ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১ আশ্বিন ১৪২৮

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank

পানিতে ভাসমান গল্পকুঠি‍‍`র সৌন্দর্য


Ekushey Sangbad
শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
০৪:১৩ পিএম, ২১ আগস্ট, ২০২১
পানিতে ভাসমান গল্পকুঠি‍‍`র সৌন্দর্য

পানিতে ভাসমান গল্পকুঠি'র সৌন্দর্য ও আশপাশের মন মাতানো পরিবেশ নিয়ে নতুন করে আর কিছু বলার নেই। এরই মধ্যে গল্পকুঠি পেতে শুরু করেছে তার নতুন রূপ। জলে ডুবে থাকা চারপাশটা ভরে উঠছে সবুজে সবুজে। স্থানীয় কৃষকরা ধান চাষের মাধ্যমে গল্পকুঠিকে ঢেকে দিচ্ছেন সবুজের আবরণে।

গল্পকুঠি'র কেবিন বা আড্ডাখানায় দাঁড়িয়ে যতদূর পর্যন্ত দৃষ্টি প্রসারিত করা যায় ততদূর পর্যন্ত শুধু সবুজ শ্যামলিমা আর গ্রামের নিখাদ প্রকৃতিই দেখা যায়। সবুজের গালিচা বিছানো এই সদ্য প্রস্তুত করা ধানক্ষেত যখন পাক ধরবে তখন চারপাশটা আবার হলুদে ভরে যাবে। একসময় এই ধান কাটা হবে নতুন করে এখানে আবার জলের খেলা শুরু হবে আর এটাই আমাদের গল্পকুঠি'র বিশেষ বিশেষত্ব। ভিন্ন ভিন্ন সিজনে ভিন্ন রকম সৌন্দর্য ভিন্ন রকম ভাল লাগা।  গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের আবদার গ্রামের সাত চুঙ্গীর পাড় এলাকায় অবস্থি গল্পে সল্পে ভোজন পানিতে ভাসমান গল্পকুঠি'র।

শুনশান নীরবতার সাথে সবুজে ঘেরা চারপাশটায় বসে আপনার পরিবার বা প্রিয়জনের সাথে পছন্দের সব লোভনীয় খাবারের স্বাদ নেওয়ার অনুভূতি নেয়া মজায় অন্যরকম।  

মানুষ মূলত রিলাক্স করার জন্য এবং সঙ্গিনীর সাথে একান্ত সময় কাটানোর জন্যই নির্ঝস্থানট এই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত পানিতে ভাসমান গল্পকুঠি'রটিতে আসে । এখানে রাতে বিভিন্ন রকমের লাইটিং আলোকিত করে তুলে। ফ্যামিলি নিয়ে যারা আসেন তারা ফেসবুকে পোষ্ট করার জন্য বিভিন্ন স্ট্যাইলে ছবি তুলে থাকেন।   

গল্পকুঠি'র এর সবচেয়ে প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে এর অসাধারণ সুন্দর নীল রংয়ের সুইমিং পুল এর মতো দেখতে নিচের পানি । এখানে প্যাকেজের সাথে তিন বেলা খাবারের ব্যবস্থা রয়েছে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এখানে বুফে খাবার থাকে। খাবার সত্যিই সুস্বাদু এবং স্বাস্থ্যকর । এছাড়াও অন্যান্য সকল আধুনিক সুযোগ-সুবিধা আপনি পেয়ে যাবেন। গল্পকুঠি'রটি যেমন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত নানা ধরনের গাছ দেখতে পাবেন। রিলাক্স করার জন্য অথবা নাস্তা খাওয়ার জন্য সুব্যবস্থা রয়েছে । 

এখানে সব সময় সুন্দর সুন্দর গান বাজানো হয় যা একটা পার্টি পার্টি আমেজ তৈরি করে এবং রাতে গল্পকুঠি'র এর নিচের পানি সুইমিং পুলের পানির মতো রংবেরঙের আলো দিয়ে সাজানো হয়েছে মনে হয় যা খুবই দৃষ্টিনন্দন লাগে । 

গল্পকুঠি'র এর সুন্দর সৌন্দর্যমন্ডিত দৃশ্য দেখতে প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মানুষের ঢল নামে। অনেকেই সৌন্দর্যমন্ডিত এই গল্পকুঠি'র ভেতরে জায়গা না পেয়ে ঘন্টা পর ঘন্টা অপেক্ষ করে ভেতরে প্রবেশ করে রিলাক্স করার জন্য অথবা নাস্তা খাওয়ার জন্য।
গল্পকুঠি'র প্রতিষ্ঠাতা চার জন ফাহাদুল হাসান মাহির ও মাসুদ রানা লিটন, মাহমুদুল হাসান সোহাগ,হাসিবুল হাসান মামুন।

ফাহাদুল হাসান মাহির বলেন,এখানে চিকেন শর্মা সহ আরো বেশ কিছু নতুন খাবার আইটেম নিয়মিত পাওয়া যাবে গল্পকুঠিতে। শুরুর কয়েকটা দিন যে অতিরিক্ত চাপ এবং ভিড় ছিল তা এখন অনেকটাই স্বাভাবিক। অতিরিক্ত ভিড়ের মধ্যে আসবেন কিনা যারা এমন দ্বিধা দ্বন্দ্বে ভুগছেন বা ভুগছিলেন তারা এখন নির্দ্বিধায় চলে আসতে পারেন।

দর্শনার্থীদের  উদ্দেশ্য করে বলেন,বন্ধুবান্ধব প্রিয়জন ও পরিবার পরিজনের সাথে ভাল কিছু সময় কাটানোর জন্য গল্পকুঠি'র বিকল্প আর কিছু হতেই পারে না।  গল্পকুঠি'র সম্মানিত ভোক্তা, দর্শনার্থী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি আমাদের গল্পকুঠি পরিবারের পক্ষ থেকে বিনীত অনুরোধ, আপনারা দয়া করা ব্যবহৃত টিস্যু, পানির বোতল এবং যাবতীয় ময়লা নির্দিষ্ট ঝুড়িতে ফেলবেন। যেখানে-সেখানে ময়লা ফেলে গল্পকুঠির সৌন্দর্য ও এর আশপাশের প্রাকৃতিক পরিবেশ নষ্ট না করার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে অনুরোধ করছি। পরিবেশ ও প্রকৃতি রক্ষা করা আমাদের পবিত্র দায়িত্ব। গত ১৯ জুলাই ২০২১ ইং গল্পকুঠি'র উদ্বোধন এর মাধ্যমে আমাদের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে।


একুশে সংবাদ/সানি/আর