ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯

সরকার নিবন্ধিত নিউজ পোর্টাল

Ekushey Sangbad
Janata Bank
Rupalibank
চিংড়ি শিল্প

চিংড়ি শিল্পে শত কোটি টাকার ক্ষতি


Ekushey Sangbad
একুশে সংবাদ ডেস্ক
০১:২১ পিএম, ১০ মে, ২০২২
চিংড়ি শিল্পে শত কোটি টাকার ক্ষতি
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাগরহাটের রামপাল ও মোংলা উপজেলায় ভাইরাসজনিত কারণে চিংড়ি মাছ মরতে শুরু করায়, চিংড়ি শিল্পে শতকোটি টাকার ক্ষতির আশংকা করছেন চাষিরা। রামপাল ও মোংলা উপজেলায় কয়েক হাজার চিংড়ি চাষির প্রায় ২০ হাজার চিংড়ি ঘের রয়েছে। গত এক সপ্তাহর মধ্যে এ দুই উপজলার চিংড়ি ঘেরে হঠাৎ করে মাছ মরতে শুরু করে। তবে চিংড়ি মরার সঠিক কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না চাষিরা। 

রামপাল উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের চিংড়ি চাষি রাজীব সরদার বলেন, ৯০ থেকে ৯৫ ভাগ ঘেরের চিংড়ি মরে শেষ হয়ে গেছে। যারা লোন নিয়ে চিংড়ি চাষ করেছে তারা নিঃস্ব হয়ে গেছে। এ উপজেলার রাজনগর, বাইনতলা ও পেড়িখালি ইউনিয়নের সব চিংড়ি ঘেরের অবস্থা একই রকম। 

মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের জসিম উদ্দিন বলেন, বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে আমার তিন বিঘা জমিতে মাছ ছেড়েছিলাম। গত ৪ দিন ধরে মাছ মরতে শুরু করেছে। ঘের থেকে মরা মাছ উঠিয়ে দেখি প্রতিটি মাছের গায়ে সাদা সাদা স্পট রয়েছে। কি রোগে মাছ মরছে, তা তো বুঝতে পারছি না। এমন অবস্থা চলতে থাকলে আমার তো পথে বসা লাগবে। 

 এ বিষয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস. এম. রাসেল বলেন, জেলার রামপাল ও মোংলা উপজেলার প্রায় ২০ হাজার চিংড়ি ঘেরের ৪০ শতাংশ ঘেরের মাছ মারা গেছে বলে আমরা তথ্য পেয়েছি। চাষিদের পক্ষ থেকে ক্ষতির পরিমান ১০০ কোটি বলা হচ্ছে। তবে কি কারণে চিংড়ি মারা যাচ্ছে, সেটিসহ ক্ষতির প্রকৃত পরিমান বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। আমরা ধারনা করছি অতিরিক্ত গরম, হোয়াইট স্পট সিনড্রম ভাইরাস বা মৌসুমের শেষে ভাইরাস যুক্ত চিংড়ি ঘেরে ছাড়ার কারণে এমনটা হতে পারে। 

তিনি আরও বলেন, অধিকাংশ ঘের প্রস্ততির আগে চাষিরা ভাইরাস মুক্তকরণের যে সব পদ্ধতি আছে তা প্রয়োগ না করে গতানুগতিক ভাবে ঘের প্রস্তত করে চিংড়ি ছাড়েন। এছাড়া চিংড়ি পোনা ছাড়ার আগে পোনা ভাইরাস মুক্ত কিনা তা পরীক্ষা না করে পোনা ছাড়ার কারণে এমনটা হতে পারে বলে জানান তিনি।

একুশে সংবাদ/বা.প্র/র.খ