ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

লক্ষ্মীপুরের ইউএনও পুরস্কারের অর্থ দিলেন বিদ্যালয়ে


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি, লক্ষিপুর
০৮:৩৬ পিএম, ৬ জুলাই, ২০২২
লক্ষ্মীপুরের ইউএনও পুরস্কারের অর্থ দিলেন বিদ্যালয়ে
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পাওয়া লক্ষ্মীপুর সদর ইউএনও মো. ইমরান হোসেন। পুরুষ্কার হিসেবে পাওয়া সকল অর্থ দিয়ে বিদ্যালয়ে বই দিয়েছে। 

সদর উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, শেখ মুজিব আমার পিতাসহ কিনে দেওয়া বই এর মধ্যে ১১০ ধরণের বই রয়েছে। জাতীয় শুদ্ধাচার ২০২১-২০২২ উপলক্ষ্যে লক্ষ্মীপুর জেলার ৫ উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইমরান হোসেন শ্রেষ্ঠ অফিস প্রধান হিসাবে নির্বাচিত হন। শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার হিসাবে তিনি সম্মাননা ক্রেস্ট, সনদ ও নগদ অর্থ পান।

এদিকে পুরস্কার পাওয়ার চার দিনে মধ্যে পুরস্কার বাবদ প্রাপ্ত সম্মানীর সমুদয় অর্থ দিয়ে কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের লাইব্রেরির জন্য বই কিনে দিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইমরান হোসেন। 

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) বিকেলে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ এর হাতে বই গুলো তুলে দেন তিনি। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের উপাধ্যক্ষ রিনা সুলতানা। 

জানা যায়, গত বছরের ১১ অক্টোবর লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্তকর্তা হিসেবে যোগদান করেন মো. ইমরান হোসেন। সদর উপজেলার নির্বাহী কর্তকর্তা হিসেবে যোগদানের স্বল্প সময়ের মধ্যে ২১টি ইউনিয়ন, ১টি পৌরসভা ও ২টি থানার সমন্বয়ে গঠিত বিশাল আয়তনের সদর উপজেলার বৃহত্তর জনগোষ্ঠীকে দ্রুততম সময়ে জনসেবা প্রদানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তিনি। তারই স্বীকৃতিস্বরূপ জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পান মো. ইমরান হোসেন। এই পুরস্কারের অর্থ দিয়ে তিনি জেলা প্রশাসক কর্তৃক পরিচালিত কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের জন্য বই কিনে দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন বলেন, সামনের দিনগুলোতে আমার সর্বোচ্চ মেধা, শ্রম ও যোগ্যতা দিয়ে দেশ এবং মানুষের সেবা করতে চাই।পুরষ্কার বস্তুনিষ্ঠ কাজে উৎসাহ প্রদান করে। ভবিষ্যতে আরও ভালো কাজ করার চেষ্টা থাকবে । পুরস্কার বাবদ প্রাপ্ত সম্মানীর সমুদয় অর্থ দিয়ে কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের উডেন ফ্লোর লাইব্রেরির জন্য বই কিনে দিয়েছি।

 

 

 

একুশে সংবাদ/র.খা/এস.আই