ঢাকা রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

পীরগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে শ্বশুড়-বউমা’র লড়াই


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি
০৫:৪৪ পিএম, ১৮ নভেম্বর, ২০২১
পীরগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে শ্বশুড়-বউমা’র লড়াই
ছবি: একুশে সংবাদ

ছবি: একুশে সংবাদ

টেলিনা সরকার হিমু। চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে নৌকা মার্কা নিয়ে ঠাকুরগাওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার বৈচুনা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। 

একই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে তার বিপরীতে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন তার আপন মামা শ্বশুড় সাবেক চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী চৌধুরী। মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন দু’জনই। এলাকার উন্নয়নে দিচ্ছেন নানা ধরণের প্রতিশ্রতি। চেয়ারম্যান পদে শ্বশুর-বউমা’র লড়াই উপজেলায় বেশ সাড়া ফেলেছে। 

বিষয়টি এখন সাধারণ মানুষের মুখে মুখে। শ্বশুর-বউমা প্রার্থী হওয়াটাকে আনন্দ ভরেই গ্রহন করেছেন ইউনিয়নের ভোটাররা। হিমুর  স্বামী নুরে আলম সিদ্দিকী দুলাল উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন এবং বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে অংশ নিয়ে অল্প ভোটের ব্যবধানে হেরে যান। ২০২০ সালের ২৩ জানুয়ারী দুলালের অকাল মৃত্যু হয়। 

এবার চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থী করেছেন দুলালের স্ত্রী হিমু সরকারকে। হিমু আওয়ামী লীগের প্রার্থী হওয়ায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ ছাড়াও দলের উপজেলা এবং জেলা নেতারা অংশ নিচ্ছেন তার নির্বাচনী প্রচারণায়। দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে ভোটের মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি। 

অপর দিকে আইয়ুব আলী চৌধুরীও সব দল মতের মানুষকে সাথে নিয়ে দিন রাত গনসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। সাবেক চেয়ারম্যান হিসেবে এলাকায় তার একটা প্রভাব ও গ্রহন যোগ্যতাও রয়েছে। সেটি কাজে লাগাতে চেষ্টা করছেন তিনি। বৈরচুনা ইউনিয়নে জমে উঠেছে শ্বশুড়-বউমা’র লড়াই। কেউ কাউকে ছাড় দিচ্ছেন না।বৈরচুনা বাজারের মোটরসাইকেল শো রুমে মালিক ইব্রাহীম খলিল বলেন, তাদের ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে শ্বশুড়-বউমা লড়ছেন। এতে বেশ মজা পাচ্ছি আমরা। এ নিয়ে ভোটারদের মাঝে কৌতুহলের শেষ নেই।

মুদি দোকানদার মোশারফ হোসেন ও আব্দুল হক বলেন, কেউ কম না। লড়াই হচ্ছে সেয়ানে সেয়ানে। হিমু সরকার বলেন, সুখে-দুঃখে এলাকারবাসীর পাশে থাকতে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। আশা রাখি জনগন আমাকেই নির্বাচিত করবে।

অপর দিকে আইয়ুর আলী চৌধুরী বলেন, আমি এর আগে এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলাম। জনগন আমার চিনেন। সব সময় জনগনের পাশে ছিলাম এবং আগামীতেও থাকতে চাই। শ্বশুড়-বউমা ছাড়াও ঐ ইউনিয়নে চেয়াম্যান পদে আরো ৫ জন প্রতিদন্ডীতা  করছেন। ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে ২৮ নভেম্বর।

একুশে সংবাদ/এলআরএল/এএমটি