ঢাকা সোমবার, ২৯ নভেম্বর, ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

শ্রীপুরে প্রেমিকার সাথে অশ্লীলতা গোপনের ভিডিও ধারণ


Ekushey Sangbad
জেলা প্রতিনিধি
০৫:৩৪ পিএম, ২১ অক্টোবর, ২০২১
শ্রীপুরে প্রেমিকার সাথে অশ্লীলতা গোপনের ভিডিও ধারণ

প্রেমিকার সাথে সেক্স করে গোপনে মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাদ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক প্রেমিক নাঈম এর বিরুদ্ধে। সে ভিডিও চিত্রধারণ করে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে। প্রেমিক নাঈম একপর্যায়ে গোপনে অন্যত্র বিয়ে করার পর প্রেমিকার ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় ।

 গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নে গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে বুধবার দুপুরে শ্রীপুর থানায় ৩ ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্তরা হলেন তেলিহাটি মোড়ের খোকন মৃধার ছেলে নাঈম মৃধা (২৪), তার অপর সহযোগিরা মৃত কাদির মৃধার ছেলে নজরুল ইসলাম (৫০) এবং মজিবর মৃধার ছেলে সজীব মৃধা (২২)।

থানার অভিযোগ ও তরুণীর বাবার সাথে কথা বলে জানা যায়, ভিকটিম তেলিহাটি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি পাশ করেছে। স্কুলে আসা যাওয়ার পথে তরুণী নাঈমের দোকান থেকে বিভিন্ন সময় খাতা কলম কিনতো। এরই সূত্র ধরে  নাঈমের সাথে তার পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে তাদের  মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। নাঈম গোপনে তরুনীকে নিয়ে  বিভিন্ন স্থানে ঘুরাঘোরি করতো। অনুমান এক বছর পূর্বে নাঈম তরুণীকে  মাওনা চৌরাস্তার দক্ষিন দিকে এবং বাঘের বাজারের আগে কোন একটি হোটেলে নিয়ে তাকে শারীরিক সম্পর্ক করে। এসময় নাঈম শারীরিক সম্পর্কের সেক্স ভিডিও ধারণ করে রাখে। ভিকটিম নাঈমকে ভিভিওটি মুছেফেলার কথা বলে। নাঈম তাকে  জানিয়েছে ভিডিওটি সে মুছে ফেলেছে।

কিছুদিন পরে নাঈম ভিকটিমকে খবর দিয়ে দেখা করতে বলে। কথা অনুযায়ী ভিকটিম নাঈমের সাথে দেখা করে। এ সময় নাঈম ভিডিওর কথা বলে ভিকটিমকে অনৈতিক কাজের প্রস্তাবদেয়। ভিকটিম নাঈমের প্রস্তাবে রাজী হয়নি। এতে নাঈমের সাথে ভিকটিমের মনোমালিন্ন হয়। পরে  নাঈম ওই ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকী দেয় । ঘটনার পর থেকে নাঈম পলাতক রয়েছে।

ভিকটিমের বাবা আরও অভিযোগ করেন, গোপনে অন্যত্র বিয়ে করে নাঈম। এক পর্যায়ে মোবাইলে ধারণ করা অশ্লীল ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। ১৮ অক্টোবর সন্ধ্যা ৬টার দিকে এলাকার বিভিন্ন লোক মোবাইলে ফোন করে তার মেয়ের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পরার কথা জানায়। পরে  তিনি ভিকটিমের কাছে থেকে ঘটনার বিস্তারিত জানেন। পরদিন ১৯ অক্টোবর দুপুরে  নাঈমের নিকটাতœীয় ও সহযোগী একই এলাকার নজরুল ইসলাম ও সজীব মৃধার কাছে ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার বিষয়ে জানতে চান। এতে নজরুল ও সজীব মৃধা ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করেন এবং বিভিন্ন ধরনের গালিগালাজ করে তাড়িয়ে দেন।

শ্রীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহফুজ ইমতিয়াজ ভূইয়া জানান, ভিকটিমের বাবার কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তবে ঘটনাটি প্রায় আড়াই বছর পূর্বে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একুশে সংবাদ / টি.আই সানি/ এএমটি