনপি নেতাদের মন্তব্যের কারণে খালেদাকে আবার কারাগারে পাঠানোর দাবী ওঠার আশঙ্কা দেখা দিতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব ও বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের প্রক্ষিতে মনে হচ্ছে, খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত না করাই ভালো ছিল। রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বেগম জিয়াকে অন্তরীণ করে রাখা হয়েছে। বিএনপি কখনো হত্যার রাজনীতিকে প্রশ্রয় দেয়নি। মির্জা ফখরুলের এমন বক্তব্যর বিষয়ে জানতে চাইলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য হচ্ছে প্রচণ্ড হাস্যকর। মির্জা ফখরুলের বক্তব্যের মাধ্যমে এই প্রশ্নই আসে প্রধানমন্ত্রী তার যে ক্ষমতাবলে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্তি দিয়েছেন। মির্জা ফখরুল ও তাদের অন্যান্য নেতারা যে কথাবার্তাগুলো বলছেন, এতে মনে হচ্ছে প্রধানমন্ত্রী যে মহানুভবতা দেখিয়েছেন এটি না দেখালেই ভালো হতো।’ তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘ভবিষ্যতে যখন এই প্রসঙ্গ আসবে, জনগণের পক্ষ থেকে হয়তো বলা হতে পারে বা মির্জা ফখরুলসহ অন্যদের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এখনই বলা হতে পারে তাকে আবার কারাগারে পাঠানো হোক। এই দাবি ওঠে কিনা সেটি হচ্ছে বড় প্রশ্ন।’ তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘কারণ তিনি (খালেদা জিয়া) তো সাজাপ্রাপ্ত আসামি, তার তো কারাগারের ভেতরেই থাকার কথা ছিল। তিনি আদালত থেকে তো জামিন পাননি। প্রধানমন্ত্রী সিআরপিসির (ফৌজদারি কার্যবিধি) ক্ষমতা বলে প্রথমে ছয়মাস মুক্তি দিয়েছেন, পরে আরও ছয়মাস বর্ধিত করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন।’ তিনি আরও বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলামের উচিত ছিল এই মহানুভবতার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো, কৃতজ্ঞতা জানানো।’ এছাড়াও তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডে বিশ্বাস করে না। বরং গুম খুনের রাজনীতি বিএনপির সময় থেকেই সৃষ্টি। হত্যার রাজনীতি তাদের মূল প্রতিপাদ্য। একুশে সংবাদ/এআরএম/রা/২০/০৯/২০২০
Side banner